শিরোনাম
শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

বইপ্রেমী হারুনের সেলুনভিত্তিক পাঠাগার

মোশাররফ হোসেন বেলাল, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

বইপ্রেমী হারুনের সেলুনভিত্তিক পাঠাগার

সেলুনে অপেক্ষার সময়টুকু যেন অলস না কাটে সে জন্য ব্যতিক্রমী উদ্যোগ নিয়েছেন হারুন অর রশীদ। দেশের বিভিন্ন স্থানে সেলুনভিত্তিক পাঠাগার গড়ে তুলছেন তিনি। পেশায় ব্যাংকার এই যুবকের স্বপ্ন দেশের সব জেলায় অন্তত একটি করে সেলুনভিত্তিক পাঠাগার করার। এতে বইয়ের প্রতি মানুষের ভালোবাসা তৈরি হবে। ইতিমধ্যে তার প্রচেষ্টায় দেশের তিনটি জেলায় চারটি সেলুনভিত্তিক পাঠাগার গড়ে উঠেছে। ব্যতিক্রমী এসব পাঠাগার নজর কাড়ছে পাঠকসহ সবার। কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার গোবরিয়া গ্রামের মৃত আসাদুল্লাহ ও সুফিয়া আক্তার দম্পতির চার সন্তানের মধ্যে দ্বিতীয় হারুন। বর্তমানে তিনি ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় গ্রামীণ ব্যাংকের একটি শাখায় সিনিয়র কেন্দ্র ব্যবস্থাপক হিসেবে কর্মরত আছেন। আফতাব উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে ১৯৯৯ সালে মাধ্যমিক ও ২০০১ সালে আবদুস ছাত্তার ডিগ্রি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন হারুন। এরপর এশিয়ান ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ থেকে ইসলামের ইতিহাস বিভাগে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। মূলত কলেজে অধ্যয়নের সময় কলেজের রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক মাকসুদুল ইসলামের মাধ্যমে বইয়ের প্রতি ঝোঁক তৈরি হয় হারুনের। পরবর্তীতে পড়াশোনা শেষ করে ২০০৭ সালে নিজের বাড়িতে একটি পাঠাগার গড়ে তুলেন হারুন। বর্তমানে ওই পাঠাগারে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন লেখকের অন্তত ২ হাজার বই রয়েছে। তবে পাঠাগার গড়ে তোলার আগ থেকেই বই সংগ্রহের কাজ শুরু করেন হারুন। সংগৃহীত বইগুলো তিনি গ্রামের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের বই দিতেন পড়ার জন্য। এভাবে তিনি বই পড়ার জন্য শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করতেন।

হারুন জানান, গত জানুয়ারি মাসে ঢাকার নবাবগঞ্জের কলাকোপা বাজারের একটি সেলুনে চুল কাটতে গিয়ে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয় তাকে। তখন তার মাথায় আসে-সেলুনে এসে অনেককে চুল-দাড়ি কাটার জন্য দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হয়। অপেক্ষার এই সময়ে বই পড়লে সময়ও কাটবে আবার জ্ঞানও অর্জন হবে। সেই থেকে সেলুনভিত্তিক পাঠাগার করার পরিকল্পনা করেন হারুন। পরিকল্পনার অংশ হিসেবে গত জানুয়ারি মাসে ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলার কলাকোপা বাজারের সুব্রত হেয়ার কাটিং সেলুনে প্রথম সেলুনভিত্তিক পাঠাগার করেন। এরপর ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজেলার কুলিয়ারচর বাজারের নিখিল হেয়ার কাটিং ও বিজয় হেয়ার কাটিং সেলুনে আরও দুটি পাঠাগার স্থাপন করেন। সর্বশেষ গত মে মাসের শেষ দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার প্রত্যন্ত অরুয়াইল বাজারে নকুল ফ্যাশন হেয়ার কাটিং সেলুনে আরেকটি পাঠাগার গড়ে তোলেন হারুন।