শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৩ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ মার্চ, ২০২১ ২৩:৩১

নতুন এক বাংলাদেশ

আত্মসন্তুষ্টি নয় আরও এগোতে হবে

বাংলাদেশের স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির মাত্র এক পক্ষকাল আগে দুনিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী দেশ যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী পত্রিকা নিউইয়র্ক টাইমসে বলা হয়েছে, দারিদ্র্য বিমোচনে প্রেসিডেন্ট বাইডেনের সামনে বাংলাদেশই হতে পারে অনুপ্রেরণা। পত্রিকাটির স্বনামখ্যাত কলামিস্ট নিকোলাস ক্রিস্টফ লিখেছেন, ১৯৯১ সালের ঘূর্ণিঝড়ের পর সংবাদ কভার করেছিলেন তিনি। ১ লাখ মানুষ মারা গিয়েছিল ওই ঘূর্ণিঝড়ে। তাঁর প্রতিবেদনে বাংলাদেশ সম্পর্কে হতাশাই প্রকাশ করেছিলেন। পুলিৎজার পুরস্কারজয়ী এই সাংবাদিক গত বুধবারের নিউইয়র্ক টাইমসে লিখেছেন, ৫০ বছর আগে গণহত্যা ও অনাহারের মধ্যে বাংলাদেশের জন্ম। হেনরি কিসিঞ্জার বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি বলে অভিহিত করেছিলেন। সেই বাংলাদেশ অবিশ্বাস্য উন্নতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ধারাবাহিকভাবে অর্জিত হচ্ছে। বিশ্বব্যাংকের তথ্যানুযায়ী চলমান মহামারীর চার বছর আগে বাংলাদেশের অর্থনীতি ৭ থেকে ৮ শতাংশ বেড়েছে যা চীনের চেয়েও এগিয়ে। বাংলাদেশিদের আয়ু ৭২ বছর, যেটা যুক্তরাষ্ট্রের কিছু এলাকার চেয়েও বেশি। বাংলাদেশ ছিল একসময় হতাশাগ্রস্ত দেশ। এখন কীভাবে উন্নতি করতে হয় বিশ্বকে তারা শেখাতে পারে। বাংলাদেশের এ সাফল্যের জন্য মার্কিন সাংবাদিক শিক্ষা এবং নারী উন্নয়নকে কৃতিত্ব দিয়েছেন। বলেছেন, এখন বাংলাদেশে ৯৮ শতাংশ শিশু প্রাথমিক শিক্ষা পাচ্ছে। লিঙ্গবৈষম্যের একটা দেশে সবচেয়ে অবাক করার বিষয় হলো, উচ্চমাধ্যমিকে ছেলের চেয়ে মেয়ের সংখ্যা বেশি। বাংলাদেশ তাদের মেয়েদের শিক্ষিত করায় এখন তারাই অর্থনীতির স্তম্ভ হয়ে উঠছে। বাংলাদেশ তার অপরিশোধিত সম্পদ বিনিয়োগ করেছে- গরিব ও প্রান্তিক মানুষের জন্য একই বিষয় যুক্তরাষ্ট্রেও সত্য হতে পারে। বাংলাদেশ সম্পর্কে তিন দশক আগে হতাশা প্রকাশকারী একজন মার্কিন সাংবাদিকের এ মূল্যায়ন স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির প্রাক্কালে জাতির জন্য এক বড় অর্জন। তবে এতে আত্মসন্তুষ্টির কোনো সুযোগ থাকা উচিত নয়। বাংলাদেশকে আরও এগোতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদের স্বপ্ন পূরণে নিরলস প্রচেষ্টার কোনো বিকল্প নেই।