শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩৩

আধিপত্যের বিস্তার দ্বন্দ্বে খুন হন সুমন

গ্রেফতার ৫, দুজনের স্বীকারোক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক

আধিপত্যের বিস্তার দ্বন্দ্বে খুন হন সুমন

আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্বে খুন হন সুমন শিকদার (২৫)। তবে টার্গেট করা হয়েছিল রাজধানীর মোহাম্মদপুরের (ডিএনসিসির ৩৩ নম্বর ওয়ার্ড) সাবেক কাউন্সিলর তারেকুজ্জামান রাজীবের সহযোগী শাহ আলম জীবনকে। তাকে না পেয়ে গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন শেষে রাতে একই গ্রুপের লোক হিসেবে পরিচিত সুমনের ওপর হামলা করে ভাত রাসেল ও ইমন গ্রুপের লোকজন। এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে মঙ্গলবার ভোরে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি-পশ্চিম)। এদের মধ্যে দুজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গ্রেফতার পাঁচজন হলেন- রাসেল (২১), আল আমিন খান (২২), ইমরান (১৯), শাকিল (২০) ও রাজীব (২০)। গতকাল ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে আল আমিন খান ও ইমরান স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। ডিবি সূত্র জানিয়েছে, মোহাম্মদপুরের সাবেক কাউন্সিলর রাজীবের সহযোগী ছিলেন শাহ আলম জীবন। তার সঙ্গে বিরোধ ছিল একই এলাকার ভাত রাসেল ও ইমনের। ভাত রাসেল ও ইমনের একসঙ্গে চলফেরা। নির্বাচনের দিন রাতে শাহ আলমকে হত্যার জন্য বের হয় ইমনের লোকজন। ক্লাবে গিয়ে শাহ আলমকে পায়নি তারা। পরে মোহাম্মদপুরের রহিম ব্যাপারীর ঘাট এলাকায় ইমনের লোকজন দেখে দৌড়ে পালানোর সময় সুমনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপায় তারা। গুরুতর আহত অবস্থায় সুমনকে উদ্ধার করে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহতের ভাই রিয়াদ শিকদার বাদী হয়ে মোহাম্মদপুর থানায় একটি মামলা করেন। তবে ঘটনার পর থেকে হোতা ইমন পলাতক রয়েছেন। ডিবি পশ্চিম বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনার (এডিসি) আনিস উদ্দিন জানান, দুই গ্রুপের দ্বন্দ্বের জেরে হত্যাকান্ডটি হয়েছে। শাহ আলম গ্রুপের সঙ্গে ভাত রাসেল ও ইমন গ্রুপের দ্বন্দ্ব ছিল। নির্বাচনের দিনও একটি ভোট কেন্দ্রে শাহ আলম গ্রুপের সুমনের সঙ্গে ভাত রাসেলের কথা কাটাকাটি হয়। এর জের ধরেই সুমনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হত্যায় জড়িত বাকিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত তারা ধরা পড়বে। জানা গেছে, সুমনের বাবা আনোয়ার শিকদার। লালমাটিয়ার ‘এফ’ ব্লকের একটি বাসায় কেয়ারটেকার তিনি। আর রাপা প্লাজায় একটি ডিস সংযোগ প্রতিষ্ঠানে কাজ করতেন সুমন। তাদের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের চর আলেকজেন্ডারে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর