শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৯ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ মার্চ, ২০২০ ২৩:৩০

সেই এসি ল্যান্ড প্রত্যাহার

তিন বয়স্ক নাগরিকের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা ইউএনওর

নিজস্ব প্রতিবেদক, যশোর

তিন বয়স্ক নাগরিকের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা ইউএনওর

যশোরের মণিরামপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) (এসি ল্যান্ড) সাইয়েমা হাসান শুক্রবার যে তিন বয়স্ক নাগরিককে অপমান করেছিলেন, তাদের বাড়িতে গিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন মণিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান উল্লাহ শরিফী। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে তিনি চাল, ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী নিয়ে গতকাল দুপুরে ওই তিনজনের বাড়িতে যান। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর ‘জমি আছে বাড়ি নেই’ প্রকল্পের আওতায় ওই তিনজনকে তিনটি ঘর তৈরি করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দেন তিনি। ইউএনও আহসান উল্লাহ শরিফী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আমি ও মণিরামপুর থানার ওসি দক্ষিণ লাহিড়ী গ্রামের আসমানতুল্লাহ ও বাবর আলী এবং দক্ষিণ শ্যামকুড় গ্রামের নূর আলী গাজীর বাড়িতে যাই। এসি ল্যান্ড কর্তৃক অপমান করার ঘটনায় আমরা ওই তিনজনের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করি।’ ইউএনও বলেন, ‘তাদের সম্মান যেটুকু নষ্ট হয়েছে, তা তো ফেরত দেওয়ার মতো নয়, এর পরও তারা তিনজনই যেহেতু দরিদ্র, প্রধানমন্ত্রীর ‘জমি আছে ঘর নেই’ প্রকল্প থেকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে তাদের ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি আমরা তাদের দিয়েছি। আগামী কয়েক দিন তাদের খাওয়ায় যেন কোনো সমস্যা না হয় সে বিষয়টিও আমরা নিশ্চিত করার চেষ্টা করছি।’ এদিকে এর আগেই মণিরামপুরের এসি ল্যান্ড সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করে খুলনা বিভাগীয় কমিশনার কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে বলে জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, অফিস খোলার পর তদন্ত করে সাইয়েমা হাসানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সাইয়েমা হাসানের স্থলে কাজ করতে যশোরের সিনিয়র সহকারী কমিশনার ও ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা সুফল চন্দ্র গোলদারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, জনসমাগম নিয়ন্ত্রণে শুক্রবার বিকালে মণিরামপুরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় এসি ল্যান্ড সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বাধীন ভ্রাম্যমাণ আদালত। চিনেটোলা বাজারে অভিযানের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে পড়েন তিন বয়স্ক ব্যক্তি। তাদের কারও মুখে মাস্ক ছিল না। পুলিশ তাদের সাইয়েমা হাসানের সামনে হাজির করলে তিনি শাস্তি হিসেবে ওই তিনজনকে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। এ দৃশ্য সাইয়েমা হাসান নিজেই তার মুঠোফোনে ধারণ করেন। শুক্রবার রাতে সেই ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে গেলে মানুষের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়।


আপনার মন্তব্য