৭ ডিসেম্বর, ২০২১ ২১:২৫

নাটোর পৌরসভায় ৩শ' কোটি টাকার প্রকল্প

নাটোর প্রতিনিধি

নাটোর পৌরসভায় ৩শ' কোটি টাকার প্রকল্প

দেড়শ বছরের পুরনো নাটোর পৌরসভা। অথচ এই দীর্ঘ সময়ে নিশ্চিত হয়নি নাগরিক সুবিধার পাশাপাশি অবকাঠামোগত উন্নয়ন। রাস্তা-ঘাট, ড্রেনেজ এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনার এক নাজুক নাম নাটোর পৌরসভা। মেয়র গেছে নতুন মেয়র এসেছে, কিন্তু পরিবর্তন হয়নি নাগরিক সেবার।

তবে অবহেলিত নাটোর পৌরসভায় দেবদূতের মতো এসে পাশে দাঁড়িয়েছে বিশ্ব ব্যাংক। অবকাঠামোগত পরিবর্তনের জন্য একসাথে ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে তারা। এতে করে দেড়শ বছরের পুরনো নাটোর শহর হয়ে উঠবে আধুনিক।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শহরের একটি কমিউনিটি সেন্টারে এক মতবিনিময় সভায় এ তথ্য জানান মিউনিসিপ্যাল গভর্নেন্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এমজিএসপি) কর্মকর্তারা। অংশিজনসহ গণমাধ্যমকর্মীদের মতামতের ভিত্তিতে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন নগর পরিকল্পনাবিদ সাইফুল ইসলাম,অর্থনৈতিক বিশেষজ্ঞ তরিকুল ইসলাম,অবকাঠামো প্রকৌশলী রাশেদুল ইসলাম, নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরী, নাটোর পৌরসভার প্রধান নির্বাহী আমির হামজা, নাটোর পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল মালেক সহ প্রকল্পের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা।

কর্মশালায় জানানো হয়, স্থানীয় সরকারের মিউনিসিপ্যাল গভর্নেন্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এমজিএসপি) দেশের মোট ৫১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত। এই প্রকল্পের মোট অর্থ ১০হাজার কোটি টাকা। এরমধ্যে নাটোর পৌরসভার অভ্যন্তরীণ অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য ৩০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

প্রকেল্পের অবকাঠামো প্রকৌশলী রাশেদুল ইসলাম বলেন, প্রাথমিক ভাবে নাটোর পৌরসভার উন্নয়নকে তিনটি ভাবে বিভক্ত করেছি। প্রথম, মধ্যম এবং শেষ বা তৃতীয়। এর সবচেয়ে বেশি জরুরী যে প্রকল্পগুলো, সেগুলো আগে বাস্তবায়ন করা হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় ধাপে। এই  প্রকল্পে মাত্র ৫ শতাংশ টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে, যেটা দিয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে গিয়ে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ব্যবহার করা হবে।

নাটোর পৌরসভার মেয়র উমা চৌধুরি জলি বলেন, নাটোর পৌরসভার ইতিহাসে একসাথে এত টাকা কখনও বরাদ্দ পায়নি। আমরা প্রকল্পটির মধ্যে রাস্তা-ঘাট, ড্রেনেজ, বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ প্রাথমিক ভাবে ৪টি বহুতল মার্কেট, দুটি কিচেন মার্কেট, পৌর শিশু পার্ক, সৌন্দর্য বর্ধন, পরিবেশসহ বিভিন্ন প্রকল্প অন্তর্ভুক্ত করেছি। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে নাটোর পৌরবাসী একটি নান্দনিক পৌরসভা পাবে। ছোট ছোট রাস্তা প্রশস্তকরণ হবে। ফলে দীর্ঘ দিনের সংকট সমাধান হবে বলে আশা করছি।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

সর্বশেষ খবর