শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ মে, ২০২০ ০৯:৫০
আপডেট : ২২ মে, ২০২০ ১৩:১৮
প্রিন্ট করুন printer

উত্তেজনার আগুনে ঘি ঢাললো যুক্তরাষ্ট্র, শেয়ারবাজার থেকে চীনা কোম্পানিগুলো বাদ দিতে নতুন আইন

অনলাইন ডেস্ক

উত্তেজনার আগুনে ঘি ঢাললো যুক্তরাষ্ট্র, শেয়ারবাজার থেকে চীনা কোম্পানিগুলো বাদ দিতে নতুন আইন

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বাণিজ্যযুদ্ধ যখন চরমে তখন হানা দেয় করোনাভাইরাস। এই ভাইরাস চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এটিকে ‘চীনা ভাইরাস’ হিসেবে আখ্যা দেন। এতে উত্তেজনা আরও বেড়ে যায়।

মার্কিন প্রশাসন এখনও করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পেছনে চীনকে দায়ী করে আসছে। ফলে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যকার উত্তেজনা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

এমন অবস্থায় সেই উত্তেজনার আগুনে ঘি ঢাললো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। চীনের কোম্পানিগুলোকে দেশটির শেয়ারবাজার থেকে বাদ দিতে নতুন আইন পাশ করেছে। বুধবার মার্কিন সিনেটে এই সর্বসম্মতভাবে পাশ হয়। এর ফলে চীনের বহুজাতিক টেক-জায়ান্ট আলিবাবা গ্রুপ হোল্ডিং লিমিটেড ও বাইডু ইন্টারনেটের মতো বড় বড় কোম্পানিগুলো যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজার থেকে বাদ পড়তে পারে।

লুসিয়ানার রিপাবলিকান সিনেটর জন কেনেডি ও ম্যারিল্যান্ডের ডেমোক্র্যাট সিনেটর ক্রিস ভান হোলেন মার্কিন সিনেটে এই আইন উত্থাপন করেন, যা সর্বসম্মতভাবে পাশ হয়। 

সিনেটে পাশ হওয়ায় বিলটি এখন হাউস রিপ্রেজেনটেটিভে যাবে। সেখানে পাশ হওয়ার পর প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এতে স্বাক্ষর করলে তা কার্যকর হবে। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও শীর্ষ মার্কিন নেতারা বরাবরই বেইজিংয়ের ভূমিকা নিয়ে সমালোচনা করে আসছিলেন। সেই ধারাবাহিকতাতেই নতুন বিলটি এল বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

নতুন আইনে বলা হচ্ছে, শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোকে স্পষ্ট করে জানাতে হবে, তারা বিদেশি সরকারের মালিকানাধীন বা নিয়ন্ত্রিত কি না। সূত্র: ব্লুমবার্গ

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:৩২
প্রিন্ট করুন printer

স্ত্রী ছেড়ে যাওয়ার পর ১৮ নারীকে খুন, পুলিশের জালে সিরিয়াল কিলার

অনলাইন ডেস্ক

স্ত্রী ছেড়ে যাওয়ার পর ১৮ নারীকে খুন, পুলিশের জালে সিরিয়াল কিলার
প্রতীকী ছবি

একজন বা দুজন নয়, মোট ১৬ জন নারীকে খুনের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। তা সত্ত্বেও জেলের বাইরে অবাধে ঘুরছিলেন এক সিরিয়াল কিলার। এমনকি তারপরেও দুজন নারীকে খুন করার অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। অবশেষে ভারতের হায়দরাবাদের সেই সিরিয়াল কিলারকে এবার গ্রেফতার করল পুলিশ।

মঙ্গলবার মাইনা রামুলু নামের ৪৫ বছর বয়সি ওই সিরিয়াল কিলারকে গ্রেফতার করা হয়। তার বিরুদ্ধে এর আগে ২১টি মামলা ঝুলছিল, যার মধ্যে ১৬টি খুনের মামলা, ৪টি সম্পত্তি সংক্রান্ত জালিয়াতি এবং পুলিশের হাত ছাড়িয়ে পালিয়ে যাওয়ার মতো মামলাও ছিল।

যে ১৬টি খুনের মামলা ছিল রামুলুর বিরুদ্ধে, তাতে নিহতেরা সকলেই নারী। সেই মামলায় আদালতে দোষী সাব্যস্ত হয় রামুলু। তারপরেও তেলঙ্গানা হাইকোর্টে আবেদন জানিয়ে জেলের বাইরে বেরিয়ে আসেন তিনি।

সম্প্রতি সিদ্দিপেট কমিশানেরেটের অন্তর্গত মুলুগু থানা এবং গটকেশ্বর থানায় দাখিল হওয়া ২টি খুনের মামলায় তার নাম উঠে আসে। তাতেই তাকে গ্রেফতার করা হয়।

হায়দরাবাদ সিটি পুলিশের কমিশনার অঞ্জনি কুমার জানান, ৩০ ডিসেম্বর সকাল থেকে স্ত্রী নিখোঁজ বলে গত ১ জানুয়ারি এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন। তল্লাশি চলাকালীন ৪ জানুয়ারি রেললাইনের কাছ থেকে ওই নারীর দেহ উদ্ধার হয়। তার আগে সাইবারাবাদের বলানগরেও এক নারীর দেহ উদ্ধার হয়েছিল। সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখা যায়, ২টি ঘটনাতেই রামুলুর যুক্ত থাকার খবর মেলে। তারপর তার তল্লাশি শুরু হয়।

অঞ্জনি কুমার আরও জানান, আদতে সাঙ্গা জেলার আরুতলা গ্রামের বাসিন্দা রামুলু ২১ বছর বয়সে বাবা-মায়ের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করেন। কিন্তু বিয়ের পর কয়েক দিন পেরোতে না পেরোতেই স্ত্রী অন্য পুরুষের সঙ্গে পালিয়ে যায়। সেই থেকেই নারীদের প্রতি তার মনে বিদ্বেষ জন্ম নেয়।

যৌন সম্পর্ক স্থাপন করে নারীদের খুশি করার টোপ দিতেন তিনি। তারপর নেশা করিয়ে ওই নারীদের খুন করতেন। খুন করে নিহতদের টাকা, গয়না এবং মূল্যবান জিনিসও তিনি আত্মসাৎ করতেন বলে অভিযোগ। ওই ১৮ জন ছাড়াও রামুলু আর কোনো খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে কি না, তা জানতে তদন্ত শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সূত্র : আনন্দবাজার

বিডি প্রতিদিন/এমআই


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:০০
আপডেট : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৬:৩১
প্রিন্ট করুন printer

ভ্যাকসিন আপনাদের জীবন রক্ষা করবে: কমলা হ্যারিস

অনলাইন ডেস্ক

ভ্যাকসিন আপনাদের জীবন রক্ষা করবে: কমলা হ্যারিস

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস করোনাভাইরাস প্রতিরোধে তৈরি ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন। মঙ্গলবার দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থায় (এনআইএইচ) ভাইরাসটির ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন তিনি। এ সময় কমলা মার্কিন নাগরিকদের করোনার প্রতিষেধক গ্রহণে তৎপর হওয়ার নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

তার ভ্যাকসিন গ্রহণ টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়েছে। এসময় তিনি বলেন, সবাইকে আমি ভ্যাকসিন নেয়ার অনুরোধ করছি। এটি আপনাদের জীবন রক্ষা করবে।

জানা যায়, করোনা ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজটি গত ২৯ ডিসেম্বর গ্রহণ করেছিলেন কমলা।

নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনও মার্কিন নাগরিকদের ভ্যাকসিন প্রদানে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। তিনি তার প্রথম ১০০ কার্দিবিসের মধ্যেই ১০ কোটি নাগরিককে ভ্যাকসিন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৩০
আপডেট : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৫:৫৩
প্রিন্ট করুন printer

শর্তসাপেক্ষে ১২ সপ্তাহ পরেও গর্ভপাত ঘটাতে পারবেন নারীরা!

অনলাইন প্রতিবেদক

শর্তসাপেক্ষে ১২ সপ্তাহ পরেও গর্ভপাত ঘটাতে পারবেন নারীরা!

থাইল্যান্ডে শর্তসাপেক্ষে গর্ভধারণের ১২ সপ্তাহ পরেও গর্ভপাত ঘটাতে পারবেন নারীরা। এই শর্তগুলো হলো- ভ্রূণের ক্ষতির আশঙ্কা, মায়ের জীবনের ঝুঁকি, গর্ভাবস্থায় ধর্ষণ ও প্রতারণার শিকার নারীরা কেবলমাত্র গর্ভপাত ঘটাতে পারবেন।

গত সোমবার রাতে অনুষ্ঠিত সিনেটের এক অধিবেশনে দেশটির আইন প্রণেতারা গর্ভাবস্থার প্রথম সপ্তাহ থেকে ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত গর্ভপাতের অনুমতি দেওয়ার পক্ষে ভোট দিয়েছেন। আর এরপরে গর্ভপাত করলে ৬ মাসের জেল বা ১০ হাজার বাথ (৩৩৪ ইউএস ডলার) জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করার বিধান রেখে আইন পাস করে।

এ ব্যাপারে সিনেটর ওয়ানলপ তংখানানুরাক বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘১২ সপ্তাহের পরে গর্ভপাতের প্রয়োজন হলে নির্দিষ্ট চিকিৎসকের মাধ্যমে করাতে পারবেন। তবে এর ব্যত্যয় হলে জরিমানা গুনতে হবে।

নতুন আইনে বলা হয়েছে, যদি গর্ভকালীন ভ্রূণের দুর্বলতা, মায়ের জীবনের ঝুঁকি, গর্ভাবস্থায় ধর্ষণ ও প্রতারণার শিকার নারীরা চিকিৎসকের মাধ্যমে গর্ভপাত করাতে পারবেন। এর ব্যত্যয় হলে ৬ মাসের কারাদণ্ড বা ১০ হাজার বাথ (৩৩৪ ইউএস ডলার) জরিমানা অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত করা হবে।

অন্যদিকে, নতুন এই গর্ভপাত আইনের বিরোধীতাকারীরা বলেন, এটি নারীর মর্যাদাকে কলঙ্কিত করবে। পাশাপাশি এটি নারীর অধিকারকেও ক্ষুণ্ণ করবে। তাই অবিলম্বে এই আইনের জরিমানার বিষয়টি বাতিল করতে হবে। সূত্র: সিএনএন

বিডি প্রতিদিন/অন্তরা/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৪:০৮
প্রিন্ট করুন printer

এবার সামারায় মার্কিন সেনাবহরে বোমা হামলা

অনলাইন ডেস্ক

এবার সামারায় মার্কিন সেনাবহরে বোমা হামলা

ইরাকে মোতায়েন মার্কিন সেনাবাহিনীর ওপর আবারও হামলা হয়েছে। ইরাকের উত্তরাঞ্চলীয় সালাহাউদ্দিন প্রদেশের সামারা শহরে মার্কিন সেনাদের একটি বহরের ওপর মঙ্গলবার ওই হামলা হয়।

ইরাকের গণমাধ্যম জানিয়েছে, সামারা শহরের কাছে বোমার সাহায্যে মার্কিন সেনাবহরে হামলা চালানো হয় তবে এ ঘটনায় হতাহত বা ক্ষয়ক্ষয়তির কোনও তথ্য জানায়নি ইরাকি গণমাধ্যম।

এর একদিন আগে জিকার প্রদেশের নাসিরিয়া শহরে মার্কিন একটি রসদবাহী বহরে বোমা হামলা হয়। তার আগে, অল্প কয়েকদিনের ব্যবধানে মার্কিন সামরিক বহরে কয়েক দফা হামলা হয়েছে।

গত বছরের ৩ জানুয়ারি ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র কুদস ফোর্সের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কাসেম সোলাইমানি ও ইরাকের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন হাশদ আশ-শাবির সেকেন্ড-ইন-কমান্ড আবু মাহদি আল-মুহান্দিসেক মার্কিন সন্ত্রাসী বাহিনী ড্রোন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে হত্যা করে। এরপর ইরাকে মার্কিন সেনাদের বিরুদ্ধে তীব্র জনরোষ তৈরি হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ১৩:৫৬
প্রিন্ট করুন printer

ক্যাপিটলে হামলার আগে ন্যাশনাল গার্ড কমান্ডারের ক্ষমতা সীমাবদ্ধ করেছিলেন ট্রাম্প

অনলাইন ডেস্ক

ক্যাপিটলে হামলার আগে ন্যাশনাল গার্ড কমান্ডারের ক্ষমতা সীমাবদ্ধ করেছিলেন ট্রাম্প

মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের শপথ গ্রহণের কয়েকদিন আগে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উগ্রবাদী সমর্থকরা ক্যাপিটল ভবনে যে হামলা চালায় তার আগে ওয়াশিংটনের ন্যাশনাল গার্ড কমান্ডারের কর্তৃত্ব অনেকটা খর্ব করা হয়।

দৈনিক ওয়াশিংটন পোস্টকে একথা বলেছেন ওয়াশিংটন ডিসি ন্যাশনাল গার্ডের কমান্ডিং জেনারেল উইলিয়াম ওয়াকার। তিনি বলেন, মার্কিন সেনা সদরদফতর পেন্টাগন তার ওপরে এই সীমাবদ্ধতা আরোপ করে।

মেজর জেনারেল উয়িলিয়াম ওয়াকার বলেন, “সব সেনা কমান্ডারের সাধারণত জনজীবন ও রাষ্ট্রীয় সম্পদ রক্ষার জন্য তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার কর্তৃত্ব থাকে। কিন্তু এবারের এই ঘটনায় আমার কোনও কর্তৃত্ব ছিল না।”

গত গ্রীষ্মে আমেরিকায় যে ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ নামের আন্দোলন হয়েছে তা শক্ত হাতে দমন করেছে মার্কিন সেনারা; এমনকি জরুরি মুহূর্তে তারা অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে পেরেছে। কিন্তু জুনের পর থেকে এই কর্তৃত্ব প্রতিরক্ষামন্ত্রীর কার্যালয়ে নিয়ে নেওয়া হয়।

জেনারেল ওয়াকার বলেন, “যেকোনও সময় আমরা শহরে সেনা ও ন্যাশনাল গার্ডের সদস্যদের মোতায়েন করতে পারতাম কিন্তু এবার তা সম্ভব হয়নি।”

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর