শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৪ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৪৪

মেলার শেষ দিন আজ

মোস্তফা মতিহার

মেলার শেষ দিন আজ
Google News

করোনা সংক্রমণের কারণে কাল সোমবার থেকে সারা দেশে এক সপ্তাহের লকডাউন। সে হিসেবে আজ বইমেলার শেষ দিন। গতকাল মেলার ১৭তম দিনে লেখক-পাঠক-প্রকাশকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল মেলা বন্ধ নাকি সচল থাকবে? আর লকডাউনের সংবাদ গণমাধ্যমে আসার পর বিকাল ৪টা পর্যন্ত গণমাধ্যমকে কিছুই জানাতে পারেনি বাংলা একাডেমি। ‘বল এখন সরকারের কোর্টে’ দায়সারা গোছের এমন মন্তব্য দিয়েই দায়িত্ব এড়ানোর চেষ্টা করছে বাংলা একাডেমি। তবে সন্ধ্যার আগে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যে মেলা বন্ধের আভাসই পাওয়া গেছে। বইমেলা বন্ধ হবে নাকি চলমান থাকবে সে সিদ্ধান্ত আজ মন্ত্রণালয়ের বৈঠকে নেওয়া হবে বলেও সূত্র জানান। তবে মেলা বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি বলে জানাল মন্ত্রণালয়। আর সরকার লকডাউন দিলে বইমেলা চালু থাকার কোনো সুযোগ নেই।

অন্যদিকে জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমেদ বলেন, ‘এখনো প্রজ্ঞাপন জারি হয়নি। রবিবার জারি হওয়া প্রজ্ঞাপনে মেলা বন্ধের সিদ্ধান্ত আসবে।’ অন্যদিকে সাংবাদিক ও প্রকাশকদের এড়িয়ে চলে নিজেদের দায় এড়ানোর চেষ্টা করেছেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হাবীবুল্লাহ সিরাজী ও মেলা পরিচালনা কমিটির সদস্যসচিব ড. জালাল আহমেদ। দুজনের কেউই গতকাল সারা দিন প্রকাশক ও সাংবাদিকদের ফোন রিসিভ করেননি। এমনকি মহাপরিচালক সারা দিনে অফিসেও আসেননি। প্রকাশকদের একাংশ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মিডিয়ার কল্যাণে লকডাউনের বিষয়ে সারা দেশের মানুষ জেনে গেলেও আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি সরকারের উচ্চপর্যায়ের দিকে ইঙ্গিত দিয়ে নিজেদের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি পেতে চাইছে। সোমবার এক সপ্তাহের লকডাউন শুরু হচ্ছে এমন সংবাদ গণমাধ্যমে প্রচার হওয়ার পরও বাংলা একাডেমি মেলা বন্ধের বিষয়ে এখনো আমাদের কিছু জানায়নি। তাদের এমন দায়িত্বহীনতায় আমরা রীতিমতো বিস্মিত। গতকাল ১৭তম দিনে মেলায় নতুন বই এসেছে ১৪৪টি। এ পর্যন্ত মেলায় নতুন বই এসেছে ২ হাজার ১১৩টি। এ ছাড়া গতকাল ছুটির দিনের মেলা উৎসবমুখর ছিল বইপ্রেমীদের আগমনে। স্টল ও প্যাভিলিয়নের বিক্রিও ছিল আশাব্যঞ্জক। সকালে তেমন ভিড় দেখা না গেলেও বিকাল গড়াতেই মানুষের ঢল দেখা যায়।

মনজুরুল আহসান বুলবুলের বই ‘দুই শ ছড়ার ঝিলিক’ : অনন্যা প্রকাশ করেছে সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুলের বই ‘দুই শ ছড়ার ঝিলিক’। বইটি পাওয়া যাচ্ছে মেলার ২২ নম্বর প্যাভিলিয়নে। আর মেলার পর পাওয়া যাবে বাতিঘর, পাঠক সমাবেশ, বেংগল বুকসসহ অন্যান্য বইয়ের দোকানে। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ।

এই বিভাগের আরও খবর