শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:৩৪

ওয়াল্ট হুইটম্যান

ওয়াল্ট হুইটম্যান

মার্কিন সংস্কৃতির প্রাণপুরুষ ভাবা হয় ওয়াল্ট হুইটম্যানকে। কে ছিলেন ওয়াল্ট হুইটম্যান। আমেরিকার এক দারিদ্র্যপীড়িত পরিবারে তাঁর জম্ম। বাবা ছিলেন গরিব ছুতার। ওয়াল্ট হুইটম্যান ছিলেন নয় ভাই-বোনের মধ্যে দ্বিতীয়। তাঁর বয়স যখন ৪ তখন বাবা তাঁকে পাঠিয়ে দেন মামাবাড়ি। সেখানে স্কুলে ভর্তি হন। স্কুলের বাঁধাধরা নিয়ম ভালো না লাগলেও পড়াশোনা করতে তাঁর ভালো লাগত। বই পেলেই পড়ে ফেলতেন। স্মৃতিশক্তিও ছিল অসম্ভব প্রখর। তার পরও ছোটবেলায় পড়াশোনা চালিয়ে যেতে পারেননি। মাত্র ১১ বছর বয়সে তাঁকে স্কুল ছাড়তে হয়। ওই বয়সে অফিসবয়ের কাজ নেন। দুই বছর পর ছাপাখানার চাকরিতে ঢোকেন। যেখানে ছাপা হতো পত্রিকা। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা মাত্র পাঁচ বছরের হলেও হুইটম্যান প্রতিটি পত্রিকা খুঁটিয়ে পড়তেন। এভাবেই তিনি অসামান্য জ্ঞানের অধিকারী হন। স্বশিক্ষিত হুইটম্যান একপর্যায়ে পত্রিকার সম্পাদকীয় বিভাগে কাজ পান। নিজ যোগ্যতায় সম্পাদক পদেও অধিষ্ঠিত হন। মাত্র ২৭ বছর বয়সে তিনি ডেইলি ঈগল নামের এক বিখ্যাত পত্রিকার সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন। হুইটম্যানের মানবিক চিন্তাধারার জন্য তাঁকে চাকরি হারাতে হয়। তিনি বিশ্বাস করতেন কালো-ধলা-পীত সব মানুষই অভিন্ন। সব মানুষই অভিন্ন সত্তার অধিকারী। তারা পরস্পরের ভাই। মানুষের সঙ্গে মানুষের বিভেদকে সমালোচনার চোখে দেখতেন হুইটম্যান।


আপনার মন্তব্য