শিরোনাম
প্রকাশ : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৩২
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:৩৭
প্রিন্ট করুন printer

নাটোর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাসুমকে খুঁজছে পুলিশ!

নাটোর প্রতিনিধি:

নাটোর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মাসুমকে খুঁজছে পুলিশ!
আরিফুর রহমান মাসুম

চাঁদা না দেওয়ার কারণে ঠিকাদারের প্রতিনিধির ওপর হামলার ঘটনায় নাটোর পৌরসভার কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আরিফুর রহমান মাসুমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন নাটোর শহরের ঠিকাদার মেসার্স পিংকি কন্সট্রাকশনের মালিক আশফাকুল ইসলাম।

সোমবার রাতে তিনি নাটোর সদর থানায় কাউন্সিলর আরিফুল ইসলাম মাসুমের নামে মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনার পর থেকে কাউন্সিলর মাসুমকে আটকের জন্য খুঁজছে পুলিশ।সকালে কাউন্সিলর মাসুমের আলাইপুরস্থ নিজ বাড়িতে অভিযান চালায় নাটোর সদর থানা পুলিশ। এসময় পুলিশকে ফাঁকি দিয়ে বাড়ির পিছনের দরজা দিয়ে পালিয়ে যায় সে। তাকে আটকের জন্য জেলা পুলিশের বেশ কয়েকটি টিম কাজ করছে।

নাটোর পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, মেসার্স পিংকি কন্সট্রাকশন নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ মোতাবেক শহরের মিরপাড়া এলাকায় একটি নর্দমা (আরসিসি ড্রেন) নির্মাণ করছে। প্রতিষ্ঠানটির মালিক আশফাকুল ইসলাম মঙ্গলবার সকাল থেকে নর্দমা নির্মাণের কাজ অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দিয়েছেন। একইসাথে তিনি কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হওয়ার কারণে ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি পৌর মেয়র বরাবর একটি লিখিত দরখাস্ত জমা দিয়েছেন। কাজ বন্ধ করার কারণ জানতে চাইলে মেসার্স পিংকি কন্সট্রাকশনের মালিক আশফাকুল ইসলাম জানান, কাজ শুরুর পর পরই পৌরসভার কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র আরিফুর রহমান ওরফে মাসুম তাঁর কাছে চাঁদা দাবি করেন। তিনি চাঁদা দিতে অপারগতা জানিয়ে কার্যাদেশ মোতাবেক কাজ বুঝে নেওয়ার অনুরোধ করেন।

তবুও রবিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে ওই কাউন্সিলর ক্যাডারদের নিয়ে নির্মাণস্থলে গিয়ে তার প্রতিনিধিদের ওপর হামলা করেন। তারা সাইট ম্যানেজার তারিকুর রহমানকে বেদম মারপিট করে এবং তার কর্মীদের প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে চলে আসেন। এ ব্যাপারে তিনি থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগের বিষয়টি স্থানীয় সাংসদ শফিকুল ইসলাম শিমুল, পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি ও পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহাকে বিষয়টি অবহিত করেছেন। চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচার না করা পর্যন্ত তিনি নর্দমা নির্মাণের কাজ করতে পারবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জানার জন্য মঙ্গলবার সকালে অভিযুক্ত কাউন্সিলরের সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করে তার ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে। মাসুমকে আটকের জন্য পুলিশ খুঁজছে।

নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরি জলি জানান, ঠিকাদারের আবেদনের প্রেক্ষিতে কাউন্সিলর মাসুমের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর