Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:২৪

জরুরি দরজা ভাঙল নতুন বিমান ড্রিমলাইনারের

নিজস্ব প্রতিবেদক

জরুরি দরজা ভাঙল নতুন বিমান ড্রিমলাইনারের

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ‘আকাশবীণা’ ড্রিমলাইনার ৭৮৭-এর র‌্যাফট (জরুরি দরজার অংশবিশেষ) ভেঙে গেছে। উদ্বোধনের মাত্র ছয় দিনের মাথায় অত্যাধুনিক এই নতুন উড়োজাহাজের র‌্যাফট ভেঙে ফেলায় তোলপাড় শুরু হয়েছে বিমানে। অদক্ষ প্রকৌশলীর ভুল অপারেশনে র‌্যাফট ভেঙে পড়ে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। গতকাল সকালে এ ঘটনা ঘটে। এতে করে দেড় ঘণ্টা দেরিতে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ে ড্রিমলাইনার। বিমানের সেই প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমানকে তত্ক্ষণাৎ সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিমানের প্রকৌশল শাখার পরিচালক সাজ্জাদুর রহমান বলেছেন, এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। দায়ী যেই হোক কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্যাপ্টেন মোসাদ্দিক আহমেদ জানান, এই ঘটনায় যে বা যারাই দায়ী হবে তাদের বাড়ি পাঠানো হবে। কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না। তবে এ পার্টসটি লন্ডনে পাওয়া গেছে। তিন দিনের মধ্যে তা এনে সংযুক্ত করা হবে। বিমানের একটি সূত্র জানায়, বিমানটি জরুরি অবতরণের পর জরুরি দরজা খোলার সঙ্গে সঙ্গে বাইরের দিকে বেলুনের মতো একটি স্লাইডিং সিঁড়ি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বেরিয়ে আসে। যেখানে যাত্রীরা লাফিয়ে পড়ে উড়োজাহাজের বাইরে বেরিয়ে আসতে পারে। সেটাকেই র‌্যাফট বলা হয়। আর এই র‌্যাফট একবার ব্যবহারযোগ্য। দরজা থেকে ভেঙে নিচে পড়ে যাওয়ায় এটি আর ব্যবহার করা যাবে না। প্রকৌশল শাখার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ৮টায় ড্রিমলাইনার দিয়ে সিঙ্গাপুর ফ্লাইট করার প্রস্তুতি চলছিল। এটি বোর্ডিং ব্রিজে সংযুক্ত অবস্থায় বিএফসিসি থেকে যাত্রীদের জন্য ড্রিমলাইনারে খাবার তোলা হচ্ছিল। এ সময় প্রকৌশল বিভাগের মোস্তাফিজুর রহমান হঠাৎ দরজা অন করতে গিয়ে ভুল বাটনে চাপ দেন। এতে আসল দরজা না খুলে ইমারজেন্সি ডোরের র‌্যাফট ভেঙে পড়ে যায়। এতে উপস্থিত সবাই ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে যান। তারা এটি ধামাচাপা দেওয়ার জন্য ম্যানুয়ালি জোড়াতালি দিয়ে লাগানোর চেষ্টা করেন। কিন্তু ব্যর্থ হওয়ার পর বিষয়টি ফাঁস হয়। এর পর অন্য প্রকৌশলীরা গিয়ে রাফট সংগ্রহ করে নিয়ে যায় প্রকৌশল বিভাগে। তারা সিঙ্গাপুর ফ্লাইট বিলম্বে হলেও অপারেট করার সিদ্ধান্ত দেন। প্রকৌশল বিভাগ নিশ্চিত করে রাফট ছাড়াই ড্রিমলাইনার দিয়ে ফ্লাইট অপারেট করা সম্ভব হবে। এটা দেখতে দৃষ্টিকটু লাগলেও নিরাপত্তা হুমকি নেই। বিমানের একজন কর্মকর্তা জানান, এ ঘটনায় নির্দিষ্ট সময়ের দেড় ঘণ্টা পর সিঙ্গাপুর ফ্লাইট ঢাকা ছেড়ে যায়। ওই ফ্লাইটের যাত্রী মামুন বলেন, অনেক শখ করে শুধু ড্রিমলাইনারে চড়ার জন্য সিঙ্গাপুর যাচ্ছিলাম। কিন্তু এটা কল্পনাও করতে পারিনি এমন একটা নতুন ফ্লাইটের দরজা ভেঙে যাবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর