শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:৩১

আরও চড়া চাল-মুরগির দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক

আরও চড়া চাল-মুরগির দাম
বাজার দর

চালের দাম বেড়েই চলেছে। গত সপ্তাহের তুলনায় এই সপ্তাহে নাজিরশাইল ও মিনিকেট দুই ধরনের চিকন চালের দামই বেড়েছে। বেড়েছে বয়লার মুরগি, আমদানি করা আদা, দেশি রসুন ও জিরার দাম। স্থিতিশীল রয়েছে সবজির দাম। তবে শীতকালীন সবজির আমদানি কমতে শুরু করেছে। কমতির দিকে রয়েছে সয়াবিন তেল, আটা, ময়দার দাম। রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, গত সপ্তাহে প্রতি কেজি ৬৪ থেকে ৬৫ টাকায় বিক্রি হওয়া চিকন নাজিরশাইল বাজারভেদে ৬৬ থেকে ৭০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। এক সপ্তাহ আগে ৫৮ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া চিকন মিনিকেট গতকাল বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকা  কেজিতে। তবে পাইজাম ও লতা জাতীয় চালের দাম স্থিতিশীল রয়েছে। প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৫৬ টাকায়। মোটা চালের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে কিছুটা বেড়েছে। সরকারি বিপণন সংস্থা টিসিবির হিসাবে গত বছরের এই সময়ে যে চালের দাম ছিল ৫০ টাকা, এখন সেই চালের দাম ৬০ টাকা। টিসিবির তথ্য অনুযায়ী, গত এক বছরে চিকন চালের দাম বেড়েছে ১৩ দশমিক ৬৪ শতাংশ। মাঝারি চালের দাম বেড়েছে ৯ দশমিক ৩৮ শতাংশ এবং মোটা চালের দাম বেড়েছে ৩৫ শতাংশের বেশি। ব্যবসায়ীরা বলছেন, চালের সরবরাহ কম। মোকাম  থেকেই চালের দাম বাড়তি। সে কারণে খুচরা বাজারে চালের দাম কমছে না। দোকান ও বাজারভেদে দাম ভিন্ন হওয়া প্রসঙ্গে কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, যাদের আগে কম দামে বেশি চাল কেনা ছিল, তারা গ্রাহক ধরে রাখতে কিছুটা কম দামে চাল বিক্রি করছেন। যারা নতুন কিনেছেন, তারা কম দামে দিতে পারছেন না। এ কারণে একই চাল কেউ ৬৬ টাকায়, কেউ আবার ৭০ টাকায় বিক্রি করছেন। শুধু চাল নয়, মাংসের দামও রয়েছে সাধারণ মানুষের নাগালের বাইরে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বাড়ছে ব্রয়লার মুরগির দাম। এক সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে ব্রয়লার মুরগির দাম কেজিতে ১০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। মাসের ব্যবধানে বেড়েছে ৩০ টাকা পর্যন্ত। খুচরা পর্যায়ে ব্রয়লার মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৫০-১৬০ টাকায়। যা এক সপ্তাহ আগে ছিল ১৪০ থেকে ১৪৫ টাকার মধ্যে। মাসখানেক আগে ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হয়েছে ১২৫-১৩০ টাকা কেজি। গত সপ্তাহে ২৫০ টাকা  কেজিতে বিক্রি হওয়া সোনালি মুরগির দামও বেড়ে ৩০০ টাকা হয়েছে। লাল কক মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২৫০ টাকা কেজি। গরুর মাংসের দাম ৫৮০ থেকে ৬০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। খাসির মাংসের দাম ৭৫০ থেকে ৮০০ টাকা কেজি। বাজারে শীতকালীন সবজি কমতে শুরু করলেও দাম বাড়েনি। আলু ও পিঁয়াজের দাম গত সপ্তাহের চেয়ে একটু কমেছে। বাজারে সব থেকে দামি সবজির তালিকায় রয়েছে পটোল ও ঢেঁড়স। এ দুটি সবজির কেজি এখনো ১০০ টাকার আশপাশে। পাকা টমেটোর কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০-৩০ টাকায়। শসার কেজি বিক্রি হচ্ছে ২০-৩০ টাকার মধ্যে। ধরনভেদে শিম বিক্রি হচ্ছে ২০-৪০ টাকা কেজি। প্রতি কেজি মুলা ১৫-২৫ টাকায়, বেগুন ২০-৩০ টাকায়,  পেঁপে ৩০-৩৫ টাকায়, গাজর ২০-৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গত সপ্তাহের মতো ফুলকপি ও বাঁধাকপির পিস বিক্রি হচ্ছে ১৫-২০ টাকায়। খুচরা পর্যায়ে দেশি পিঁয়াজের কেজি ২৫-৩০ টাকা। অনলাইনগুলো টিসিবির আমদানি পিঁয়াজ বিক্রি করছে ১৮টাকা কেজি। আলু বিক্রি হচ্ছে ১৫-২০ টাকা কেজি। 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর