শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ জুন, ২০২১ ১৯:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

নাটোরে ফোন করলেই ১০ মিনিটের মধ্যে বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে পুলিশ

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোরে ফোন করলেই ১০ মিনিটের মধ্যে বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে পুলিশ
নাটোরে ফোন করলেই ১০ মিনিটে মধ্যে বিনামূল্যে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে পুলিশ
Google News

নাটোরে করোনা রোগীদের জন্য বিনামূল্যে অক্সিজেন সেবা চালু করেছে নাটোর জেলা পুলিশ। ০১৩২০-১২৪৫০৩ নম্বরে ফোন করলেই মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে ফোন করলেই ১০ মিনিটের মধ্যে করোনা রোগীদের ঘরে অক্সিজেন পৌঁছে দেবে পুলিশ। নাটোর পৌরসভার মধ্যে করোনা আক্রান্তসহ শ্বাসকষ্টের রোগীদের বাড়িতে পৌঁছে যাবে অক্সিজেন সেবা। এ ছাড়া জেলার যেকোনো স্থানে অক্সিজেন চাইলে দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও পিকআপের মাধ্যমে পৌঁছে দেওয়া হবে।

পৌরসভার পাশাপাশি জেলাজুড়েও মাত্র ১০ মিনিটে বিনামূল্যে করোনাসহ শ্বাসকষ্টে আক্রান্ত রোগীদের জন্য অক্সিজেন সেবা চালু করেছে নাটোর জেলা পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে জেলা পুলিশের এই সেবা চালু করেন রাজশাহী রেঞ্জের ডিআইজি আব্দুল বাতেন।

জানা গেছে, করোনা আক্রান্ত হয়ে যারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে পারছেন না, বাসায় বসে চিকিৎসা নিচ্ছেন শুধু তাদের জন্যই এই সেবা চালু করেছে নাটোর জেলা পুলিশ।

আব্দুল বাতেন জানান, গত ২ সপ্তাহ ধরে নাটোরে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে। হাসপাতালগুলোর শয্যার চেয়ে রোগীর সংখ্যা বেশি। এতে করে নাটোরবাসীর যেন অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যুবরণ না করে সেজন্য অক্সিজেন ব্যাংক স্থাপন করা হলো।

নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেন, নাটোর পৌরসভার মধ্যে ০১৩২০-১২৪৫০৩ নম্বরে ফোন করলেই মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে করোনা আক্রান্তসহ শ্বাসকষ্টের রোগীদের বাড়িতে পৌঁছে যাবে অক্সিজেন সেবা। এ ছাড়া জেলার যে কোনো স্থানে অক্সিজেন চাইলে দুটি অ্যাম্বুলেন্স ও পিকআপের মাধ্যমে পৌঁছে দেওয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, শুধু অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিয়েই দায়িত্ব শেষ করবে না পুলিশের প্রশিক্ষিত টিম। সেইসঙ্গে অক্সিজেন কীভাবে লাগাতে হবে এবং ব্যবহার করতে হবে বুঝিয়ে দেবে পুলিশ। করোনা আক্রান্ত শ্বাসকষ্টের রোগীরা আমাদের কাছে কল করে প্রাথমিকভাবে অক্সিজেন সাপোর্ট পাবেন। তবে চিকিৎসা কিন্তু ডাক্তারের পরামর্শে নিতে হবে। যাদের শ্বাসকষ্ট নেই, তারা কল করবেন না। ডাক্তার যাদের অক্সিজেন দিতে বলেছেন, তারা কল করুন।

পুলিশ সুপার বলেন, পুলিশের একটি বিশেষজ্ঞ টিম ২৪ ঘণ্টা এ সেবা প্রদান করবে। প্রথম পর্যায়ে ২৫০ কিউবি মিটার অক্সিজেন নিয়ে যাত্রা শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে আরও অক্সিজেনের মজুদ করা হবে।

বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের নাটোর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুক্তার হোসেন বলেন, মঙ্গলবার পর্যন্ত জেলায় ১ হাজার ৩২৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী হাসপাতাল ও বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। আর জেলার সরকারি ৬টি হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীর জন্য শয্যা রয়েছে মাত্র ৯০টি। এই পরিস্থিতিতে করোনা আক্রান্তসহ শ্বাসকষ্ট রোগে বিনামূল্যে অক্সিজেন প্রদানে পুলিশ এই উদ্যোগটি প্রশংসা পাওয়ার মতো। নিজের কাজের বাইরে গিয়ে নাটোরের পুলিশ মানবতার পরিচয় দিয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


  

এই বিভাগের আরও খবর