শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:২৩

চট্টগ্রামে যাত্রীদের ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

Google News

সরকারি নির্দেশ অমান্য করে গণপরিবহনে দ্বিগুণ ভাড়া দিতে বাধ্য করা ও অতিরিক্ত যাত্রী বহনে চট্টগ্রামে যাত্রী, কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) ও ভোক্তা অধিকার সংগঠনের নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে গণপরিবহনের চালক-হেলপারদের সঙ্গে সাধারণ যাত্রীদের মধ্যে বাকবিতন্ডা অহরহই ঘটছে। চট্টগ্রাম নগরীর মুরাদপুর এলাকার বাসিন্দা পোশাক শ্রমিক আফরোজা বেগম বলেন, আমাদের স্বল্প আয়। এতেই সংসার চালাতে হিমশিম খেতে হয়। এ অবস্থায় বাড়তি ভাড়া দিয়ে যাতায়াত মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা সম। এরপর সময়মতো গাড়ি না পেলে চাকরি তো আর থাকবে না।

এক ঘণ্টা হচ্ছে অপেক্ষা করছি, কোনো গাড়িই পাচ্ছি না। রীতিমতো যুদ্ধ করতে হয়। ভোগান্তির শেষ নেই।

অপর যাত্রী হাফেজ আহমদ বলেন, বাসা থেকে বের হলেই পদে পদে ভোগান্তি। গণপরিবহনে যাত্রী না নেওয়ায় বাধ্য হয়ে রিকশা নিতে হচ্ছে। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করছে রিকশাচালকরাও। সড়কে এমন বিশৃঙ্খলা চলতে থাকলে চাকরি বাঁচানোই দায় হবে।

বিআরটিএ চট্টগ্রাম বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. শহীদুল্লাহ বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন ও অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়ার বিষয়টি তদারকি করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করছে। অভিযোগ পেলে মামলা ও জরিমানা করা হচ্ছে।

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন বলেন, গণপরিবহনে পূর্বের ভাড়ার দ্বিগুণ আদায় করা হচ্ছে। এতে স্বল্প আয়ের মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

চট্টগ্রাম জেলা সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের অতিরিক্ত মহাসচিব গোলাম রসুল বাবুল বলেন, ধারণক্ষমতার ৫০ শতাংশের বেশি যাত্রী পরিবহন না করতে প্রত্যেক বাস, মিনিবাস মালিক-শ্রমিকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

 

এই বিভাগের আরও খবর