শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ২২:৪৩

এক শর্তে ক্ষমতা ছাড়তে রাজি ট্রাম্প

ফিলিস্তিনি কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়ে চমক বাইডেনের

প্রতিদিন ডেস্ক

এক শর্তে ক্ষমতা ছাড়তে রাজি ট্রাম্প

অনেক ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শনের পর অবশেষে নির্বাচনে পরাজিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়তে রাজি হয়েছেন। তবে তিনি একটি শর্ত জুড়ে দিয়েছেন। তা হলো- ইলেকটোরাল কলেজ যদি জো বাইডেনকে নির্বাচিত ঘোষণা বা সার্টিফাই করে, তাহলেই তিনি হোয়াইট হাউস ছাড়বেন। রয়টার্স, বিবিসি, এএফপি। চলতি বছরের ৩ নভেম্বর আমেরিকায় অনুষ্ঠিত হয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এতে ডেমোক্র্যাটিক পার্টি প্রার্থী জো বাইডেন পেয়েছেন ৩০৬ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। আর ট্রাম্প পেয়েছেন ২৩২টি। জিততে হলে প্রয়োজন ২৭০ ইলেকটোরাল কলেজ ভোট। সেখান থেকে ট্রাম্প এখনো বহুদূর। নির্বাচনের আগে থেকেই নানা বিতর্কিত মন্তব্য করে সমালোচনার পাত্র হয়েছেন ট্রাম্প। ভোটের পরও একের পর এক মন্তব্য করে শিরোনামে উঠে আসছেন তিনি। এ অবস্থায় এবার তিনি ঘোষণা দিলেন, ইলেকটোরাল কলেজ যদি জো বাইডেনকে নির্বাচিত করে তাহলে তিনি হার স্বীকার করে নেবেন। তিনি জানান, ‘যতদিন না সেটা হচ্ছে, আইনি লড়াই তিনি ছাড়বেন না।’ এ বিষয়ে গতকাল সাংবাদিকদের করা প্রশ্ন, ‘আপনি কি আদৌ হোয়াইট হাউস ছাড়বেন?’-এর জবাবে ট্রাম্প বলেন, ‘হেরে গেলে অবশ্যই ছেড়ে দেব। তবে ইলেকটোরাল কলেজ যদি বাইডেনকে জেতায় তাহলে তারা ভুল করবে।’ একই সঙ্গে তিনি ইঙ্গিত দেন, তা হলে তিনি সেটা কষ্ট হলেও মেনে নেবেন।

প্রথম ফিলিস্তিনি কর্মকর্তা নিয়োগ দিচ্ছেন বাইডেন : আমেরিকার প্রশাসনে একের পর এক ইতিহাসের জন্ম দিয়ে চলেছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এবার আরও একটি ইতিহাসের সৃষ্টি করতে যাচ্ছেন তিনি। প্রথমবারের মতো কোনো ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক হোয়াইট হাউসে কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ পাচ্ছেন। তার নাম রিমা দোদি। তিনি নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের দীর্ঘদিনের সহকারী। তাকে এবার হোয়াইট হাউসের আইন প্রণয়নবিষয়ক উপ-পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিচ্ছেন বাইডেন। মিডলইস্ট মনিটর, হারেৎস ও ওয়াফা বার্তা সংস্থা জানায়, ইসরায়েল অধিকৃত ফিলিস্তিনের হেবরন শহরের দুরা এলাকায় জন্ম রিমা দোদির। তিনি ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করার পর ইলিয়ন বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর পড়াশোনা শেষ করেন। ১৪ বছর ধরে তিনি ইলিয়নের সিনেটর ডিক দুরবিনের সহকারী হিসেবে কাজ করে আসছেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর