শিরোনাম
প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১২:১৪
প্রিন্ট করুন printer

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফোনালাপ

অনলাইন ডেস্ক

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ফোনালাপ
অ্যান্থনি ব্লিংকেন (বামে) ও প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল-সৌদ

সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল-সৌদের সঙ্গে ফোনালাপ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকেন। এ সময় তারা ইয়েমেন যুদ্ধের অবসানে কূটনৈতিক চেষ্টা নিয়ে কথা বলেন। খবর রয়টার্সের।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, বুধবার তাদের এই আলোচনায় সৌদির প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জোরদারের বিষয়েও কথা হয়েছে।

ইয়েমেন যুদ্ধের একটি আলোচিত রাজনৈতিক পথ খুঁজে বের করতে পরিকল্পিত কূটনৈতিক চেষ্টা নিয়েও তারা কথা বলেন।

এছাড়া সৌদির বিরুদ্ধে যে কোনও হামলা প্রতিরোধের বিষয়টিও তাদের আলোচনায় ছিল।

এদিকে বুধবার রিয়াদে জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্রের ইয়েমেন বিষয়ক বিশেষ দূত মার্টিন গ্রিফিথস ও টিমথি লিন্ডারকিংকে স্বাগত জানিয়েছেন সৌদি আরবের উপ-প্রতিরক্ষামন্ত্রী প্রিন্স খালিদ বিন সালমান ।

এ সময় তারা ইয়েমেন পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। সৌদি আরবের নিরাপত্তার ক্ষেত্রে কোনও আপস করতে না চাওয়ায় দুই দূতকে ধন্যবাদ দিয়েছেন প্রিন্স খালিদ।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:২৪
প্রিন্ট করুন printer

‘আমেরিকার আচরণের জন্যই ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে দূরে সরে গেছে’

অনলাইন ডেস্ক

‘আমেরিকার আচরণের জন্যই ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে দূরে সরে গেছে’

আমেরিকার আচরণের জন্যই ইরান পরমাণু সমঝোতা থেকে দূরে সরে গেছে বলে জানিয়েছেন ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাওয়াদ জারিফ।

তিনি বলেছেন,মার্কিন সরকারের বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের কারণেই ইরান পরমাণু সমঝোতা বাস্তবায়নের কিছু ধারা স্থগিত করতে বাধ্য হয়েছে।

একইসঙ্গে বর্তমান অচলাবস্থা নিরসনের জন্য ইরানের ওপর থেকে অবৈধ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের আহ্বান জানান তিনি। 

জারিফ বলেন, আমেরিকা যখন পরমাণু সমঝোতা থেকে বেরিয়ে গেছে তখন ইরানও পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবে প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের ধারা স্থগিত রেখেছে। কিন্তু এই অচলাবস্থা যে কারণে সৃষ্টি হয়েছে তা এখনও নিরসন করেনি আমেরিকা।

জাওয়াদ জারিফ সুস্পষ্ট করে বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকা বেরিয়ে গেলে ইউরোপের তিন দেশ তাকে অনুসরণ করে নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নের পথে হেঁটেছে এবং তারা ইরানের সঙ্গে ব্যবসায়িক সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। এ অবস্থায় জাওয়াদ জারিফ আমেরিকা এবং ইউরোপের তিন দেশকে পরামর্শ দিয়ে বলেন, পরমাণু সমঝোতা ইস্যুতে যে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে তা নিরসনের জন্য এসব দেশকে কার্যকর ভূমিকা নিতে হবে এবং তেহরানের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করতে হবে। তাহলে ইরানের পক্ষে পরমাণু সমঝোতার আওতায় সহযোগিতার ধারাগুলো আবার বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:১৯
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৯:২১
প্রিন্ট করুন printer

ক্ষমতা গ্রহণের এক মাসেই বিমান হামলা চালানোর নির্দেশ বাইডেনের

অনলাইন ডেস্ক

ক্ষমতা গ্রহণের এক মাসেই বিমান হামলা চালানোর নির্দেশ বাইডেনের
জো বাইডেন

ক্ষমতা গ্রহণের এক মাস পরই বিমান হামলা পরিচালনার নির্দেশ দিলেন মার্কিন নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। গত ২০ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের মসনদে বসেন বাইডেন। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে ক্ষমতায় আসেন এই ডেমোক্র্যাটিক নেতা। খবর সিএনএন’র।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিরিয়ায় ইরান সমর্থিত দুটি মিলিশিয়া গ্রুপের ঘাঁটিতে বিমান হামলার নির্দেশ দিয়েছেন বাইডেন। মার্কিন মসনদে বসার পর যুদ্ধ পরিচালনার জন্য এটিই তার প্রথম নির্দেশ। 

জানা গেছে, নির্দেশের পর এরই মধ্যে ইরান সমর্থিত মিলিশিয়া গ্রুপের দুটি ঘাঁটিতে বিমান চালিয়েছে মার্কিন বাহিনী।

প্রতিবেদনে বলা  হয়েছে, গত সপ্তাহে মার্কিন বাহিনীর ওপর রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। ওই হামলা ইরান সমর্থিত এই মিলিশিয়া গ্রুপ দুটি চালিয়েছে বলে দাবি মার্কিন বাহিনীর। তবে এর পক্ষে জোরালো কোনও প্রমাণ নেই তাদের।

পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কির্বি বলেছেন, এই হামলাগুলো প্রেসিডেন্ট বাইডেনের নির্দেশেই হয়েছে। এটি শুধু আমেরিকান ও জোট বাহিনীর বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক হামলার প্রতিক্রিয়া জানাতে নয়। বরং এই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে চলমান হুমকি মোকাবেলা করার জন্যও কর্তৃপক্ষ এই হামলার অনুমোদন দিয়েছে।

কির্বি বলেন, জোটের শরিকদের-সহ মার্কিন মিত্রদের সাথে পরামর্শ করে বাইডেন এই হামলা পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছেন।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৮:০৫
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৮:১০
প্রিন্ট করুন printer

চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ, সৌদি যুবরাজ নিয়ন্ত্রণাধীন বিমানে উড়ে গিয়েছিল খাশোগির ঘাতকদল

অনলাইন ডেস্ক

চাঞ্চল্যকর তথ্য প্রকাশ, সৌদি যুবরাজ নিয়ন্ত্রণাধীন বিমানে উড়ে গিয়েছিল খাশোগির ঘাতকদল

সৌদি আরবের প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাশোগির হত্যাকারী দল যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নিয়ন্ত্রণাধীন একটি কোম্পানরি প্রাইভেট বিমানে করে তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহর শহরে উড়ে গিয়েছিল। 

সৌদি সরকারের গোপন নথি থেকে এ তথ্য জানা গেছে। খবর সিএনএন’র।

‘টপ সিক্রেট’ শিরোনামের এ নথিতে সৌদি আরবের একজন মন্ত্রীর সই রয়েছে। 

জানা গেছে, স্কাই প্রাইম অ্যাভিয়েশনের মালিকানা ২০১৭ সালে সৌদি আরবের সরকারি বিনিয়োগ তহবিলের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে, যাতে সার্বভৌম ৪০০ কোটি ডলারের তহবিল রয়েছে। এই কোম্পানির বিমান ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে খাশোগি হত্যায় ব্যবহৃত হয়েছে। 

সার্বভৌম তহবিল নিয়ন্ত্রিত হয় সৌদি রাজ পরিবারের মাধ্যমে, যার সভাপতি হলেন ৩৫ বছর বয়সী যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমান। সিএনএন বলেছে, এসব তথ্য থেকে খাশোগি হত্যায় এমবিএস’র যুক্ত থাকার প্রমাণ মেলে। এমবিএস হচ্ছে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মাদ বিন সালমানের নামের সংক্ষিপ্ত রূপ।

বিডি প্রতিদিন/কালাম


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৬:৩৮
আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১০:১৯
প্রিন্ট করুন printer

উত্তাল মিয়ানমার, সেনাবাহিনীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক

উত্তাল মিয়ানমার, সেনাবাহিনীর ফেসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ

সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলের পর থেকেই উত্তাল মিয়ানমার। দেশটিতে গত কয়েক সপ্তাহের বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত তিনজন আন্দোলনকারী এবং একজন পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। এমন পরিস্থিতিতে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক। সংস্থাটির পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার নিশ্চিত করা হয়েছে।

ফেসবুকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আমরা বিশ্বাস করি মিয়ানমার সেনাবাহিনী ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামে থাকার অনুমতি দেয়া হলে তা হবে বেশ ঝুঁকিপূর্ণ।

২০২০ সালের মিয়ানমার নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ ফেসবুকের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে চেয়েছিলো মিয়ানমার সেনাবাহিনী।


বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৫:৫৭
প্রিন্ট করুন printer

এবার ধর্ষণ মামলায় বিপাকে ট্রাম্প!

অনলাইন ডেস্ক

এবার ধর্ষণ মামলায় বিপাকে ট্রাম্প!

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিপদ যেন পিছু ছাড়ছে না। সিনেটে অভিশংসনের হাত থেকে রক্ষা পেলেও সুপ্রিম কোর্টে আয়কর রিটার্নের মামলায় হেরে গেছেন। এবার ধর্ষণ মামলায়ও তাকে আদালতে যেতে হচ্ছে। লেখিকা ই জিন ক্যারোলের করা ধর্ষণ মামলায় ট্রাম্পকে আদালতে গিয়ে জবাব দিতে হবে। ব্রিটিশ পত্রিকা দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট এমনটাই জানিয়েছে।

ক্যারোলের আইনজীবীরা মামলাটি পুনরায় সচল করতে জোর তত্পরতা শুরু করছেন। ১৯৯০-এর দশকে নিউ ইয়র্কের ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে ট্রাম্প কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন ক্যারোল। ২০১৯ সালের নভেম্বরে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে এ নিয়ে মানহানির মামলা করেছিলেন ক্যারোল।

তখন ট্রাম্প এই তথ্যকে মিথ্যা দাবি করেছিলেন। আর তার আইনজীবীরা দাবি করেছিলেন, প্রেসিডেন্ট হওয়ায় ট্রাম্প এসব অভিযোগ থেকে মুক্ত। কিন্তু এখন ট্রাম্প আর প্রেসিডেন্ট পদে নেই। তাই ক্যারোলের আইনজীবীরা জানিয়েছেন, তারা শিগগিরই এ নিয়ে জোর তত্পরতা শুরু করছেন। এমনকি ক্যারোলের সেই পোশাক ও ট্রাম্পের ডিএনএ পরীক্ষা করারও দাবি করেছেন আইনজীবীরা। ক্যারোল সেই পোশাক এখনো সংরক্ষিত রেখেছেন।

 

বিডি প্রতিদিন/ ওয়াসিফ


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর