শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০৬

আদালতেরও সাধারণ ছুটির মেয়াদ বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাধারণ ছুটি বাড়ানো হয়েছে সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের সব অধস্তন আদালতে। গতকাল সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর এ বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেন। ফলে এই সময়ে থাকা মামলাগুলোর শুনানি ছুটির পরে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। সুপ্রিম কোর্টের সার্কুলারে বলা হয়, দেশব্যাপী করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) সংক্রমণ মোকাবিলা এবং এর বিস্তার রোধকল্পে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ২৪ মার্চ এবং ১ এপ্রিলের প্রজ্ঞাপনে ঘোষিত সাধারণ ছুটি ও সাপ্তাহিক ছুটির ধারাবাহিকতায় ৫ এপ্রিলের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আগামী ১২ ও ১৩ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এমতাবস্থায় সুপ্রিম কোর্টের ২৪ মার্চ এবং ১ এপ্রিলের বিজ্ঞপ্তিতে ঘোষিত ছুটির ধারাবাহিকতায় আগামী ১২ ও ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগ ও সব অধস্তন আদালতে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হলো। ১৪ এপ্রিল নববর্ষের সরকারি ছুটিও এর সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে।

এর আগে গত ২২ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের আরেক সার্কুলারে দেশের অধস্তন আদালতে জামিন বা অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা ও জরুরি বিষয় ছাড়া অন্যান্য বিষয় যৌক্তিক সময়ের জন্য মুলতবি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। ওই সময় সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা জানিয়েছিলেন, আদালতে ছুটি শেষে পুনরায় এসব মামলার শুনানির তারিখ নির্ধারিত হবে। এদিকে ছুটি চলাকালীন যেসব মামলার জামিন বা অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ শেষ হয়েছে ওইসব জামিন ও অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ দুই সপ্তাহ বৃদ্ধি করে গত ৪ এপ্রিল আরেকটি সার্কুলার জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সংকটময় সময় বিবেচনা করে ইতিমধ্যে যেসব ফৌজদারি মামলায় আসামিকে নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত জামিন দেওয়া হয়েছে বা যেসব মামলায় উচ্চ আদালত হতে অধস্তন আদালতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে আত্মসমর্পণের শর্তে জামিন দেওয়া বা যেসব দেওয়ানি মামলায় নির্দিষ্ট সময়ের জন্য অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা বা স্থিতাবস্থার আদেশ দেওয়া হয়েছে সেসব মামলার আদেশের কার্যকারিতা আদালত খোলার তারিখ থেকে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে মর্মে গণ্য হবে।

এ ছাড়া সব বিশেষ আইনের আওতাধীন মামলার আদেশ বা রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টসহ সব আপিল আদালত খোলার তারিখে আপিল দায়ের করতে হবে। এ ক্ষেত্রে রায়ের সহি মোহর নকল না থাকলেও আপিল দায়ের করা যাবে। তবে আপিল শুনানির আগেই সহি মোহর নকল অবশ্যই দাখিল করতে হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর