শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:১৩

বিটুমিন প্লান্ট

পরনির্ভরতার অবসান ঘটাবে

বিটুমিন প্লান্ট

বিটুমিনের ক্ষেত্রে পরনির্ভরতা কাটিয়ে ওঠার সোনালি সোপানে পা দিয়েছে বাংলাদেশ। গত শনিবার কেরানীগঞ্জের পানগাঁওয়ে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্বোধন করা হয়েছে বসুন্ধরা অয়েল অ্যান্ড গ্যাস কোম্পানির বিটুমিন প্লান্ট। মুজিবর্ষে দেশের সড়ক নির্মাণ খাতের একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বিটুমিন উৎপাদনের ক্ষেত্রে স্বয়ংসম্পূর্ণতার পথ উন্মোচনকে একটি উল্লেখযোগ্য ঘটনা হিসেবে দেখা হচ্ছে। বাংলাদেশে চাহিদার মাত্র ১০ শতাংশ বিটুমিন উৎপাদিত হয় সরকারি খাতের প্রতিষ্ঠানে। বাকি ৯০ শতাংশ বিটুমিন বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। বসুন্ধরার বিটুমিন প্লান্ট আগামী বছরের মধ্যে তার উৎপাদন ৯ লাখ টনে উন্নীত করতে সক্ষম হবে। দেশীয় চাহিদা ৫ লাখ টন পূরণ এবং বাদবাকি বিটুমিন বিদেশে রপ্তানি করে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের পথ খুলে যাবে। বিটুমিন প্লান্ট উদ্বোধনকালে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, আগে চাহিদার ৯০ শতাংশ বিটুমিন আমদানি করতে হতো। এখন বসুন্ধরার কল্যাণে আমদানি করা লাগবে না বরং বিদেশে বিটুমিন রপ্তানি করা সম্ভব হবে। আমাদের আবহাওয়ার সঙ্গে খাপ খায় এমন বিটুমিন আগে পাওয়া যেত না। আমদানি করার পর গুণগত উৎকর্ষতা ধরে রাখা যেত না। বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্টের কারণে সেই সমস্যার সমাধান হলো। স্মর্তব্য, বাংলাদেশে বর্তমানে সড়ক ও জনপথ বিভাগের অধীনে ২২ হাজার কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। স্থানীয় সরকারের অধীনস্থ সড়কের পরিমাণ ৩ লাখ ৫৪ হাজার কিলোমিটার। এর মধ্যে পিচঢালা পথের পরিমাণ ১ লাখ ৫ হাজার কিলোমিটার। দেশে সড়কের পরিসর প্রতি বছর বাড়ছে। গুরুত্বপূর্ণ সড়কগুলো সময়ের প্রয়োজনে সম্প্রসারিত হচ্ছে। ফলে বাড়ছে বিটুমিনের চাহিদা। বেসরকারি খাতের বসুন্ধরা বিটুমিন প্লান্ট ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের সক্ষমতা দেখাবে। স্থানীয় সরকার খাতের যে আড়াই লাখ কিলোমিটার সড়কে পিচ নেই সেগুলো পিচের রাস্তায় রূপান্তর করা হলেও বিদেশ থেকে বিটুমিন আমদানির  প্রয়োজন হবে না। স্বয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার সুবাদে সড়ক নির্মাণে পরিবেশ উপযোগী মানসম্মত বিটুমিনের সহজপ্রাপ্যতা নিশ্চিত হবে। সাশ্রয় হবে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। অবকাঠামোগত উন্নয়ন জাতীয় অগ্রগতির চাবিকাঠি হিসেবে বিবেচিত হয়। সড়ক নির্মাণের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ উপাদান বিটুমিনের ক্ষেত্রে স্বয়ংসম্পূর্ণতা জাতীয় অগ্রগতির জন্য সুসংবাদ বলে বিবেচিত হওয়ার দাবি রাখে।


আপনার মন্তব্য