শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০২:১৬

ঢাবির ৬১০ শিক্ষার্থী সামাজিক উন্নয়নে মাঠে নামছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাবির ৬১০ শিক্ষার্থী সামাজিক উন্নয়নে মাঠে নামছেন

সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সমাজ সচেতনতা কার্যক্রম চালাতে মাঠে নামছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ৬১০ জন শিক্ষার্থী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন থেকে বৃত্তি পাওয়া এসব শিক্ষার্থী নিজ নিজ উপজেলা বা গ্রামে এ কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।

ঢাবির সাবেক শিক্ষার্থীদের সংগঠন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন ‘শিক্ষা ও সামাজিক উন্নয়নের জন্য বৃত্তি’ শিরোনামে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে ৭০৪ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করে। ২০১৭ সালে এ বৃত্তি পান আরও ৫৩০ জন শিক্ষার্থী। এ উপলক্ষে গতকাল ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সংগঠনটি। সেখানে জানানো হয়, আগামী চার বছরের জন্য এ বৃত্তি দেওয়া হয়েছে। প্রতিজন শিক্ষার্থী প্রতি মাসে আড়াই হাজার টাকা করে বৃত্তি পাবেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অসচ্ছল, শারীরিকভাবে পিছিয়ে পড়া, কিন্তু মেধাবী শিক্ষার্থীদের মধ্যে এ বৃত্তি দেওয়া হয়। তবে এ বৃত্তি পাওয়ার তিনটি শর্ত ছিল। প্রথমটি হচ্ছে বৃত্তিপ্রাপ্তদের ভালো মানুষ হতে হবে। দ্বিতীয়, তাদের শিক্ষাজীবনে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধের সময় তাদের নিজ নিজ এলাকায় গিয়ে সমাজ সচেতনতামূলক কার্যক্রম করতে হবে। আর তৃতীয়টি হচ্ছে, যারা বৃত্তি পাচ্ছেন তারা কর্মজীবনে প্রবেশের চার বছর পর নিজেরা একজন দরিদ্র শিক্ষার্থীর পড়াশোনার খরচ বহন করবেন।

 এখন তারা বৃত্তির আওতায় প্রতি মাসে আড়াই হাজার টাকা করে পাচ্ছেন। তারাও তখন একজন শিক্ষার্থীর জন্য প্রতি মাসে আড়াই হাজার টাকা করে খরচ করবেন।

এই শর্তের অংশ হিসেবে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৬১০ জন শিক্ষার্থী আগামী ২৫ থেকে ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত মোট ছয় দিন সামাজিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন। সংগঠনটির মহাসচিব রঞ্জন কর্মকার বলেন, ‘সমাজ উন্নয়নে ও সচেতনতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটি দায়বদ্ধতা অনুভব করে। সেই দায় থেকে খানিকটা মুক্ত হতেই আমাদের এই ছোট উদ্যোগ।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের যুগ্ম-মহাসচিব আমিনুর রহমান মাইকেল, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দীন আহমেদ, ড. তাপস পাল, কাজী মোয়াজ্জেম প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য