শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৪ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ জুন, ২০২১ ০০:২২

শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞ আসাম

নয়াদিল্লি প্রতিনিধি

শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞ আসাম
Google News

আসামের মানুষ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞ। কারণ তাঁর উগ্রপন্থিবিরোধী নীতির জন্যই আসাম আজ চরমপন্থা মুক্ত। আসামের নবনির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা দিল্লির ‘ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’ পত্রিকা আয়োজিত ‘ই-আড্ডা’ বার্তালাপে এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, অদূর ভবিষ্যতে তিনি বাংলাদেশ সফর  করতে চান। বাংলাদেশের সঙ্গে উন্নয়নমূলক আর্থিক প্রকল্প বাস্তবায়ন করার পরিকল্পনা তার সরকারের রয়েছে। কভিড পরিস্থিতির উন্নতি হলেই তিনি ঢাকা সফরে যাবেন। হিমন্ত বিশ্বশর্মা আসামের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অভিনন্দন বার্তা পাঠান এবং বাংলাদেশের ক্রমাগত আর্থিক প্রগতিকে কাজে লাগিয়ে উন্নয়নমূলক প্রকল্প বাস্তবায়নেরর প্রস্তাব দেন। বিশ্বশর্মা বুধবার দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর প্রথম সাক্ষাৎ করেন। এ সময়ে তিনি বার্তালাপে বহু প্রশ্নের জবাব দেন। তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশেষভাবে কৃতজ্ঞ। তিনি উলফা জঙ্গিদের ভারতের হাতে তুলে দেওয়ায় আজ আসাম বিচ্ছিন্নতাবাদ চরমপন্থা মুক্ত।’ তিনি বলেন, ‘ভারতের উত্তর-পূর্ব স্থলভাগ থেকে বিচ্ছিন্ন বলে বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে ট্রানজিট অত্যন্ত জরুরি। সেজন্যই তিনি বাংলাদেশের সঙ্গে উন্নয়নমূলক সহযোগিতা গড়ে তুলতে চান।’ তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর সম্পূর্ণ ব্যবহার করতে পারলে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দ্বার উন্মুক্ত হবে।’ এ সময়ে তিনি নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) এবং নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখেন। বলেন, ‘এর আগে আসামে যে এনআরসি হয়েছে। তাতে ১৯ লাখ বাদ পড়েছেন। এর জন্য তিনি পুনঃসমীক্ষার দাবি জানিয়েছেন। এদের মধ্যে অনেকেই নাগরিকত্ব ফিরে পাবেন।’ তিনি বলেন, ‘এর পর বিদেশি চিহ্নিতকরণ ট্রাইব্যুনালে সবাই নাগরিকত্বর প্রমাণ দাখিল করতে পারবেন। ট্রাইব্যুনাল বিদেশি বা বাংলাদেশি বলে চিহ্নিত করবে। তাদের বাংলাদশে ফিরতে হবে। মনে হয়, কেন্দ্রীয় সরকার এটা বাংলাদেশ সরকারকে বুঝাতে পারবে।’ তিনি এও বলেন, ‘যতদিন না সেই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হচ্ছে ততদিন সেসব বিদেশির ভোটাধিকার স্থগিত থাকবে। তবে নাগরিক হিসেবে অন্য যেসব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে সেসব পাবেন।’ সিএএ সম্পর্কে বলেন, বর্তমানে কভিড পরিস্থিতির কারণে ওটা বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না।’ ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তিন মাসের বাড়তি সময় পেয়েছে নিয়মাবলি তৈরির জন্য। এই নিয়মাবলি তৈরি হলেই সিএএ বহাল করা হবে।