শিরোনাম
সোমবার, ১ জানুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

নতুন বছরকে প্রথম বরণ করল টোঙ্গাবাসী

বাংলাদেশি সময় ঘড়িতে তখন ঠিক দুপুর গড়িয়ে বিকাল ৪টা। প্যাসিফিক আইল্যান্ড অব টোঙ্গায় তখনই ফাটে বাজি। আলোর রোশনাইয়ে ঢেকেছে আকাশ। টোঙ্গার পর একে একে প্যাসিফিকের সামোয়া এবং কিরিবাটিতেও নতুন বছরকে স্বাগত জানানো হলো ধুমধাম করে। ইতোমধ্যেই নতুন বছরকে স্বাগত জানিয়েছে নিউজিল্যান্ডও। সে দেশের অকল্যান্ড শহরের বাসিন্দারা সাড়ম্বরে পালন করছেন খ্রিস্টীয় নববর্ষ। আকাশে দেখা যাচ্ছে আতশবাজির রোশনাই। একের পর এক বাজি ফাটছে। নিউজিল্যান্ডের উচ্চতম স্কাই টাওয়ারকে সাজিয়ে তোলা হয় বর্ণিল সাজে। এদিকে নতুন বছরকে বরণ করে নিতে অস্ট্রেলিয়ার প্রধান শহর সিডনিতে জড়ো হয় লাখো মানুষ। নতুন বছরকে বরণ করে নিতে এখানে প্রতি বছর অনেক মানুষ জড়ো হয়। নতুন বছরকে বরণ করে নিতে সিডনির হারবর ব্রিজ এবং ওপেরা হাউজ আট টন আতশবাজি দিয়ে সাজানো হয়। সবশেষে বর্ষবরণ করবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সংলগ্ন বাকের দ্বীপপুঞ্জ। পয়লা জানুয়ারি বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬ টা নাগাদ নতুন বছরকে স্বাগত জানাবে ওই দ্বীপের বাসিন্দারা। গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ১ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে পালিত হয় নিউ ইয়ার। মধ্যরাতে ১২টা বাজলেই শুরু হয়ে যায় উৎসব।

অস্ট্রেলিয়া, জাপানের পর দক্ষিণ কোরিয়া, উত্তর কোরিয়া নতুন বছর সেলিব্রেট করে বাংলাদেশি সময় রাত ৯ টায়। এরপর রাত ১০টায় নিউ ইয়ার হয় চীন, ফিলিপাইন এবং সিঙ্গাপুরে।

সর্বশেষ খবর