২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ১৬:৪৯

বসুন্ধরা চক্ষু হাসপাতালে নিখরচায় ৪৮ জনের অপারেশন

অনলাইন ডেস্ক

বসুন্ধরা চক্ষু হাসপাতালে নিখরচায় ৪৮ জনের অপারেশন

সংগৃহীত ছবি

বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটে নিখরচায় গরিব-দুস্থ ৪৮ জনের চোখের ছানি, মাংস বৃদ্ধি ও নেত্রনালির অপারেশন করা হয়েছে।

বুধবার ও বৃহস্পতিবার (২৮-২৯ ফেব্রুয়ারি) বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সাবরিনা সোবহান রোডে অবস্থিত বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউট ও ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে দিনব্যাপী এ ফ্রি অপারেশন অনুষ্ঠিত হয়।

বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের অবৈতনিক পরিচালক ও ভিশন কেয়ার ফাউন্ডেশনের সভাপতি প্রফেসর ডা. মো. সালেহ আহমদের তত্ত্বাবধানে সার্জারিতে অংশ নেন ডা. অ্যান্থনি অ্যালবার্ট, ডা. মজুমদার গোলাম রাব্বি ও  ডা. আক্তার ফেরদৌসি জাহান।

বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ১৮ পুরুষ ও ৩০ নারীর অপারেশন করা হচ্ছে। যার মধ্যে ৪৪ জনের চোখের ছানি, এক জনের মাংস বৃদ্ধি অপারেশন ও তিনজনের নেত্রনালির অপারেশন হয়েছে।

১২ থেকে ১৪ বছর ধরে চোখের সমস্যায় ভুগছিলেন দর্জির কাজ করা মাসিদুল হক (৭৪)। চাঁপাইনবাবগঞ্জ রানিহাটি ইউনিয়নের এ বাসিন্দা বলেন, মঙ্গলবার আমার ডান পাশের চোখের ছানি অপারেশন হয়েছে। এখন ভালো লাগছে। অপারেশনে আমার কোনো টাকা খরচ হয়নি।

মাসিদুল আরও বলেন, আমার মতো হাজার হাজার মানুষ টাকার অভাবে চোখের অপারেশন করতে পারে না। আমি গরিব মানুষ, আমার চিকিৎসা করানোর মতো অবস্থা নেই। আমি বসুন্ধরা গ্রুপের মালিকের প্রতি আন্তরিকভাবে কৃতজ্ঞ। চিকিৎসকদেরও ধন্যবাদ জানাই। আমি তাদের সবার জন্য দোয়া করি, আল্লাহ তাদের আখেরাতে ও পরকালে ভালো করুক।

কৃষ্ণগোবিন্দপুরের বাসিন্দা মো. উজির (৬৬) বিনামূল্যে চোখের ছানি অপারেশন করাতে এসেছেন। এই ভ্যানচালক আর্থিকভাবে স্বচ্ছ না হওয়ায় চোখের চিকিৎসা করাতে পারছিলেন না। যে কারণে দীর্ঘদিন ধরে চোখের সমস্যায় ভুগছিলেন। উজির বলেন, চোখে ঝাপসা দেখি। এমনকি ভালো করে কারও চেহারাও বুঝতে পারি না। ডাক্তার বলছেন, আমার ছানি অপারেশন তারা বিনামূল্যে করিয়ে দেবেন। আমি গরিব মানুষ, আমার চিকিৎসা করানোর মতো অবস্থা নেই। আমি বসুন্ধরা গ্রুপের মালিকসহ ডাক্তারদের জন্য দোয়া করি, তারা আমার জন্য এই ব্যবস্থা করেছেন।

বসুন্ধরা আই হসপিটাল অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের ম্যানেজার এইচআর অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের মো. আহসান হাবীব বলেন, গরিব-দুস্থ ও অন্ধ রোগীদের চক্ষু চিকিৎসার সাহায্যার্থে এ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দুস্থদের সেবায় আগে থেকেই এ ধরনের প্রক্রিয়া চলে আসছে। সারা দেশে বিনামূল্যে এ ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। ক্যাম্পের মাধ্যমে প্রায় ২৯৫৪ জনেরও বেশি রোগীকে বিনামূল্যে অপারেশন করা হয়েছে। এ ক্যাম্পটি ১৬ ফেব্রুয়ারি চাপাইনবাবগঞ্জের কৃষ্ণগোবিন্দপুর ডিগ্রি কলেজে অনুষ্ঠিত হয়। সেখানকার ৪৮ জন রোগীর এ অপারেশন করা হচ্ছে। ১২০০ রোগী দেখে ৪২০ জন রোগী বাছাই করা হয়। বাকিদের পর্যায়ক্রমে চিকিৎসা করা হবে। ভবিষ্যতে আর্ত মানবতার সেবায় আমাদের এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর