শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ মে, ২০১৯ ২৩:৩৮

সিলেটে ইফতারিতে সেরা খিচুড়ি

শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

সিলেটে ইফতারিতে সেরা খিচুড়ি

নানা পদের খাবার দিয়ে পরিবারের সব সদস্য এক টেবিলে বসে ইফতার করার রেওয়াজ সিলেটের ঐতিহ্যের একটি অংশ। এই ঐতিহ্যের আরেকটি অংশ হচ্ছে ইফতারে ‘নরম খিচুড়ি’ থাকা। বাহারি আইটেমের মাঝে তাই রাজত্বটা থাকে এই ‘নরম খিচুড়ি’র।

ইফতারে যত বাহারি পদ থাকুক না কেন ‘নরম খিচুড়ি’ না থাকলে সিলেটবাসীর ইফতারই যেন থেকে যায় অসম্পূর্ণ। শত শত বছর ধরে সিলেটের মানুষ এই পদটি দিয়ে তাদের ইফতার করে আসছেন। সিলেট বিভাগ ছাড়া দেশের অন্য কোথাও এরকম খিচুড়ি দিয়ে ইফতার করার প্রচলন খুব একটা নেই। সারা দিন রোজা থাকার পর নরম খিচুড়ি দিয়ে  ইফতার করা স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। রমজানে সিলেটে প্রতিটি ঘরে ইফতার হিসেবে রান্না করা হয় নরম খিচুড়ি। সুগন্ধি চিকন চালের সঙ্গে ঘাওয়া ঘি, কালিজিরা ও মেথিসহ নানাজাতের মসল্লা দিয়ে রান্না করা হয় এ খিচুড়ি। অনেকে স্বাদে ভিন্নতা আনার জন্য খিচুড়িতে শাক ও সবজি দিয়ে থাকেন। কেউ কেউ ইফতারে শুধু খিচুড়ি খেয়ে থাকেন।

আবার কেউ কেউ খিচুড়ির সঙ্গে মাংস, তরকারি ও ছোলা মিশিয়ে খান। তবে যেভাবেই খাওয়া হোক না কেন- ইফতারের সময় সিলেটীদের পাতে নরম খিচুড়ি চাই-ই। বাসা-বাড়ি ছাড়া মসজিদ, মাদরাসাসহ বড় বড় ইফতার মাহফিলেও রান্না করা হয় এরকম খিচুড়ি। এক সময় শুধু বাসা-বাড়িতেই তৈরি হতো এই নরম খিচুড়ি। এখন এর ব্যাপ্তি ঘটেছে রেস্টুরেন্ট ও ইফতারির দোকানগুলোতেও। যারা বাসা-বাড়িতে  তৈরি করার সময় পান না তারা ইফতারির জন্য কিনে নেন বাজার থেকে। তাই দিন দিন ইফতারির আয়োজনে বেড়েই চলছে এর কদর।

ডা. রেদওয়ান আফরোজ জানান, রমজানে সারা দিন অভুক্ত থাকার পর খিচুড়ির মতো নরম খাবার খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এতে বুক জ্বালাপোড়া, অ্যাসিডিটি ও হজমের সমস্যা হওয়ার আশঙ্কা থাকে না।


আপনার মন্তব্য