শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ জুলাই, ২০২১ ১১:৪০
আপডেট : ৭ জুলাই, ২০২১ ১২:২৩
প্রিন্ট করুন printer

নিউইয়র্কের ইতিহাসে দ্বিতীয় কৃষ্ণাঙ্গ মেয়র হচ্ছেন এরিক এডামস

যুক্তরাষ্ট্র প্রতিনিধি:

নিউইয়র্কের ইতিহাসে দ্বিতীয় কৃষ্ণাঙ্গ মেয়র হচ্ছেন এরিক এডামস
সংগৃহীত ছবি
Google News

নিউইয়র্ক সিটির মেয়র হিসেবে ডেমক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন যুদ্ধে জয়ী হলেন এরিক এডামস। বিশ্বের রাজধানী হিসেবে খ্যাত এবং যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম বৃহৎ সিটি নিউইয়র্কের ইতিহাসে এরিক এডামস হতে যাচ্ছেন দ্বিতীয় কৃষ্ণাঙ্গ মেয়র। এর আগে ১০৬তম মেয়র হিসেবে ১৯৯০ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেছেন প্রথম আফ্রিকান-আমেরিকান ডেভিড নরম্যান ডিনকিন্স। এরিক এডামস ছিলেন নিউইয়র্ক পুলিশের ক্যাপ্টেন। সেটি ছেড়ে ব্রুকলীন বরো প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে কয়েক বছর আগে। 

সে দায়িত্বে থেকেই ২২ জুনের ডেমক্র্যাটিক পার্টির প্রার্থী বাছাইয়ের নির্বাচনে অবতীর্ণ হন এবং ১২ জনকে হটিয়ে সর্বোচ্চ ভোটে তিনি চূড়ান্ত প্রার্থী হিসেবে গণ্য হন বলে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বোর্ড অব ইলেকশনের প্রাথমিক গণনা শেষে উল্লেখ করা হয়েছে। আগামী ২ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে চূড়ান্ত ব্যালট যুদ্ধ এবং সেখানে এরিক এডামসকে লড়তে হবে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী কার্টিস স্লিওয়ার বিরুদ্ধে। নিউইয়র্ক সিটির মোট ভোটারের ৭০% এর মত ডেমক্র্যাট হওয়ায় এরিক এডামসকে ঠেকিয়ে রাখা একেবারেই অসম্ভব বলে মনে করা হচ্ছে। এবারের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে ‘র‌্যাঙ্কড চয়েস ভোটিং সিস্টেম’-এ। অর্থাৎ একজন ভোটার একটি আসনে ৫ জন প্রার্থীকে পছন্দের ক্রমানুসারে ভোট দিয়েছেন। এজন্যেই গনণায় বিলম্ব ঘটলো। প্রবাসীদের বড় একটি অংশের সমর্থন ছিল এরিক এডামসের প্রতি। এজন্যে কমিউনিটিতে উল্লাস চলছে। 

২২ জুনের ঐ নির্বাচনে ডেমক্র্যাটিক পার্টির মনোনয়ন যুদ্ধে সিটি কাউন্সিলের একটি আসনে বিজয়ী হয়েছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভ’ত শাহানা হানিফ এবং কুইন্স সিভিল কোর্টের জজ হিসেবে অপর বাংলাদেশী বংশোদ্ভ’ত এটর্নী সোমা সাঈদ। এই দুই নারী মূলত: মূলধারার রাজনীতিতে নিউইয়র্ক সিটিতে কমিউনিটির জন্যে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন। এর আগে কোন বাংলাদেশী আমেরিকান নিউইয়র্ক সিটি কেন নিউইয়র্ক স্টেটের কোনো পর্যায়ের নির্বাচনেই জয়ী হতে পারেননি। 

শাহানা হচ্ছেন উত্তর আমেরিকায় চট্টগ্রাম সমিতির সাবেক সভাপতি ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোহাম্মদ হানিফের জ্যেষ্ঠ কন্যা। অপরদিকে, অ্যাটর্নী সোমা সাঈদ টাঙ্গাইলের সন্তান এবং শিশুকালে বাবা আফতাব সৈয়দের সাথে অভিবাসন মর্যাদায় যুক্তরাষ্ট্রে এসেছেন। হৃদয়ে লাল-সবুজের বাংলাদেশ ধারণ করেই আইন পেশায় নিজের আসন পোক্ত করার পর রাজনীতিতে অবতীর্ণ হলেন।  

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

এই বিভাগের আরও খবর