শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৬ মে, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ মে, ২০১৮ ০২:১৮

ব্যাংক খাতে স্বচ্ছতায় বন্ধ করতে হবে ঋণ পুনঃতফসিল

নিজস্ব প্রতিবেদক

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) বলেছে, ব্যাংক খাতের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে ঋণ পুনঃতফসিলিকরণ বন্ধ করতে হবে। ব্যাংকিং খাতের মূল শক্তিই হলো আমানতকারীদের আস্থা। সেই আস্থার ঘাটতি হলে দেশের ব্যাংকিং খাতই শুধু ক্ষতিগ্রস্ত হবে না সার্বিকভাবে অর্থনীতিতেও বিপর্যয় ঘটতে পারে। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান গতকাল এক বিবৃতিতে বলেন, আসন্ন বাজেটে খেলাপি ঋণ ও তারল্য সংকটে নিমজ্জিত সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকগুলোর জন্য পুনঃতফসিলিকরণ ও পুনঃমূলধনীকরণ সুবিধা রাখলে তা ঋণখেলাপি ও দুর্নীতিবাজদের জন্য রাষ্ট্রীয় প্রণোদনা হিসেবে বিবেচিত হবে। এর পরিবর্তে দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতের আহ্বান জানিয়েছে টিআইবি। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বাজেটে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ দেওয়া সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক। অবৈধ পথে উপার্জিত অর্থ বৈধ করার সুযোগ প্রদান একদিকে যেমন নৈতিক অবক্ষয়কে প্রশ্রয়ের দৃষ্টান্ত, তেমনি দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতায় এটিও প্রমাণিত যে, এই জাতীয় অসাধু চর্চা রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রেও কোনো সহায়ক ভূমিকা পালন করে না। অন্যদিকে, কালো টাকাকে বৈধতা প্রদান যেমন অসাংবিধানিক তেমনি অনৈতিক, বৈষম্যমূলক ও রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় দুর্নীতি সহায়ক। ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ২০১৮ : ২০১৮-১৯ অর্থবছরের বাজেটে অধিকতর স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে। এ জন্য কালো টাকাকে বৈধতা প্রদানের সুযোগ অব্যাহত রাখা যাবে না। প্রতিরক্ষা খাতে বরাদ্দের পর্যাপ্ত ব্যাখ্যা ও আলোচনার সুযোগ রাখতে হবে।


আপনার মন্তব্য