শিরোনাম
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

হাসপাতালে রাশিয়ান তরুণীর শ্লীলতাহানি ওয়ার্ড বয় কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক

রাজধানীর কল্যাণপুর ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক রাশিয়ান কিশোরীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত হাসপাতালের ওয়ার্ডবয় আবুল কাশেমকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। পুলিশের জেরার মুখে আবুল কাশেম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। ঘটনাটি গত ৮ ফেব্রুয়ারির। মিরপুর থানায় মামলাটি হয়েছে ১৩ ফেব্রুয়ারি। ঢাকা মহানগর পুলিশের মিরপুর জোনের সহকারী কমিশনার (এসি) হাসান মুহাম্মদ মুহতারিম বলেন, প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। হাসপাতালে তার সঙ্গে অপ্রীতিকর ঘটনার অভিযোগ পাওয়ার পরপরই দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয় পুলিশ। জানা গেছে, এ ঘটনায় গত ১৩ ফেব্রুয়ারি মিরপুর থানায় মামলা হয়। এরপর ওই রাতেই ফরিদপুরের মধুখালী থেকে অভিযুক্ত ওয়ার্ডবয়কে গ্রেফতার করা হয়। এসি হাসান বলেন, কিশোরীর মা রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কর্মকর্তা। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কর্মরত রাশিয়ান নাগরিকদের চিকিৎসা সম্পর্কিত চুক্তি রয়েছে হাসপাতালটির সঙ্গে। প্রথমে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী কিশোরীর মা।

তিনি বলেন, এলার্জিজনিত সংক্রমণের সমস্যায় ভুগছিল তার মেয়ে। এ জন্য তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ৮ ফেব্রুয়ারি রাতে চিকিৎসা সেবার নামে বারবার তার কেবিনে ঢোকেন আবুল কাশেম। তিনি কিশোরীর ফোঁড়ার স্থান পরিষ্কারের (ড্রেসিং) ছলে শরীরের স্পর্শকাতর অংশে হাত দেন বলে তিনি অভিযোগ করেন।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্র জানায়, কিশোরী বিষয়টি প্রথমে তার মাকে জানায়। ওই সময় তিনিও মেয়ের সঙ্গে হাসপাতালের কেবিনেই ছিলেন। পরে তিনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। আর চিকিৎসা শেষে ফেরার আগে আইনজীবীর পরামর্শে এ ঘটনায় মামলা করেন তিনি।

ইবনে সিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা নূরে আলম সবুজ জানান, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অভিযোগ আমলে নিয়ে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। প্রাথমিক তদন্তে কমিটি ওই ওয়ার্ডবয়ের দোষ খুঁজে পান। তাদের সুপারিশের ভিত্তিতে আবুল কাশেমকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

সর্বশেষ খবর