শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ১৯:২২
প্রিন্ট করুন printer

জৈব উপাদান দিয়ে ইট ভাটার জমির উর্বরতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব!

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

জৈব উপাদান দিয়ে ইট ভাটার জমির উর্বরতা ফিরিয়ে আনা সম্ভব!

কুইক কম্পোস্ট, ছাই, ও সবুজ সার ইত্যাদি ব্যবহার করে জমির উর্বরতা ফিরিয়ে এনে উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি সম্ভব বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ড. মাহমুদ হোসেন সুমন। 

শনিবার দুপুরে বাকৃবির কৃষি অনুষদ কনফারেন্স হলে ইট ভাটার মাটি কাটার ফলে হ্রাস পাওয়া মাটির উর্বরতা পূণরুদ্ধার কৌশল বিষয়ে আয়োজিত এক কর্মশালা ও মাঠদিবস অনুষ্ঠানে এমন তথ্য জানান ড. মাহমুদ। কর্মশালায় তিনি মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
কর্মশালায় তিনি আরও জানান, বাংলাদেশে প্রায় সাত হাজর ইট ভাটা আছে যাতে বাৎসরিক উৎপাদন হয় প্রায় ২৩ বিলিয়ন। ফলে জমির উর্বরতা ব্যাপকভবে নষ্ট হয়ে উৎপাদন ক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে, নষ্ট হচ্ছে উর্বরতা। গবেষণার কাজের ফলাফলে দেখা গেছে, প্রতি হেক্টরে তিনটন কুইক কম্পোস্ট ও একটন ছাই এর যৌথ প্রয়োগে উর্বরতা পূণরুদ্ধারে সবচেয়ে ভাল ফলাফল পাওয়া গেছে। 

মৃত্তিকা বিজ্ঞান বিভাগ এর বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ মফিজুর রহমান জাহাঙ্গীর এর সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্স সিস্টেম (বাউরেস) এর পরিচালক প্রফেসর ড. আবু হাদি নূর আলী খান। এসময় বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কৃষি অনুষদের প্রাক্তন ডীন প্রফেসর ড. এম জহির উদ্দীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রফেসর ড. রফিকুল ইসলাম।
উল্লেখ্য, বাকৃবিতে জমির উর্বরতা পূণরুদ্ধারের জন্য বায়োটেকনোলজি এন্ড বায়োরজিক্যাল সায়েন্সেস রিসার্চ কাউন্সিল ইউকে এর অর্থায়নে বাকৃবি এবং কুইন্স ইউনিভার্সিটি, বেলফাস্ট এর যৌথ উদ্যেগে একটি গবেষণা কাজ চলছে। 

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর