শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৩১ মে, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ মে, ২০২১ ২৩:০৪

ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি

ভাড়া নিয়ে নৈরাজ্য
Google News

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে যাত্রীবাহী গাড়ির ভাড়া নিয়ে মৌলভীবাজারে চরম নৈরাজ্যের সৃষ্টি হয়েছে। সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে চালকরা গাড়ি ভরে যাত্রী বহন করছেন। পাশাপাশি ভাড়াও দ্বিগুণ আদায় করছেন। এ নিয়ে জেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রতিনিয়ত যাত্রী ও চালকদের মধ্যে বাকবিতন্ডা লেগে আছে। অনেক সময় চালক সিন্ডিকেটের কাছে হারমানতে হয় যাত্রীদের। কোথাও কোথাও যাত্রীরা দ্বিগুণ ভাড়া দেওয়ার পরেও হচ্ছেন লাঞ্ছিত। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ উদাসীন। অনুসন্ধানে জানা যায়, মৌলভীবাজার-কুলাউড়া আঞ্চলিক মহাসড়কে বাসে ৪০ টাকার ভাড়ায় চালকরা আদায় করেন ৬০ টাকা, মৌলভীবাজার-বালাগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে ৩৫ টাকার ভাড়ায় আদায় করা হচ্ছে ৫০ টাকা ও মৌলভীবাজার-শ্রীমঙ্গল রোডে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ৪০ টাকার ভাড়ায় আদায় করা হচ্ছে ৬০/৭০ টাকা। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সব ধরনের যানবাহনে অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা থাকলেও জেলার কোথাও এ নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। যে যার মতো করে যাত্রী বহন করছেন। এদিকে মৌলভীবাজার পৌর শহরের ভিতরে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও টমটম চালকরা যাত্রীদের কাছ থেকে নিচ্ছেন দ্বিগুণ ভাড়া। এনিয়ে চরম বিপাকে পড়ছেন শহরের মধ্য ও নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষ। যাত্রী তকবির মিয়া, আজমল মিয়া, লিটন দাস ও জুবেলসহ অনেকেই বলেন, আমরা কর্মজীবী নিম্ন আয়ের মানুষ। কাজের জন্য প্রতিদিন শহরে আসতে হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য প্রতিটি যানবাহনকে অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা তাকলেও চালকরা এ নির্দেশনা না মেনে গাড়ি ভরে যাত্রী বহন করছে। আমাদের কাছ থেকে ভাড়াও দ্বিগুণ আদায় করা হয়। কেন সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে অতিরিক্ত যাত্রী বহন ও ভাড়া নেওয়া হচ্ছে এ বিষয় চালকদের কাছে জানতে চাইলে তারা একত্রিত হয়ে বিভিন্নভাবে আমাদের হয়রানি ও লাঞ্ছিত করে। রেডস মৌলভীবাজারের ম্যানেজিং ডিরেক্টর শেখ মো. শাহাব উদ্দিন বলেন, ২৬ মে কুলাউড়ার বাসে সিলেট গিয়ে ছিলাম। বাসের প্রতিটি আসনে যাত্রী তোলার পরও দাঁড় করিয়ে কয়েকজন যাত্রী নেয়।

 কিন্তু সবার কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া হয়েছে। মৌলভীবাজার জেলা বাস সমিতির সভাপতি মো. ফজলুর রহমান বলেন, প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় করে দ্রুত এ ধরনের গাড়ি চালকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশ সুপার মো. জাকারিয়া বলেন, সরকারি নির্দেশনা নিশ্চিত করার জন্য আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। কোথাও কোথাও ভাড়া বেশি আদায়ের খবর আমাদের কাছে এসেছে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য আজ থেকে অভিযান পরিচালনা করব।

এই বিভাগের আরও খবর