শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ মার্চ, ২০১৯ ২২:৫৫

যোগাযোগ খাতের তিন প্রকল্প

যানজট নিরসনের স্বস্তি এনে দেবে

যোগাযোগ খাতের তিন প্রকল্প

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শনিবার এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দেশের যোগাযোগ খাতের তিনটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেছেন। দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতু, ভুলতার চার লেনের ফ্লাইওভার এবং লতিফপুরের ওভারপাস যানজট নিরসনের পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট রুটগুলোতে দ্রুত যোগাযোগের সুযোগ সৃষ্টি করেছে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে শীতালক্ষ্যার ওপর নির্মিত দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর দৈর্ঘ্য ৩৯৭ দশমিক ৩ মিটার এবং প্রস্থ ১৮.১ মিটার। চার লেনের এ সেতু নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৯৫০ কোটি টাকা। গণভবনে শনিবার এক ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কাঁচপুর সেতু ছাড়াও ভুলতায় চার লেনের ফ্লাইওভার এবং লতিফপুরে ওভারপাস উদ্বোধন করেন। জাপানি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ২০১৬ সালের জানুয়ারিতে দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর কাজ শুরু করে। চলতি বছরের জুনে এ সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও চার মাস আগেই এর কাজ শেষ হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের ভুলতায় ৩৫৩ দশমিক ৩৬ কোটি টাকা ব্যয়ে তিন স্তরে ১ দশমিক ৩ কিলোমিটার চার লেনের ফ্লাইওভার নির্মাণ করা হয়েছে চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের তত্ত্বাবধানে। এই ফ্লাইওভার নির্মাণের ফলে ঢাকা-সিলেটে সড়ক যোগাযোগ সহজ হবে এবং যানজট দূর হবে। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যও গতিশীল হবে। এ ছাড়া ৪৫৬ দশমিক ৩৭ মিটার লতিফপুর ফ্লাইওভার চালুর কারণে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজট কমে যাবে বলেও আশা করা হচ্ছে। প্রকল্প তিনটি বাস্তবায়নের ফলে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-টাঙ্গাইল রুটের সড়ক পথের যাত্রীরা বিরক্তিকর যানজট থেকে রক্ষা পাবেন। বাংলাদেশে প্রকল্প বাস্তবায়নে দীর্ঘসূত্রতা নিয়ম হয়ে দাঁড়ালেও নির্দিষ্ট সময়ের তিন মাসেরও বেশি সময় আগে দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর উদ্বোধন সে অপঐতিহ্যকে দূরে হটাতে সক্ষম হয়েছে। আমরা আশা করব আগামীতে সরকারের যে কোনো প্রকল্প যাতে নির্দিষ্ট সময়ে সম্পন্ন হয় সেদিকে গুরুত্ব দেওয়া হবে। সময়মতো কোনো প্রকল্প বাস্তবায়িত না হলে দায়ী ব্যক্তিদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা হবেÑ আমরা এমনটিও দেখতে চাই।


আপনার মন্তব্য