শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:২৮

গুজব রুখতে হবে

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সতর্কতা কাম্য

Google News

দেশ-বিদেশ যেখান থেকেই হোক, গুজব ছড়ালে অপরাধীদের বিরুদ্ধে সরকার কঠোর ব্যবস্থা নেবে এমন তথ্য আগেই জানিয়েছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনি বলেছিলেন, দেশে যখনই কোনো বিশেষ বা দুর্যোগময় পরিস্থিতি তৈরি হয় তখন কিছু মানুষ গুজব সৃষ্টি করে। বিশেষত সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আতঙ্ক সৃষ্টি করে জনগণকে ভয়ার্ত করার অপচেষ্টা চালায়। একই সঙ্গে একটি মহল এ ধরনের গুজব তৈরি করে সরকারকেও বেকায়দা ফেলার অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকে। সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়গুলো গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে অনেকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যারাই এ কাজগুলো করবে তাদের বিরুদ্ধেই আইনানুগ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সরকার বদ্ধপরিকর। সম্প্রতি গ্রেফতার একজন হেফাজত নেতার ওপর নির্যাতনের কল্পিত তথ্য প্রচার করছে একটি মহল। ফেসবুকে পেজ খুলে নানা কিসিমের গুজব ছড়ানো হচ্ছে জনরোষ তৈরির মতলবে। নেতিবাচক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এসব খবরে কেউ কেউ বুঝে না বুঝেই সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা মন্তব্যও করছেন। নানা সময় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেশের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করার জন্য এমন গুজব সৃষ্টির অপচেষ্টা চালানো হয়। পুলিশ বলছে, সোশ্যাল মিডিয়ার ওপর তাদের কঠোর নজরদারি অব্যাহত রয়েছে। যারা গুজব ছড়িয়ে দেশকে অশান্ত করতে চায় কিংবা নেপথ্য থেকে মদদ দিচ্ছে তাদের প্রত্যেককে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে। ইতিমধ্যে তারা কয়েকজনকে শনাক্ত করতে পেরেছেন। ২০১৩ সালে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধাচরণকারী একটি দলের ক্যাডাররা বগুড়া, রাজশাহী, সাতক্ষীরাসহ বিভিন্ন অঞ্চলে ভয়াবহ নাশকতা সৃষ্টি করেছিল। তারাও ধর্ম নিয়ে রাজনীতিচর্চার মাধ্যমে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়ায়। সুতরাং দেশের সম্মান নষ্ট হয় এমন তৎপরতা দেশ-বিদেশ থেকে যে কোনো নাগরিক করলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নিতে হবে। এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে কঠোর এবং আরও সতর্ক হওয়া দরকার।