Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১২:০৩

সিঙ্গাপুরে 'মুক্তিযোদ্ধার গল্প' ডকু ফিল্মের প্রদর্শনী

সিঙ্গাপুর প্রতিনিধি

সিঙ্গাপুরে 'মুক্তিযোদ্ধার গল্প' ডকু ফিল্মের প্রদর্শনী

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে ১৩ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হল ডকু ফিল্ম 'মুক্তিযোদ্ধার গল্প'র প্রিমিয়ার শো। উক্ত শোতে আমন্ত্রিত অতিথি হয়ে উপস্থিত ছিলেন সিঙ্গাপুরের সুশীল সমাজের প্রায় ১২০ জন অতিথি। সিঙ্গাপুর আওয়ামী লীগের সকল অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মুক্তিযুদ্ধ ও চট্রগ্রামের হাটহাজারী ও রাউজান উপজেলার অগণিত নাম না জানা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে নির্মিত হয়েছে এ ফিল্ম। 

জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে প্রিমিয়ার শোর উদ্বোধন করা হয়। এসময় পুরো হল রুমে উপস্থিত অতিথিবৃন্দ দাঁড়িয়ে সকলে কণ্ঠ মিলিয়ে জাতীয় সংগীত গান। এর আগে সন্ধ্যা ঠিক ৭টার কিছু সময় পর থেকেই অনুষ্ঠানস্থলে আসতে শুরু করেন আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠান শুরুর পূর্বেই পুরো হল কানায় কানায় ভরে উঠে।

আমন্ত্রিত অতিথিদের আসন গ্রহণের পর অনুষ্ঠান পরিচালনার মাইক হাতে তুলে নেন সুস্মিতা। এরপর একে একে শুভেচ্ছা বক্তব্য নিয়ে মঞ্চে আসেন বিশেষ অতিথিবৃন্দ। শুরুতেই শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মির্জা গোলাম সবুর। তিনি তার বক্তব্যে এই ডকু ফিল্মটিকে পাইলট ফিল্ম হিসেবে বিবেচনা করে বলেন যে, এই ফিল্মটি আপনাদের সবার মন জয় করতে পারলেই হয়তো পরিচালক তার পরবর্তী ফিল্মের কাজ শুরু করতে অনুপ্রেরণা পাবে। সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে যে কাজ করছে তা অবশ্যই প্রশংসা পাবার দাবিদার। এখন সময় এসেছে ইঞ্জি. মোশাররফ জুয়েলের মতো যারা মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে কাজ করছেন তাদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা। তিনি তার বক্তব্যে উপস্থিত মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম চৌধুরীকে শুভেচ্ছা জানান।

এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ সরকারের সাবেক সচিব ও সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশ সরকারের সাবেক হাই কমিশনার এম এ মালিক। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা আমাদের দেশের শ্রেষ্ঠ সন্তান। আর মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে নির্মিত ডকু ফিল্মের প্রিমিয়ার শো সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হওয়ায় উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানান। 

এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সিঙ্গাপুরে বসবাসরত একমাত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম চৌধুরী। তিনি বলেন, আমরা যুদ্ধ করেছি লাল সবুজ পতাকার জন্য, আর এখন আমাদের যুদ্ধ করতে হবে আগামীর উন্নত বাংলাদেশের জন্য। 

এরপর মুক্তিযোদ্ধা খোরশেদ আলম চৌধুরী আমন্ত্রিত বিশেষ অতিথিদের নিয়ে প্রিমিয়ার শোর উদ্বোধন করেন। এরপর হলে উপস্থিত সকল অতিথি মিলে ডকু ফিল্মটি উপভোগ করেন। এরপর দেশের গান নিয়ে মঞ্চে আসেন কণ্ঠশিল্পী মিলিয়া ইসলাম সাবেদ। তিনি তার সুকণ্ঠে দেশের গান পরিবেশন করে উপস্থিত অতিথিদের মুগ্ধ করেন। এরপর পরিবেশন করা হয় রাতের খাবার। প্রিমিয়ার শোতে আগত অতিথিদের মাঝে ডকু ফিল্মটির পরিচালক ইঞ্জি. মোশাররফ জুয়েলের পক্ষ থেকে সব সময়ের জন্য অতি দামি লাল সবুজের পতাকা তুলে দেয়া হয়। তখন পুরো হল রুম যেন রূপ নেয় মিনি বাংলাদেশে।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা 


আপনার মন্তব্য