শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:২৪

একদলীয় শাসনের দিকে দেশ

মাহফুজুল হক, মহাসচিব, খেলাফত মজলিস

একদলীয় শাসনের দিকে দেশ

বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, রাজনৈতিকভাবে একদলীয় শাসনের দিকে যাচ্ছে দেশ; যা হতাশাজনক। এ ক্ষেত্রে সরকারের পাশাপাশি বিরোধী দলগুলোও দায় এড়াতে পারে না। দেশ অন্ধকারাচ্ছন্ন রাজনৈতিক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে চলছে। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে এ কথা বলেন তিনি। সংগঠন প্রসঙ্গে মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, দলের কার্যক্রম নিয়মতান্ত্রিকভাবে এগিয়ে চলছে। আমিরে মজলিস প্রিন্সিপাল আল্লামা হাবীবুর রহমানের ইন্তেকালের পর মাওলানা ইসমাঈল নূরপুরীকে আমির নির্বাচিত করে সংগঠন চলছে। বিভিন্ন জেলা-উপজেলা পর্যায়ে নতুন সেশনের কমিটি পুনর্গঠনের কাজ চলছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেন, আমরা অনেকটা সংবাদমাধ্যম-নির্ভর। একতরফা নির্বাচনের মধ্য দিয়েই সরকার বৈতরণী পার করেছে। সাজানো বিরোধী দল গঠন করে সরকার গঠন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেছে। এ নির্বাচনকে কোনোভাবেই নিরপেক্ষ বলার সুযোগ নেই। ইসলামী দলগুলো প্রসঙ্গে মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, বাস্তবতা হলো একের পর এক ইসলামী সংগঠনগুলোর মূল নেতৃত্বের ইন্তেকালের কারণে দলগুলো প্রায় যোগ্য ও অভিজ্ঞ নেতৃত্বশূন্য। তবু আমরা আশাবাদী এবং ঐক্যপ্রয়াসী। শায়খুল হাদিস আল্লামা আজিজুল হক ইসলামী ঐক্যজোট গঠন করেন। তার নেতৃত্বে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করেছেন। এখনো আমরা বিভিন্ন ইস্যুতে এক হই, কিছু কিছু কর্মসূচি পালন করি। নির্বাচনের পর ইসলামী দলগুলোর কর্মকাণ্ড নেই এমনটি নয়। কমবেশি সবার কার্যক্রম চলছে। ইসলামী দলগুলোর কার্যক্রমও জাতীয় রাজনীতির ওপর অনেকটা নির্ভরশীল। বাস্তবতা হলো পুরো রাজনৈতিক অঙ্গনই অস্থিরতার মধ্য দিয়ে চলছে। চলমান উপজেলা নির্বাচন প্রসঙ্গে মাওলানা মাহফুজুল হক বলেন, উপজেলা নির্বাচন মূলত ক্ষমতাসীন দল নিয়েই হচ্ছে। তারা নিজেরাই নিজেদের বিরুদ্ধে লড়ছে। এখানে জাতীয় নির্বাচনের অবস্থা বিবেচনা করে অন্যান্য রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেনি। ফলে উপজেলা নির্বাচনের স্বচ্ছতা-অস্বচ্ছতা নিয়ে সাধারণ মানুষের তেমন আগ্রহ নেই। সামগ্রিকভাবে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে- জানতে চাইলে মাহফুজুল হক বলেন, দেশের বিভিন্ন দিকে উন্নয়ন হচ্ছে। কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনা, বিভিন্ন স্থানে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দগ্ধ হয়ে মানুষের মৃত্যুতে জনগণ আতঙ্কে আছে। অন্যদিকে হত্যা, ধর্ষণের সংবাদ তো প্রতিনিয়তই পাওয়া যাচ্ছে। দেশে আইন আছে কিন্তু প্রয়োগ নেই।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর