সোমবার, ২ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ টা

মৃত্যুর মিছিল থামছেই না

২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত ১৪ হাজার ৮৪৪, মৃত্যু ২৩১

নিজস্ব প্রতিবেদক

মৃত্যুর মিছিল থামছেই না

করোনাভাইরাস সংক্রমণে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না। ভাইরাসটির কারণে গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাণ গেছে আরও ২৩১ জনের, যা আগের দিনের চেয়ে ১৩ জন বেশি। মৃতের মোট সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০ হাজার ৯১৬ জনে। এর মধ্যে গত জুলাই মাসেই মারা যান ৬ হাজার ১৮২ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ হাজার ৫২৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৪ হাজার ৮৪৪ জনের দেহে সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৯.৯৭ শতাংশ। মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ লাখ ৬৪ হাজার ৩২৮ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১০ লাখ ৯৩ হাজার ২৬৬ জন।

এদিকে সংক্রমণ বৃদ্ধির পাশাপাশি নমুনা পরীক্ষা বাড়ায় গত জুলাইয়ে সর্বোচ্চ রোগী শনাক্ত হয়। এই এক মাসেই ১১ লাখ ৩১ হাজার ৯৬৭ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়। রোগী শনাক্ত হয় ৩ লাখ ৩৬ হাজার ২২৬ জন। অথচ চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত ছয় মাসে মোট রোগী শনাক্ত হয় ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৭৪৮ জন। জুলাইয়ের আগে সর্বোচ্চ ৮ লাখের মতো নমুনা পরীক্ষা হয় গত এপ্রিলে। রোগী শনাক্ত হয় ১ লাখ ৪৭ হাজার ৮৩৭ জন, যা এক মাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। অর্থাৎ নমুনা পরীক্ষা বেশি হলেই বাড়ছে শনাক্ত রোগী।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ১৩৯ জন ছিলেন পুরুষ ও ৯২ জন নারী। হাসপাতালে ২১৭ জন ও বাড়িতে ১৩ জন মারা যান। একজনকে মৃতাবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়। গত এক দিনে সর্বোচ্চ ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ঢাকা বিভাগে। এ ছাড়া ৫৩ জন চট্টগ্রাম, ৪৪ জন খুলনা, ১৮ জন রংপুর, ১৩ জন রাজশাহী, ১১ জন ময়মনসিংহ, ৯ জন সিলেট ও ৬ জন বরিশাল বিভাগে মারা গেছেন। বয়স বিবেচনায় মৃতদের মধ্যে ১২৭ জনই (৫৪.৯৭ শতাংশ) ছিলেন ষাটোর্ধ্ব। এ ছাড়া ৪৬ জন পঞ্চাশোর্ধ্ব, ৩৪ জন চল্লিশোর্ধ্ব, ১৯ জন ত্রিশোর্ধ্ব, ৩ জন বিশোর্ধ্ব ও ২ জনের বয়স ছিল ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে।

গত ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় সর্বোচ্চ শনাক্তের হার ছিল সিলেট বিভাগে ৩৮.৮২ শতাংশ। এ ছাড়া বরিশাল বিভাগে ৩৭.৩১ শতাংশ, ঢাকা বিভাগে ৩১.১২ শতাংশ, রংপুর বিভাগে ৩০.৩১ শতাংশ, চট্টগ্রাম বিভাগে ২৮.৯৬ শতাংশ, ময়মনসিংহ বিভাগে ২৭.৮৯ শতাংশ, খুলনা বিভাগে ২৬.৬৪ শতাংশ ও রাজশাহী বিভাগে ১৯ শতাংশ ছিল শনাক্তের হার।

এই রকম আরও টপিক