শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ জানুয়ারি, ২০২১ ১৯:৩০
প্রিন্ট করুন printer

আটকেপড়া প্রবাসীদের ফিরিয়ে নিতে বাহরাইনকে অনুরোধ

অনলাইন ডেস্ক

আটকেপড়া প্রবাসীদের ফিরিয়ে নিতে বাহরাইনকে অনুরোধ
আব্দুল মোমেন। ফাইল ছবি

করোনা মহামারির কারণে দেশে আটকেপড়া বাহরাইন প্রবাসী বাংলাদেশিদের সেদেশে ফিরিয়ে নিতে বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল লতিফ বিন রশিদ আল জায়ানিকে অনুরোধ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন। 

আজ মঙ্গলবার বাহরাইনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে টেলিফোনে আলাপকালে ড. মোমেন এ অনুরোধ করেন। 

সাধারণ ক্ষমার আওতায় ৩০ হাজার অনিয়মিত প্রবাসী বাংলাদেশির ভিসা নিয়মিত করায় বাহরাইন সরকারকে ধন্যবাদ জানান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি এ সময় বাংলাদেশি প্রবাসীদের জন্য সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ বৃদ্ধির অনুরোধ করেন।

বাংলাদেশ ও বাহরাইনের মধ্যে দ্বিতীয় ফরেন অফিস কনসালটেশন (এফওসি) শিগগির ঢাকায় অনুষ্ঠিত হওয়ার বিষয়ে উভয় দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্মতি প্রকাশ করেন।

ড. মোমেন প্রবাসী বাংলাদেশিসহ বাহরাইনে অবস্থানরত সবার জন্য বিনামূল্যে টিকা বিতরণে সেদেশের সরকারকে ধন্যবাদ জানান।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


 
 
 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০২:৪২
আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০২:৪৭
প্রিন্ট করুন printer

মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে আলোচনা সভা

গ্রীস প্রতিনিধি

মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে আলোচনা সভা

ইউরো-বাংলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এসময় করোনায় আক্রান্ত সাংবাদিক আব্দুল কুদ্দুসের সুস্থতা কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। 

প্রেসক্লাব সভাপতি তাইজুল ইসলাম ফয়েজের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন চৌধুরীর পরিচালনায় গত ২২ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৮টায় এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এতে অংশ নেন সংগঠনের উপদেষ্টা আন্তর্জাতিক কলামিস্ট ও চিকিৎসক জিন্নুরাইন জায়গীরদার, প্রবাসী সাংবাদিক মাইদুল মিয়া, সিনিয়র সহ-সভাপতি এম আলী চৌধুরী, সহ-সভাপতি সৈয়দ মেহেদি রাসেল, কবি হাবিব ফয়েজী, তাজউদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক একে আজাদ, সহ-সভাপতি ইলিয়াছ আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জাবের আহমদ, অভিবাসন বিষয়ক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সভায় ভাষা শহীদদের রুহের আত্মার মাগফিরাত কামনা, বাংলাদেশের নোয়াখালীতে নিহত সাংবাদিক, করোনায় আক্রান্তদের সুস্থতা কামনা,  দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে দোয়া পরিচালনা করেন চিকিৎসক জিন্নুরাইন জায়গীরদার।

 

বিডি-প্রতিদিন/আব্দুল্লাহ সিফাত


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৩৯
প্রিন্ট করুন printer

সড়ক দুর্ঘটনা

যুক্তরাজ্যে খাবার বিলি করে আর জীবিত ফিরতে পারলেন না বাংলাদেশি দম্পতি

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাজ্যে খাবার বিলি করে আর জীবিত ফিরতে পারলেন না বাংলাদেশি দম্পতি
নিহত বাংলাদেশি দম্পতি। ছবি- সংগৃহীত

বাড়িতে খাবার বিলি করে ফেরার পথে যুক্তরাজ্যে সড়ক দুর্ঘটনায় বাংলাদেশি এক দম্পতি নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন আবদুর রহমান মুয়িম (৪৮) ও পাপিয়া বেগম (৩৮)। আবদুর রহমান মুয়িমের বাড়ি মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার মনসুরনগর ইউনিয়নের বিনয়শ্রী গ্রামে। আর তারর বাবার বাড়ি সদর উপজেলার মনুমুখ ইউনিয়নের বাজরাকোনা গ্রামে।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশ সময় রাত আনুমানিক ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আবদুর রহমান মুয়িম ও পাপিয়া বেগম ১৯৯৩ সাল থেকে বার্মিংহামে স্থায়ীভাবে বসবাস করছিলেন।

ঘটনার দিন ওই দম্পতি বার্মিংহাম এলাকার একটি বাড়িতে খাবার বিলি করতে যান। খাবার বিলি করে ঘরে ফেরার পথে তাদের গাড়ি অন্য একটি গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা লেগে দুর্ঘটনা ঘটে। তাদের এক ছেলে ও তিন মেয়ে আছে। 

এই মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন দেশে বসবাসকারী পাপিয়া বেগমের ফুফাতো ভাই মৌলভীবাজার সদর উপজেলার বাজরাকোনা গ্রামের মোহাম্মদ আলাম। 

তিনি জানান, সোমবার যুক্তরাজ্যের রেডিস বার্মিংহাম রোডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পাপিয়া বেগম ঘটনাস্থলেই মারা যান। স্বামী ব্যবসায়ী আবদুর রহমান মুয়িমকে নিকটবর্তী একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ

 


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৩২
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৩৫
প্রিন্ট করুন printer

দক্ষিণ কোরিয়ায় ইসো আয়োজিত প্রতিযোগিতায় বাংলা সাহিত্যে সেরা রোকনুজ্জামান

নিজস্ব প্রতিবেদক, রংপুর

দক্ষিণ কোরিয়ায় ইসো আয়োজিত প্রতিযোগিতায় বাংলা সাহিত্যে সেরা রোকনুজ্জামান

“প্রবাস মৃত্যু” কবিতা লিখে দক্ষিণ কোরিয়ায় বাংলা সাহিত্যে সেরা লেখক-২০২০ সম্মাননা পেলেন রংপুরের কৃতি সন্তান তরুণ লেখক মো. রোকনুজ্জামান রোকন।

দক্ষিণ কোরিয়ার জনপ্রিয় সামাজিক সংগঠন ইপিএস স্পোর্টস এন্ড ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশন (ইসো) সেরা লেখক প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। বাংলাদেশের ভাবমূর্তি এবং প্রবাসীদের অব্যক্ত কথা তুলে ধরার জন্য বাংলা ও কোরিয়ান ভাষার সমন্বয়ে "ইসো" সেরা লেখক  প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

প্রতিযোগিতায় অসংখ্য লেখা জমা পড়ে। সেসব লেখার মধ্যে থেকে পর্যালোচনার ভিত্তিতে ইসো সম্প্রতি সেরা তিনজন লেখককে বাছাই করে বিজয়ী ঘোষণা করে। কোরিয়ান ভাষায় লিখে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছেন যথাক্রমে মো. ইয়াছিন সেখ ও মো. মিজানুর রহমান। বাংলা সাহিত্যে লিখে তৃতীয় স্থান অর্জন করেছেন রোকনুজ্জামান।

মো. রোকনুজ্জামান রোকন রংপুর জেলার শেখপাড়া গ্রামে আফছার আলী ও রেখা বেগমের বড় পুত্র। তিনি একাধারে কবিতা, গল্প, নাটক, উপন্যাসসহ সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় লেখালেখি করেন। তার লেখা নিয়মিত বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকা ও ম্যাগাজিনে প্রকাশিত হয়। তিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন রবিউল স্মৃতি সাহিত্য কেন্দ্র। যুক্ত রয়েছে বিভিন্ন সাহিত্য সংগঠন ও সামাজিক সংগঠনের সাথে।

রোকনুজ্জামান কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ব বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় বর্ষ পর্যন্ত লেখা পড়ে করে কোরিয়া চলে যান। সেখানে একটি গাড়ি প্রস্তুতকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন। চাকরির পাশাপাশি তিনি সাহিত্য চর্চাও করছেন।

রোকনুজ্জামানের পিতা আফছার আলী জানান, মঙ্গলবার দুপুরের পর তার ছেলে জানিয়েছে বাংলা ভাষায় কবিতা লিখে সে সেরা হয়েছে। বিদেশের মাটিতে সাহিত্য চর্চা করে পুরস্কার পেয়েছেন এটা আমাদের জন্য বড় প্রাপ্তি। 


বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:৩৮
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:৪৫
প্রিন্ট করুন printer

মিশিগানে ‘বর্ণমালা বাংলা কর্নার’ উদ্বোধন

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি

মিশিগানে ‘বর্ণমালা বাংলা কর্নার’  উদ্বোধন

মিশিগানে ২১ শে ফেব্রুয়ারিতে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে হ্যামট্রামেক সিটি পাবলিক লাইব্রেরিতে কিছুটা অংশ নিয়ে ‘‘বর্ণমালা বাংলা কর্নার’’ নামে লাইব্রেরি উদ্বোধন করা হয়। ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হ্যামট্রামেক সিটির মেয়র ক্যারণ মাজেস্কি। বিশেষ অতিথি ছিলেন হ্যামট্রামেক পাবলিক লাইব্রেরির পরিচালক টামারা সোছাকা, সিটির দুই বাঙালি কাউন্সিলম্যান মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও নাঈম চৌধুরী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মৃদুল কান্তি সরকার। 

 
সাংবাদিক আশিক রহমান জানান, দুপুর ১২ টায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনি প্রক্রিয়ায় ‘‘বর্ণমালা বাংলা কর্নার’’ এর যাত্রা শুরু হয়। প্রধান অতিথি মেয়র ক্যারন মাজেস্কি বলেন, আজকের এই দিনটা হচ্ছে প্রকৃত দিন। এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করার কারণ হলো এই দিনে বাংলাদেশসহ গোটাবিশ্ব তাদের নিজেদের ভাষা দিবস পালন করছে পাশাপাশি মিশিগান রাজ্যের হ্যামট্রামেক সিটিতেও পালিত হচ্ছে। হ্যামট্রামেক সিটি প্রশাসন এই বিষয়কে খুবই গুরুত্ব প্রদান করে। যে ভাষায় আমাদের পুর্বপুরুষেরা কথা বলেছেন, বড় হয়েছেন এবং যে ভাষায় আমাদের মনের ভাব প্রকাশ করি। আমি জানিনা কতজনের আমাদের এই হ্যামট্রামেক সিটি সম্পর্কে ধারণা আছে। আমি নিসন্দেহে বলতে পারি এই সিটি হচ্ছে বহুজাতি ও বিভিন্ন ভাষার মানুষের মিলনস্থল ও বসবাসের জায়গা। এখানে প্রচুর সংখ্যক বাংলা ভাষী মানুষ বসবাস করছেন। আমি তাদেরকে স্বাগত জানাই। তিনি আরো বলেন, হ্যামট্রামেক পাবলিক লাইব্রেরি কর্তৃপক্ষ যুগের পর যুগ ধরে বহু ভাষার মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এটা সিটির জনসাধারণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সংযোজন। 

বিশেষ অতিথি হ্যামট্রামেক পাবলিক লাইব্রেরির পরিচালক তামারা সোচাকা বলেন, এই পাবলিক লাইব্রেরিটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে অভিবাসীদের জন্য। আমাদের এখানে বেশিরভাগ বই হচ্ছে ইংলিশ তবে অন্যান্য ভাষার বইও রয়েছে। আমি এবং আমার লাইব্রেরি বোর্ড এর পক্ষ থেকে ডাক্তার দেবাশিষ মৃধা ও চিনু মৃধাকে অনেক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। অনেক বাংলা বই আমাদের এই লাইব্রেরিতে দান করার জন্য। বর্ণমালা বাংলা কর্নার এর উদ্যোক্তা ডাক্তার দেবাশিষ মৃধা ও চিনু মৃধা বলেন, এই পাবলিক লাইব্রেরিতে বাংলা বইয়ের সংযোজন করতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত। লাইব্রেরিতে বাংলা বইয়ের সংযোজনের সুযোগ করে দেয়ার জন্য সিটি মেয়র, লাইব্রেরি পরিচালক সহ দুই সিটি কাউন্সিলম্যানের প্রতি কৃতজ্ঞ এবং ধন্যবাদ প্রদান করছি। আমরা মনে করি প্রবাসে এটা আমাদের বাংলা ভাষার মানুষের জন্য ইতিহাস হয়ে থাকবে। আগামীতে বাংলা  সংস্কৃতির যাবতীয় অডিও, ভিডিও ক্লিপসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক বই প্রদান করবেন বলে জানান। অনুষ্ঠানে সিটি কাউন্সিলম্যান মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও নাঈম চৌধুরী বাংলা ভাষার ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির গুরুত্ব নিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন।  

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর

প্রকাশ : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:২০
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ১১:২২
প্রিন্ট করুন printer

ওয়াশিংটনে মোমেন-ব্লিনকেন-ম্যানেন্ডেজ বৈঠক

বঙ্গবন্ধুর ঘাতককে ফিরিয়ে নেয়া ছাড়াও প্রাধান্য পাবে রোহিঙ্গা ইস্যু

লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র

বঙ্গবন্ধুর ঘাতককে ফিরিয়ে নেয়া ছাড়াও প্রাধান্য পাবে রোহিঙ্গা ইস্যু
ড. এ কে আব্দুল মোমেন

ওয়াশিংটন ডিসিতে চারদিনের সফরকালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেনের কাছে বঙ্গবন্ধুর ঘাতক হিসেবে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত রাশেদ চৌধুরী এবং একাত্তরের বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আলবদর আশরাফুজ্জামান খানকে বাংলাদেশে ফিরিয়ে নেয়ার পুরনো প্রসঙ্গটি আরও বিস্তারিতভাবে উল্লেখ করবেন। 

বাইডেন প্রশাসনের মুক্ত আন্তর্জাতিক কূটনীতির কৌশলের আওতায় বাংলাদেশের জন্যে জিএসপি সুবিধা পুনর্বহাল, রোহিঙ্গা ইস্যুতে আরো কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ ইত্যাদি ইস্যুতে দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী ২৩ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার রাতে (বাংলাদেশ সময় বুধবার ভোরে) বৈঠকে মিলিত হবেন বলে স্টেট ডিপার্টমেন্ট সূত্রে জানা গেছে। 

উল্লেখ্য, সাবেক প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আইনমন্ত্রী উইলিয়াম বার এক ঘোষণায় বঙ্গবন্ধুর ঘাতক রাশেদ চৌধুরীর এসাইলাম প্রক্রিয়া খতিয়ে দেখার উদ্যোগ নিয়েছিলেন। সেটি সক্রিয় থাকতেই জো বাইডেন প্রশাসন অধিষ্ঠিত হয়েছে। ডেমক্র্যাট-প্রশাসনে মানবতাবিরোধী এবং ঘাতকদের ব্যাপারে কোন ছাড় থাকে না। দীর্ঘ সাড়ে তিন দশক যুক্তরাষ্ট্রে অধ্যাপনার পাশাপাশি ডেমক্র্যাটিক পার্টির ডেলিগেট হিসেবে ড. মোমেনের অনেক অভিজ্ঞতা রয়েছে। সে আলোকে দায়িত্ব গ্রহণের পরই করোনার ভীতি সত্ত্বেও ছুটে এসেছেন ওয়াশিংটন ডিসিতে। প্রবাসের রাজনৈতিক সচেতন ব্যক্তিরা মনে করছেন মোমেনের এই সফর বাইডেন প্রশাসনের সাথেও শেখ হাসিনা প্রশাসনের সম্পর্ক আরো মজবুত করতে অপরিসীম ভূমিকা রাখবে। একইসাথে যুক্তরাষ্ট্রে পালিয়ে থাকা দণ্ডিত ঘাতকসহ বাংলাদেশের আরো কিছু গুরুতর অপরাধে লিপ্ত ব্যক্তিদেরকেও গ্রেফতার করে বাংলাদেশে নেয়ার পথ সুগম হতে পারে। 

ওয়াশিংটন ডিসি সফরকালে ড. মোমেন ইউএস সিনেটে ফরেন রিলেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান (নিউজার্সির ডেমক্র্যাট) সিনেটর বব ম্যানেন্ডেজের সাথেও বৈঠকে মিলিত হবেন। সে বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যুর পাশাপাশি দক্ষিণ এশিয়াভিত্তিক গুরুত্বপূর্ণ কিছু ইস্যুতেও কথা বলবেন ড. মোমেন। 

উল্লেখ্য, সিনেটর ম্যানেন্ডেজ ইতিপূর্বেও বাংলাদেশের সামগ্রিক উন্নয়নে অপরিসীম ভূমিকা রেখেছেন। করোনায় বিপর্যস্ত গোটাবিশ্ব। বাংলাদেশও তার বাইরে নয়। এ অবস্থায় যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কটি কোম্পানী চুক্তির শর্ত লংঘন করে বাংলাদেশ থেকে পোশাক আমদানিতে টালবাহানা, কেউ কেউ বকেয়া পরিশোধে সীমাহীন উদাসীনতা প্রদর্শন করছে। এ নিয়ে কথা হবে সিনেটর ম্যানেন্ডেজের সাথে। সে সময় বাংলাদেশের তৈরী পোশাকের মত ওষুধ কোম্পানীগুলোও যুক্তরাষ্ট্রের চাহিদার পরিপূরক ওষুধ প্রস্তুত ও সরবরাহে সক্ষম হলে অবহিত করবেন মার্কিন সিনেটে এই প্রভাবশালী নেতাকে। 
পর্যবেক্ষক মহলের মতে বাংলাদেশের ধাবমান উন্নয়ন-অভিযাত্রার বিরুদ্ধে বিশেষ একটি মহলের মোটা অর্থ বিনিয়োগ এবং ওয়াশিংটন ডিসিতে প্রভাবশালী মহলকে বিভ্রান্ত করা, বিশেষ করে জো বাইডেনের প্রশাসনকে যাতে বিভ্রান্ত করতে না পারে সেজন্যে আগের সম্পর্ক কাজে লাগিয়ে ড. মোমেন বাইডেন প্রশাসনের আরো ক’জন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তার সাথেও কথা বলতে পারেন। 

বলার অপেক্ষা রাখে না যে, বাইডেনের এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিভিন্ন দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীগণের সাথে টেলিফোনে শুভেচ্ছা বিনিময় করলেও বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ওয়াশিংটনে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, বাইডেনের পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক টিমের প্রধান জন কেরীর সাথে ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল ড. মোমেনের। সেটিকেও এখন ঝালাই করা হবে বাংলাদেশের সাথে বিদ্যমান সম্পর্ক আরো দৃঢ় ভিতের ওপর দাঁড় করাতে। কারণ, জলবায়ু পরিবর্তনের পরিপ্রেক্ষিতে যেসব দেশ বেশি ক্ষতির শিকার হবে বলে মনে করা হচ্ছে, বাংলাদেশ হচ্ছে তার অন্যতম। 
ড. মোমেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব্লিনকেন এবং বাইডেনের জলবায়ু বিষয়ক বিশেষ দূত জন কেরীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানাবেন বলেও শোনা যাচ্ছে। 
ডিসিতে অবস্থানকালে ভয়েস অব আমেরিকাসহ কটি গণমাধ্যমেও বাংলাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলবেন। উল্লেখ্য, ২৩ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার অপরাহ্ন ৩টায় ড. মোমেন ওয়াশিংটন ডিসিতে অবতরণের কথা। এয়ারপোর্টে তাকে স্বাগত জানাবেন ওয়াশিংটনে বাংলাদেশের নতুন রাষ্ট্রদূত শহীদুল ইসলাম। করোনার কারণে ড. মোমেন এবার কমিউনিটির কোন অনুষ্ঠানে যোগদান করবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছেন। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য

পরবর্তী খবর