শিরোনাম
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৬:২৪
আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৬:২৪

ব্যবসায়ীকে অপহরণ; ছাত্রলীগ নেতাসহ ৩ জন রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক, খুলনা

ব্যবসায়ীকে অপহরণ; ছাত্রলীগ নেতাসহ ৩ জন রিমান্ডে

খুলনায় ব্যবসায়ীকে অপহরণ ও চাঁদাবাজির মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য জেলা ছাত্রলীগের বহিস্কৃত সহ-সভাপতি জুয়েল হাসান আরমানসহ তার দুই সহযোগিকে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। 

বৃহস্পতিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে বিচারক দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সুকান্ত দাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। রিমান্ডে নেয়া অপর দুই আসামি হচ্ছে- আহনাফ হোসেন রাজ (৩০) ও মাহমুদ হাসান বাবু (৩২)। এদের বাড়ি নগরীর শেখপাড়া স্টাফ কোয়ার্টার ও সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকায়। 
জানা যায়, গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় অপহরণের পর ওই ব্যবসায়ীকে সোনাডাঙ্গা আবাসিক এলাকা ১ম ফেজের একটি বাড়িতে আটকে রেখে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে অপহরণকারীরা। পরে ওই ব্যবসায়ীর কাছ থেকে তিনটি ডেভিট কার্ড ও পিন নাম্বার ছিনিয়ে নিয়ে ব্যাংকের বুথ থেকে ১ লাখ ৪৪ হাজার টাকা উত্তোলন করে। এছাড়া ওই ব্যবসায়ীর কথা বলে তার প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপকের কাছ থেকে আরো ৫০ হাজার টাকা নেয়। পরে সোমবার ভোররাতে নগরীর আমতলা এলাকা থেকে ওই ব্যবসায়ী উদ্ধার করা হয়।
এদিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামিরা নিরালা আবাসিক এলাকার ১নং রোডের জনৈক ‘বড় ভাই’র নির্দেশে এই অপহরণ ও মাদক ব্যবসার কথা স্বীকার করলেও পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি। তবে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার খন্দকার লুৎফুল কবির বলেন, শক্ত হাতেই অপরাধীদের নির্মূল করা হবে। কোন গডফাদার বা কথিত বড়ভাইকে ছাড় দেওয়া হবে না। এ ব্যাপারে পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে।
উল্লেখ্য, এর আগে ২০১৯ সালের ২১ জানুয়ারি ইয়াবাসহ নগরীর জনকন্ঠ গলিতে গ্রেফতার হয় জুয়েল হাসান আরমান। সোনাডাঙ্গা থানায় দায়ের হওয়া ওই মামলা আদালতে চলমান রয়েছে। ওই ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগ থেকে তাকে বহিস্কার করা হয়। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য