শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ জুলাই, ২০২০ ২২:৫০

লাকসামে নমুনা সংগ্রহের ১৪ দিনেও আসেনি রিপোর্ট!

লাকসাম প্রতিনিধি:

লাকসামে নমুনা সংগ্রহের ১৪ দিনেও আসেনি রিপোর্ট!

কুমিল্লার লাকসামে করোনার উপসর্গ সন্দেহে গত ২০ জুন ১৬ জনের জনের নমুনা সংগ্রহ করে করে কুমিল্লা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো হয়। ১৪ দিনেও রিপোর্ট না আসায় নমুনা দেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। যথাসময়ে নমুনা ফলাফল জানতে না পারায় তাদের অনেকে প্রকাশ্যে চলাফেরা করছেন। এতে নমুনা দেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে কেউ করোনা আক্রান্ত থাকলে তাদের সংস্পর্শে অন্যরাও সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

জানা যায়, লাকসাম থেকে জুনের মাঝামাঝি সময় সংগ্রহ করে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে পাঠানো কয়েকদিনের নমুনার রিপোর্ট আসতে বিলম্ব হয়। এরই মধ্যে কয়েকদিন অপেক্ষার পর বেশকিছু রিপোর্ট আসলেও ২০ জুনের ১৬টি ও ২৩ জুনের ২০টি রিপোর্ট এখনো আসেনি। নমুনাসমূহ কোথায় আছে তার কোন হদিসও নেই। ২০ জুনের রিপোর্ট ১৪দিন ও ২৩ জুনের রিপোর্ট ১১দিনেও না আসায় নমুনা দেয়া ব্যক্তিদের মধ্যে চরম অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। তাদের কেউ কেউ খুব অসুস্থ হয়ে নমুনা দিলেও জানতে পারেননি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন কিনা? নমুনা দেয়া ব্যক্তিরা রিপোর্ট না আসা পর্যন্ত আইসলোশানে না থাকায় তারা পরিবারের লোকজনের সংস্পর্শে থাকার পাশাপাশি যত্রতত্র ঘুরে বেড়ান। এতে আক্রান্তদের সংস্পর্শে অন্যরাও করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

এ বিষয়ে লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল আলী জানান, নমুনাসমূহের রিপোর্টের জন্য বারবার সংশ্লিষ্টদের জানানোর পরও এখনো পাইনি। রিপোর্ট না পেলে যারা নমুনা দিয়েছেন তাদের বিষয়ে কি সিদ্ধান্তে নেয়া হবে এমন প্রশ্নে তিনি জানান, পজিটিভ থেকে নেগেটিভ হতে যতদিন সময় লাগে তা পার হলে তাদেরকে সুস্থ ঘোষণা করে ছাড়পত্র দেয়া হবে।

কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান জানান, লাকসামের স্বাস্থ্য বিভাগ আমাকে নমুনা দেয়া ব্যক্তিদের নাম ও আইডি পাঠালে কোন ল্যাবে নমুনাসমূহ পাঠানো হয়েছে তা নিশ্চিত হতে পারবো। ওই ল্যাবে যোগাযোগ করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে রিপোর্ট সংগ্রহের ব্যবস্থা করা হবে বলে তিনি জানান।   


বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর