শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:২৬

শেয়ারবাজার স্থিতিশীলতায় ৬ সিদ্ধান্ত

প্রধানমন্ত্রী ডেকে কথা বললেন সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে, বিনিয়োগ করবে চার সরকারি ব্যাংক

নিজস্ব প্রতিবেদক

শেয়ারবাজার স্থিতিশীলতায় ৬ সিদ্ধান্ত

শেয়ারবাজার স্থিতিশীলতার জন্য নতুন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বাজারে স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে গতকাল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে একটি বৈঠক হয় । এতে শেয়ারবাজারকে গতিশীল ও উন্নয়নের লক্ষ্যে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি কর্মসূচি নেওয়া হয়। এসব কর্মসূচি দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য ছয়টি সিদ্ধান্তের কথা বৈঠকে জানানো হয়।

গত কয়েক দিনের ভয়াবহ ধস থেকে শেয়ারবাজারকে টেনে তুলতে করণীয় নিয়ে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) কর্মকর্তাদের সঙ্গে ওই বৈঠক হয়। জানা গেছে, শেয়ারবাজারে গত কয়েক দিনের ভয়াবহ ধসের কারণ ও স্থিতিশীলতা আনতে করণীয় নিয়ে বিএসইসি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বিএসইসি চেয়ারম্যান খায়রুল হোসেনসহ কমিশনাররা অংশ নেন। বৈঠকে বাজার অস্থিরতা নিয়ে আলোচনা করা হয়। শেয়ারবাজারে স্থিতিশীলতা ফেরাতে করণীয় জরুরি ছয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এসব সিদ্ধান্তে স্বল্পমেয়াদি কিছু পদক্ষেপ অচিরেই বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসমূহকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।  পদক্ষেপের মধ্যে রয়েছে- শেয়ারবাজারে ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করা, মার্চেন্ট ব্যাংকার ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য কতিপয় সহজ শর্তে ঋণ সুবিধার ব্যবস্থা করা, আইসিবির বিনিয়োগ সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ, বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করা ও দেশি বাজারে আস্থা সৃষ্টি করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগ বৃদ্ধির লক্ষ্যে উদ্যোগ গ্রহণ এবং বাজারে মানসম্পন্ন আইপিও বৃদ্ধির লক্ষ্যে বহুজাতিক ও সরকারি মালিকানাধীন লাভজনক কোম্পানিসমূহকে তালিকাভুক্তকরণের উদ্যোগ গ্রহণ। এ ছাড়া পর্যায়ক্রমে দীর্ঘমেয়াদি সমস্যাসমূহ চিহ্নিত করে সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে সভায় আলোচনা হয়। সপ্তাহের শেষ দিনে এসে শেয়ারবাজার সূচকে বড় উত্থান হয়েছে। গতকাল ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেনে সূচক ডিএসইএক্স ৮১ পয়েন্ট বেড়েছে। সপ্তাহের শেষ দিনে গতকাল ডিএসইর মূল্যসূচক ডিএসইএক্স ৮২ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ১৫০ পয়েন্ট। টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ২৬৭ কোটি ৪৯ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট, যা আগের দিন থেকে ২৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকা বেশি। ডিএসইতে ৩৫৩টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৯৪টির বা ৫৫ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ১১২টির বা ৩২ শতাংশের এবং ৪৭টি বা ১৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে। অন্য শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৩০ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৬২৩ পয়েন্টে। সিএসইতে হাতবদল হওয়া ২১৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১০৫টির, কমেছে ৮৪টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৮টির দর। সিএসইতে ৮ কোটি ৬৩ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

বিনিয়োগ করবে সরকারি চার ব্যাংক : স্থিতিশীলতা আনতে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ করবে সরকারি চার ব্যাংক। চলমান অস্থির অবস্থা কাটিয়ে ওঠার জন্য নিয়মিত বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ব্যাংকগুলো। গতকাল রাজধানীর মতিঝিলে সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সরকারি চার বাণিজ্যিক ব্যাংকের পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ত্রৈমাসিক বৈঠকে বিনিয়োগের তথ্য জানানো হয়েছে। বৈঠকে সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংকের চেয়ারম্যান এবং এমডিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকসূত্রে জানা গেছে, সভায় অন্যান্য নিয়মিত বিষয়ে আলোচনার পাশাপাশি শেয়ারবাজারে বিনিয়োগের বিষয়টি গুরুত্বসহকারে উঠে আসে। সবাই শেয়ারবাজারের চলমান মন্দাবস্থা কাটাতে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ ছাড়া দু-একটি ব্যাংক ইতিমধ্যে বিনিয়োগ শুরু করেছে বলেও বৈঠকে জানানো হয়।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর