শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৯ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৮ আগস্ট, ২০২১ ২৩:১৮

টিকা নিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন

মুফতি রফিকুল ইসলাম আল মাদানি

টিকা নিন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন
Google News

রোগব্যাধি মানব জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ। মহান প্রভু মানুষকে সুস্থ রাখেন। তাঁর হুকুমে মানুষ অসুস্থ হয়। তিনিই সুস্থতা দান করেন। মুসলমানদের জন্য অসুস্থতা আল্লাহর পক্ষ থেকে একটি নিয়ামত। তিনি তাঁর প্রিয় বান্দার গুনাহের কাফফারা হিসেবে অথবা মানমর্যাদা বৃদ্ধির জন্য অসুস্থতা দিয়ে থাকেন। সাহাবি আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত, রসুলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, ‘মুসলমানের যে কোনো ধরনের রোগব্যাধি, দুঃখ-কষ্ট, চিন্তা-পেরেশানি এমনকি একটি কাঁটাও যদি ফোটে এর বিনিময়ে তার পাপসমূহ আল্লাহতায়ালা ক্ষমা করে দেন।’ বুখারি। অন্য হাদিসে তিনি বলেন, ‘আল্লাহর বান্দা যখন অসুস্থ হয় অথবা সফরে থাকে, তার জন্য ওইসব আমল লেখা হয় যা সে সুস্থ ও মুকিম অবস্থায় করে যেত।’ বুখারি, মুসলিম। একমাত্র আল্লাহর ইচ্ছা অনুসারেই মানুষ সুস্থতা ও অসুস্থতা লাভ করে থাকে। রোগের মধ্যে কোনো শক্তি বা ক্রিয়া করার নিজস্ব ক্ষমতা নেই। সাহাবি আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত, রসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, ‘রোগের সংক্রমণ ও শুভাশুভ বলতে কিছু নেই। শুভলক্ষণই আমার কাছে পছন্দনীয়। আর তা হলো উত্তম বাক্য।’ বুখারি। বর্তমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে রোগ সংক্রমণের বিষয়টা জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে যাচ্ছে। মোমিন মুসলমানের অন্তরেও নানামুখী প্রশ্নের অবতারণা হয়। এ বিষয়ে মহানবী (সা.) থেকে বর্ণিত কয়েকটি হাদিসকে ভিত্তি করে আরও সংশয় বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি বলেছেন, ‘কোনো এলাকায় যখন তোমরা প্লেগের প্রাদুর্ভাবের সংবাদ পাও তখন সে এলাকায় প্রবেশ কোর না। আর তোমরা যেখানে অবস্থান কর তথায় প্লেগের প্রাদুর্ভাব ঘটলে সেখান থেকে বেরিয়ে যেও না।’ বুখারি। এ ধরনের আরও কিছু হাদিস রয়েছে যা রোগ সংক্রমিত হওয়া এবং সংক্রমণ প্রতিরোধ ও প্রতিষেধক ব্যবস্থাকে সমর্থন করে। এ পরিসরে হাদিসবিশারদ ইমামদের সমাধান হলো- রোগের মধ্যে সংক্রমণ নেই, মানে হলো রোগ স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংক্রমিত হতে পারে না। আল্লাহ যাকে চান তার মধ্যে সংক্রমিত হতে পারে। আরও বাস্তবতার সঙ্গে বলতে গেলে আল্লাহতায়ালা অনেক বস্তুর মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন ক্রিয়া করার ক্ষমতা প্রদান করেছেন। আগুনের মধ্যে জ্বালানোর ক্রিয়া আল্লাহ-প্রদত্ত। তবে আল্লাহর নির্দেশ না থাকায় ইবরাহিম (আ.)-কে জ্বালাতে সে আগুন অক্ষম ছিল। এমনিভাবে কিছু রোগের মধ্যে আল্লাহতায়ালাই সংক্রমণের ক্রিয়া প্রদান করেছেন। রোগের মধ্যে নিজস্ব কোনো ক্ষমতা নেই। আল্লাহ চাইলে রোগাক্রান্ত হবে, নতুবা হবে না। এজন্যই দেখা যায় রোগীর সংস্পর্শে যাওয়ার পরও অনেকে সংক্রমিত হয় না। জনৈক গবেষকের তথ্যমতে কোনো রোগ প্রকৃতপক্ষে সংক্রমিত হয় না। রোগ সংক্রামক জীবাণু একজন থেকে অন্যজনে ছড়িয়ে পড়ে। এ জীবাণু আল্লাহর নির্দেশক্রমে রোগ উৎপন্ন করতে পারে। অসুস্থ হলে চিকিৎসা গ্রহণের প্রতি ইসলামের গুরুত্ব অপরিসীম। সঠিকভাবে আল্লাহর ইবাদত করার জন্য সুস্থতার খুব প্রয়োজন। মহানবী (সা.) নিজে চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন। বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা পদ্ধতি বলে দিয়েছেন। চিকিৎসার প্রতি উৎসাহ দিয়েছেন, অনুপ্রাণিত করেছেন। রসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, ‘তোমরা রোগের চিকিৎসা কর। আল্লাহতায়ালা মৃত্যু ছাড়া সব রোগের আরোগ্যতা রেখেছেন।’ আহমদ। তাই চলমান মহামারী করোনাভাইরাসের টিকা নিন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

লেখক : গবেষক, ইসলামিক রিসার্চ সেন্টার, বসুন্ধরা, ঢাকা।