শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০৪

সৌদি প্রবাসীদের বিক্ষোভ অব্যাহত

ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কোথায় যাব, কী খাব

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কোথায় যাব, কী খাব
রাজধানীতে গতকাল বিক্ষোভ করেন সৌদি প্রবাসীরা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে ফ্লাইটের টিকিট, স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভিসা ও আকামার মেয়াদ বৃদ্ধির দাবিতে বিক্ষোভ করছেন প্রবাসী কর্মীরা। গতকাল সকাল ১০টার দিকে কারওয়ান বাজারে রাস্তা অবরোধ করে সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস কার্যালয়ের সামনে এই বিক্ষোভ করেন তারা। এতে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেলে পুলিশ তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়। এরপর বিক্ষোভকারী প্রবাসীদের একাংশ প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়, আরেকাংশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দিকে চলে যান। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সামনে তারা অবস্থান নেন।

বিক্ষোভকারীরা বলছেন, ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে আমরা কোথায় যাব, কী খাব? করোনা পরিস্থিতিতে আমরা দেশে এসে আটকে গেছি। এখন বিদেশে যাওয়ার টিকিট পাচ্ছি না। আবার ওখানে গিয়ে থাকার নিশ্চয়তা নেই। সব মিলিয়ে খুব খারাপ পরিস্থিতিতে আছি আমরা। এখানে একটা নির্দিষ্ট সিরিয়াল দিয়ে রাখা হয়েছে। সিরিয়ালের যে লোকগুলো অফিসের ভিতরে যাচ্ছে, তাদের হিসাব আলাদা। কিন্তু যারা এখন পর্যন্ত সিরিয়াল পাননি, তাদের ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা দিচ্ছে না। সৌদিফেরত কবির আহমেদ বলেন, আমি গত মার্চে বাড়িতে এসেছি। এখন সৌদি আরবে যেতে পারছি না। আবার সেখানে গিয়ে চাকরি পাব কিনা, তার নিশ্চয়তা নেই। ভিসার মেয়াদ নেই। ভিসার মেয়াদ না বাড়ালে কই যাব, কী খাব? এ সমস?্যার সমাধানে সরকারকে এগিয়ে আসতে হবে। জয়নাল নামে একজন বলেন, ধার-দেনা করে বিদেশে গিয়েছিলাম। করোনার কারণে দেশে এসেছি। এখন ভিসার মেয়াদ নেই। সরকার যদি ওই দেশের সঙ্গে আলাপ করে মেয়াদ বাড়ানোর ব্যবস্থা করতে পারে, তাহলে আমাদের অনেক উপকার হয়।

কামাল হোসেন নামে একজন বলেন, সবার কফিল (মালিক) এক না। সঠিক সময়ে যেতে না পারলে চাকরিতে রাখবে না। তখন পথে বসতে হবে। পাঁচ দিন ধরে এখানে আছি। এখনো টিকিট পাইনি। রিয়াত মজুমদার বলেন, আমরা বিদেশে গিয়ে তো সরকারের জন্য অনেক কিছুই করলাম। সরকার আমাদের জন্য কিছু করুক। ওই দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে আমাদের সমস্যাগুলো সমাধান করুক। শাহ জালাল মিয়া বলেন, পাঁচ দিন ধরে ঢাকায় আছি। তারা একবার বলে ১ তারিখ টোকেন দেবে; আরেকবার বলে ৪ তারিখে দেবে। সৌদি দূতাবাস অনুমোদিত তানজুম কনসালটেন্সি সার্ভিসের ভিসা কনসালটেন্ট হাবিব উল্লাহ বলেন, আমাদের কাছে দূতাবাস থেকে কোনো নির্দেশনা আসেনি। যার কারণে আমরা এখনো কোনো কার্যক্রম শুরু করিনি।

মিডল ইস্ট কনসালটেন্সির ভিসা কনসালটেন্ট মো. শামীম বাংলা বলেন, ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে সৌদির এখনো কোনো নির্দেশনা নেই। আমরা কোনো প্রবাসীর আবেদন গ্রহণ করছি না। জানা গেছে, ছুটিতে এসে আটকে পড়া সৌদি আরব প্রবাসীদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধি নিয়ে এখনো কোনো আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়নি। যদিও সৌদি আরব আকামার মেয়াদ ২৪ দিন বাড়িয়েছে, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর রবিবার প্রবাসীরা সৌদি দূতাবাসে গিয়ে হাজির হন। দূতাবাস থেকে প্রবাসীদের জানানো হয়, আবেদন করতে হবে নির্ধারিত ৩১ ভিসা এজেন্সির মাধ্যমে। অন্যদিকে ভিসা সেন্টারগুলো বলছে, তাদের কাছে দূতাবাসের কোনো নির্দেশনা এখনো আসেনি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর