শিরোনাম
বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩ ০০:০০ টা
বিএনপির জোয়ার ভাটায় নেমে এসেছে : কাদের

দিনভর রাজপথে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

দিনভর রাজপথে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা

বিএনপিসহ তাদের সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মসূচি ঘিরে রাজপথে গতকালও সক্রিয় ছিলেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। তবে ক্ষমতাসীন দলটির নেতা-কর্মীরা পাল্টাপাল্টি সমাবেশ মানতে নারাজ। গতকাল সকালে ২৩ বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে গণ অভ্যুত্থান দিবস উপলক্ষে সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এতে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ ছাড়াও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। সকাল থেকে শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠানে দুপুরে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘বিএনপি এখন পথহারা পথিকের মতো। তাদের আন্দোলনের ঢেউ এসেছিল। এখন জোয়ার থেকে ভাটায় নেমে গেছে। খেলা এখনো শুরু করিনি। খেলা শুরু করলে কোথায় যাবেন? এটা পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি নয়। এটা গণ অভ্যুত্থানের কর্মসূচি। বিএনপি এসব দিবস পালন করে না। আওয়ামী লীগের কর্মসূচিতে বিএনপির কেন অন্তর্জ্বালা?’ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফির সভাপতিত্বে এতে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য সানজিদা খানম, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, সহসভাপতি নুরুল আমিন রুহুল, ডা. দিলীপ রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম আশরাফ তালুকদার, আকতার হোসেন, দফতর সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ প্রমুখ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির নেতারা বাকশালের সমালোচনা করেন। বাকশালটা কী? বাংলাদেশ কৃষক-শ্রমিক আওয়ামী লীগ। বাকশাল কিন্তু এক দল নয়। বাকশাল হচ্ছে জাতীয় দল। সব দলকে নিয়ে, সব মতকে নিয়েই বাকশাল। লজ্জা করে না, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর কাছে আবেদন করে বাকশালের সদস্য হয়েছিলেন? ডকুমেন্ট আমাদের কাছে আছে।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের থানা-ওয়ার্ড কমিটিগুলো দ্রুত দিয়ে দেওয়ার তাগিদ দেন ওবায়দুল কাদের। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে এক জায়গায় বসার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘একজন বসবেন, আরেকজন না থাকলে অসুস্থ হয়ে যাবেন। এটা হবে না। দুজন বসে কমিটিগুলো করেন। সামনে নির্বাচন। গণসংযোগ করতে হবে। সদস্য সংগ্রহ অভিযান করতে হবে। তাই এ বিষয়ে নজর দিতে হবে। এটা নেত্রীর নির্দেশ।’ কাদের বলেন, ইউনিট কমিটি এই প্রথম হয়েছে। সে কারণে নেতা-কর্মীদের মধ্যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে ওয়ার্ড-থানা কমিটিও করতে হবে।

নাকে খত দিয়ে বিএনপি নির্বাচনে আসে কি না দেখার অপেক্ষায় আছি : বিকালে রাজধানীর বনানী মডেল স্কুল মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। অনুষ্ঠানে তিনি ৪ হাজার গরিব মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন। শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সংবিধানের বাইরে তত্ত্বাবধায়কের নামে কোনো অস্বাভাবিক সরকার আওয়ামী লীগ মানে না, মানবে না। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন যথাসময়ে নির্বাচন কমিশনের অধীনে অনুষ্ঠিত হবে। সময় কারও জন্য অপেক্ষা করে না। নাকে খত দিয়ে বিএনপি নির্বাচনে আসে কি না তা দেখার অপেক্ষায় আছি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুলসহ বিএনপি নেতাদের উদ্দেশ করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সরকারের পতন নয়, আন্দোলন ও নির্বাচনে ব্যর্থ আপনাদেরই পদত্যাগ দাবি করবে আপনাদের নেতা-কর্মীরা।’ তিনি বলেন, ‘সারা দেশে আওয়ামী লীগ সুসংগঠিত। কিন্তু আমরা নেত্রীর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন। কারণ এ বীরের দেশে বিশ্বাসঘাতকের অভাব নেই। আজকে বিএনপি ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছে। বিশ্বাসঘাতকদের যোগসাজশ না থাকলে তারা কোনো দিন সফল হবে না, হতে পারবে না।’ ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি। বক্তব্য রাখেন সহসভাপতি ওয়াকিল উদ্দিন, মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শবনম জাহান, ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাগর আহমেদ শামীম প্রমুখ।

যাত্রাবাড়ীতে যুবলীগ দক্ষিণের সমাবেশ : সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত যাত্রাবাড়ীতে সমাবেশ করে যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ। এতে মহানগরের সহসভাপতি কামাল উদ্দিন খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ, মনজুরুল আলম শাহীন, উপ-ধর্ম সম্পাদক হরে কৃষ্ণ বৌদ্দ, মহানগরের সহসভাপতি সোহরাব হোসেন স্বপন, আবু সাঈদ মোল্লা, সৈয়দ আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বকুল, গাজী সরোয়ার হোসেন বাবু, মাকসুদুর রহমান মাকসুদ, কাজী ইব্রাহিম খলিল মারুফ, অর্থ সম্পাদক ফিরোজ উদ্দিন আহমেদ সায়মন, দফতর সম্পাদক এমদাদুল হক এমদাদ, উপদফতর সম্পাদক খন্দকার আরিফুজ্জামান আরিফ প্রমুখ।

মহাখালীতে যুবলীগ উত্তরের সমাবেশ : ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুলের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন কেন্দ্রীয় যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম বদি, ত্রাণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন পাভেল, মহানগরের সহসভাপতি আকতারুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর রহমান, সিদ্দিক বিশ্বাস, দফতর সম্পাদক কামরুজ্জামান কামরুল, ক্রীড়া সম্পাদক সেলিম মৃধা, শামসুল আলম খান ফারুক প্রমুখ।

মৎস্য ভবনে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সমাবেশ : বিএনপি-জামায়াতের নাশকতাচেষ্টা ও জনমনে ভীতি সৃষ্টির প্রতিবাদে সকাল ১০টা থেকে রাজধানীর মৎস্য ভবনের সামনে আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগ শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচি পালন করে। এ সময় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহসভাপতি তানভীর সাকিল জয় এমপি, সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি কামরুল হাসান রিপন, সাধারণ সম্পাদক তারিক সাঈদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অবস্থান কর্মসূচি শেষে বিক্ষোভ মিছিল করে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। মিছিলটি শিল্পকলা একাডেমির গেট থেকে মৎস্য ভবন হয়ে রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

 

সর্বশেষ খবর