শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ অক্টোবর, ২০১৯ ২২:৩২

পাঁচ হাজার টাকার জন্য ঘুম পাড়িয়ে জবাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

পাঁচ হাজার টাকার জন্য ঘুম পাড়িয়ে জবাই

মাত্র ৫ হাজার টাকার জন্য রংমিস্ত্রি মামুন তার সহকর্মী হাবিবকে আলু ভর্তার সঙ্গে ওষুধ খাইয়ে ঘুমন্ত অবস্থায় জবাই করেছেন। পরে লাশ পানির ট্যাংকিতে রেখে পালিয়েছেন। পুলিশ গত ১৬ অক্টোবর এ লাশ উদ্ধার করে। তদন্তের মধ্যদিয়ে পুলিশ হত্যারহস্য উদঘাটন করেছে।

উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর যশোরের অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়ার একটি নির্মাণাধীন বাড়ির পানির ট্যাংক থেকে হাবিবের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলার এজাহারভুক্ত আসামি মামুন মোল্যাকে গত শুক্রবার ঢাকার আশুলিয়া থেকে আটক করে যশোরের ডিবি পুলিশ। হাবিবকে কীভাবে হত্যা করা হয়েছে সে ব্যাপারে পুলিশকে বিস্তারিত জানিয়েছেন মামুন।

গতকাল যশোরের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করা হয়। ব্রিফিংয়ে বলা হয়, আটক মামুন (১৯) মাগুরার ডাংগাসিংড়া গ্রামের হাবিল মোল্যার ছেলে। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, পাওনা ৫ টাকার জন্য গত ১৪ অক্টোবর ওষুধের দোকান থেকে কিছু ঘুমের ওষুধ কিনে রাত ১০টার দিকে আলু ভর্তার সঙ্গে ওই ওষুধ মিশিয়ে দেন। রাতে ওই খাবার খাওয়ার পর হাবিব ঘুমিয়ে পড়লে দেড়টার দিকে ছুরি দিয়ে তার গলা কাটেন। পরে লাশের হাত-পা বেঁধে পানির ট্যাংকের মধ্যে ফেলে পালিয়ে যান।

উল্লেখ্য, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তা নিয়ে ডিবি পুলিশ গত শুক্রবার ঢাকার আশুলিয়া থানার বাংলাবাজার এলাকার গুমাইন স্কুলের পাশে মামুনের ফুফুর বাড়ি থেকে তাকে আটক করে। পরে এ হত্যাকান্ডে নিজের সম্পৃক্ততার কথা স্বীকার করে পুলিশের কাছে ১৬১ ধারায় জবানবন্দি দেন তিনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর