শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ২৩:৩৮

রোহিঙ্গাদের অবৈধ পাসপোর্ট ঠেকাবে ইলেকট্রনিক কৌশল

ই-পাসপোর্টের যাত্রা শুরু পার্বত্যসহ ছয় জেলায়

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও চট্টগ্রাম

ই-পাসপোর্টের যাত্রা হলো তিন পার্বত্যসহ ছয় জেলায়। গতকাল খাগড়াছড়ি আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে খাগড়াছড়ি, রাঙামাটি, বান্দরবান, কক্সবাজার, চাঁদপুর ও নারায়ণগঞ্জ জেলায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। পাসপোর্ট সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ই-পাসপোর্ট সেবা চালু হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, পাসপোর্ট অফিসে এসে যেন কাউকে হয়রানির শিকার হতে না হয় বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। এখন থেকে বাসায় বসে ই-পাসপোর্ট করা যাবে।

এদিকে কক্সবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে রোহিঙ্গা ও অবৈধ বসবাসকারীরা দালালের মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরেই নানা কৌশলে ভুয়া নাম-ঠিকানায় পাসপোর্ট বানিয়ে আসছে। এসব ঠেকাতে বিকল্প হিসেবে কাজ দেবে ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট বা ই-পাসপোর্ট। ই-পাসপোর্টের উপ-প্রকল্প পরিচালক শাহ মো. ওয়ালি উল্লাহ বলেন, ‘কক্সবাজার ও পার্বত্য অঞ্চলের তিন জেলায় ই-পাসপোর্টের যাত্রা হয়েছে গতকালই। ই-পাসপোর্টের কারণে ভুয়া নাম-ঠিকানার ব্যবহার বন্ধ হয়ে যাবে। বিভিন্নভাবে এনআইডি ও জন্মনিবন্ধন দিয়ে ই-পাসপোর্ট করলে তার সব প্রমাণ স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ধরা পড়বে। ফলে অনিয়ম ও জালিয়াতির কোনো সুযোগ নেই বললেই চলে।’ তবে দিন দিন ই-পাসপোর্ট ব্যবহারের চাহিদাও বাড়ছে বলে জানান তিনি। ১ লাখ লোক ই-পাসপোর্ট হাতে পেয়েছে : খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি জানান, ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের আওতায় সারা দেশে ১ লাখ লোক ই-পাসপোর্ট হাতে পেয়েছে। ৬৪ জেলার মধ্যে ৭২টি পাসপোর্ট আঞ্চলিক অফিস ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। গতকাল খাগড়াছড়ি আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ছয় জেলায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন। মন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, হেফাজতে ইসলাম নিজেরা নিজেরাই মামলা করেছে। বিচার বিভাগ স্বাধীন। বিচার বিভাগই এ মামলা দেখবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বাংলাদেশের সম্পদ। এ ভাস্কর্য রক্ষা সব নাগরিকের দায়িত্ব। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন খাগড়াছড়ির এমপি কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা ও বাসন্তী চাকমা, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা ও সেবা বিভাগের সচিব মো. শহিদুজ্জামান, ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আইয়ুব চৌধুরী, ই-পাসপোর্ট প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুর রহমান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ^াস, খাগড়াছড়ির গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার মো. শাহরিয়ার জামান, পুলিশ সুপার মো. আবদুল আজিজ প্রমুখ।

রাঙামাটি প্রতিনিধি জানান, রাঙামাটিতে ই-পাসপোর্টের যাত্রা হয়েছে। গতকাল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এ সময় রাঙামাটি আঞ্চলিক পাসপোর্ট কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন রাঙামাটি পৌর মেয়র মো. আকবর হোসেন চৌধুরী, পাসপোর্ট অধিদফতরের উপপরিচালক শাহ অলিউল্লাহ, রাঙামাটি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মহসিন রোমান, রাঙামাটি পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মো. জাহিদুল হক প্রমুখ। জাহিদুল হক বলেন, ‘এ পাসপোর্ট বহির্বিশ্বে বাংলাদেশি পাসপোর্টের গ্রহণযোগ্যতা বৃদ্ধি করবে এবং পাসপোর্টের নিরাপত্তা অধিকতর নিশ্চিতকরণসহ ই-পাসপোর্টের মাধ্যমে বিদেশভ্রমণ ও ইমিগ্রেশন প্রক্রিয়া সহজ হবে।’

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, দেশে ই-পাসপোর্ট চালু হওয়ায় জঙ্গিবাদ ও বিদেশিদের তৎপরতা সহজেই রোধ করা সম্ভব হবে বলে মনে করছেন নারায়ণঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য এ কে এম শামীম ওসমান। তিনি বলেন, ‘জঙ্গিবাদের সঙ্গে যুক্তসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক বাংলাদেশের পাসপোর্ট ব্যবহার করে যেভাবে এ দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করে আসছিল, এখন ই-পাসপোর্টের মাধ্যমে তা খুব সহজেই রোধ করা সম্ভব হবে।’

গতকাল নারায়ণগঞ্জসহ ছয় জেলায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এ সেবা চালু করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান শামীম ওসমান। ফতুল্লার ভুঁইগড়ে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে এ কে এম শামীম ওসমানসহ আরও উপস্থিত ছিলেন পাসপোর্ট অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এ টি এম আবু আসাদ, অধিদফতরের ই-পাসপোর্টের অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালক কর্নেল জুলফিকার আলী, জেলা প্রশাসক মো. জসীম উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক মাহমুদুল হাসান, উপসহকারী পরিচালক মিজানুর রহমানসহ অন্য কর্মকর্তারা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর সংসদ সদস্য শামীম ওসমান নিজের ই-পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন।

চাঁদপুর প্রতিনিধি জানান, চাঁদপুরে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল খাগড়াছড়ি থেকে ভার্চুয়ালি কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। অনুষ্ঠানে চাঁদপুর আঞ্চলিক কার্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম, ই-পাসপোর্ট প্রকল্প অফিসার লেফটেন্যান্ট কর্নেল রায়হান তারিক, উপসহকারী পরিচালক মো. ছুফি উল্লাহ ও মো. মৃদুল ভূঁইয়া।

বান্দরবান প্রতিনিধি জানান, বান্দরবানে শুরু হয়েছে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম। এ সময় বান্দরবান আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে জুম মিটিংয়ে যুক্ত ছিলেন ঢাকার ই-পাসপোর্ট প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ হোসেন, চট্টগ্রাম পাঁচলাইশের আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপপরিচালক মাসুম হোসেন, বান্দরবান আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের উপসহকারী পরিচালক মো. সাকাওয়াত হোসাইন। সাকাওয়াত হোসাইন বলেন, খাগড়াছড়ি আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এ ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এর ফলে বান্দরবানে এখন থেকে ই-পাসপোর্ট ইস্যু করা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর