শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২২:০৫

ফেসবুক বউ

শফিক শাহরিয়ার

ফেসবুক বউ

মফিজের স্ত্রীর নাম মৌ মানে মধু, মিষ্টি টাইপ। মৌয়ের গুণে সে বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ির নাম পর্যন্ত ভুলে গেছে। বিয়ের পর তার দিনকাল ভালো যাচ্ছে না। বউয়ের ঝাড়ি শুনতে শুনতে কানের অবস্থা শোচনীয়। সত্যি বলতে, সে ফেসবুক বউ নিয়ে ভীষণ বিপাকে পড়েছে। সংসারের কাজে তার স্ত্রীর মন বসে না। সে সংসারের কোনো ধার ধারে না। সংসার নাকি তার পছন্দ হয় না। ফেসবুকের সঙ্গেই তার একরকম সংসার চলছে বলা যায়। এদিকে কয়েক দিন থেকে ভালোই শীত পড়েছে। মফিজ একা একা রাতে লেপ মুড়ি দিয়ে ঘুমায়। আর তার স্ত্রী ফেসবুকে অলস সময় কাটায়। নইলে তার সময় কাটে না। এদিকে মফিজ মুখ ফুটে কিছু বলতে পারে না। বলতে গেলেই ঢোক গিলে। অন্ধকার ঘরে তার ঘুম আসে না। আবার ভয়ও লাগে। তাই সে রাতে জিরো ওয়াটের লাইট জ্বালিয়ে ঘুমায়। ঘরের নতুন বউ তাকে লাইট জ্বালাতে সম্মতি দেয় না। রাতে তার স্ত্রী ফেসবুকে একটিভ থাকে। তখন নাকি মোবাইল স্ক্রিনের আবছা আলো জিরো লাইটের কাজ করে। দিনে ফেসবুকে একটিভ থাকলেও তেমন সমস্যা হয় না। মফিজ সংসারের কাজ একাই সামাল দিতে পারে। সংসারের কাজে তার স্ত্রী অনেক সাহায্য করে। সাহায্য বলতে সে ফেসবুক থেকে নানা রকম জ্ঞান সংগ্রহ করে মফিজের কানে পৌঁছে দেয়। এসব শুনে সহ্যসীমা ছাড়িয়ে গেলেও সে নীরব দর্শকের ভূমিকায় থাকে। সংসার নিয়ে তার জীবনদর্শন হলো, স্ত্রীর খুশিতে নিজে খুশি। স্ত্রীকে অখুশি রাখলে সংসারে অশান্তি সৃষ্টি হয়। এমনকি সে কথা না বাড়িয়ে সোজা বাপের বাড়ি যাওয়ার রাস্তা মাপে। সে আসলে স্ত্রীর কাছে বাহবা পেতে চায়। এতদিন নিজের হাতের রান্নার অনেক প্রশংসা করেছে। ছাত্রজীবনে বেশ কয়েক বছর একটি বাসায় ভাড়া থাকত। নিজে নিজেই রান্না করে খেয়েছে। তার বউ মুখের কথায় বিশ্বাসী নয়। এবার হাতেনাতে প্রমাণ পেতে চায়। প্রমাণ হিসেবে মফিজকে তিন বেলা রান্না করে খাওয়াতে হয়। সে এখন বলে, আদর করে আমার বউয়ের নাম কে মৌ রেখেছে? 


আপনার মন্তব্য