শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩০

ব্রাদার্সকে হারাল বসুন্ধরা

ব্রাদার্স ২ : ৩ বসুন্ধরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক

ব্রাদার্সকে হারাল বসুন্ধরা

যদি মিস না করতেন বিপলু আহমেদ, নিশ্চিত করেই তার নামের পাশে লেখা থাকত বাংলাদেশের ফুটবল ইতিহাসের সেরা গোলটি! ম্যাচের ৩০ মিনিটে নিজেদের প্রান্ত থেকে বল ধরে ইন-সাইড ও আউট সাইড ডজে ব্রাদার্সের তিনজন ফুটবলারকে কাটিয়ে ঢুকে পড়েন বক্সে। সেখান থেকে আগুয়ান গোলরক্ষককে কাটিয়ে গোল দিতে ব্যর্থ হন। নিশ্চিত গোল বঞ্চিত হয় বসুন্ধরা কিংস এবং গোলবঞ্চিত হন বিপলু। অসাধারণ সুযোগ সৃষ্টির পর গোল মিস করলেও বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বসুন্ধরার জয়ে কোনো বাঁধা হয়নি। গতকাল টিপ টিপ বৃষ্টির সন্ধ্যায় তীব্র উত্তেজনার ম্যাচে অস্কার ব্রুজোনের বসুন্ধরা কিংস ৩-২ গোলে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে হারিয়ে জয়ে ফিরেছে। বিপরীতে টানা দুই ড্রয়ের পর লিগে প্রথম হারের তিক্ত স্বাদ পেল গোপীবাগের দলটি। এই জয়ে তিন ম্যাচে বসুন্ধরার পয়েন্ট ৭। অপরদিকে তিন ম্যাচে প্রথম হারে ব্রাদার্সের পয়েন্ট ২।

বসুন্ধরা চলতি মৌসুম শুরু করে ফেডারেশন কাপের শিরোপা জিতে। লিগ শুরু করে উত্তর বারিধারাকে হারিয়ে। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট হারায় বাংলাদেশ পুলিশের সঙ্গে ড্র করে। ফলে ব্রাদার্সের বিপক্ষে গতকালের ম্যাচটি ছিল জয়ের ট্রাকে উঠার। ব্রাদার্স খেলতে নেমেছিল দুই শক্তিধর প্রতিপক্ষ শেখ রাসেল ও ঢাকা আবাহনীর বিপক্ষে ড্রয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়ে। কিন্তু কলিনড্রেসের নেতৃত্বে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে বিধ্বস্ত করে গোপীবাগের দলটিকে। বসুন্ধরা অবশ্য গতকাল খেলেছে দলের অন্যতম বিদেশি রিক্রুট নিকোলাস দেলমন্তেকে ছাড়া। আর্জেন্টাইন তারকা ছাড়া খুব বেশি সমস্যায় পড়েননি কলিড্রেস বাহিনী। দেলমন্তেকে ছাড়া বসুন্ধরা শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ফুটবলে ব্রাদার্সের রক্ষণভাগকে ব্যতিব্যস্ত করে রাখে। তৃতীয় মিনিটে প্রথম সুযোগ তৈরি করে বসুন্ধরা। ১৪ মিনিটে বিপুলের ক্রসে তৌহিদুল আলম সবুজের শট ব্রাদার্সের গোলরক্ষক জাফর সরদার দারুণভাবে রক্ষা করেন। ১৭ মিনিটে বসুন্ধরাকে এগিয়ে নেন মোহাম্মদ ইব্রাহিম। ডি-বক্সের মাথা থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে ১-০ গোলে এগিয়ে নেন ইব্রাহিম। ৩০ মিনিটে অসাধারণ স্কিলের বিস্ফোরণে গোলের সুযোগ সৃষ্টি করেও মিস করেন বিপুল। প্রথমার্ধের অন্তিম মুহূর্তে গোল সংখ্যা ২-০ করেন ইব্রাহিম। বাঁ প্রান্ত দিয়ে বল ধরে প্রতিপক্ষের দুজনকে কাটিয়ে আড়াআড়ি শটে গোল করে দলকে এগিয়ে নেন (২-০)।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে ব্যবধান ৩-০ করেন ম্যাচের সেরা ফুটবলার বসুন্ধরার কলিনড্রেস। বিপুলর ছোট পাস ধরে কোস্টারিকার বিশ্বকাপ স্ট্রাইকার কলিনড্রেস বাঁকানো শটে দ্বিতীয় বারে অসাধারণ একটি গোল করেন। তিন গোলে এগিয়ে একটু গা ছাড়া দিয়ে খেলতে থাকে বসুন্ধরা। সেই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে দারুণভাবে ম্যাচে ফিরে ব্রাদার্স। ৬৩ মিনিটে ব্যবধান ১-৩ করেন আক্কাস শেখ। জমে উঠে ম্যাচ। সমতায় ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠে গোপীবাগের দলটি। ৭৬ মিনিটে আড়াআড়ি ক্রসে অরুপ বৈদ্য হেডে আনিসুর রহমান জিকোকে পরাস্ত করে ব্যবধান ২-৩ করেন। টানা তৃতীয় ড্রয়ের টার্গেটে ব্রাদার্স আরও মরিয়া হয়ে উঠে। কিন্তু বসুন্ধরার রক্ষণভাগের দৃঢ়তায় ম্যাচ ড্র করতে পারেনি ব্রাদার্স। শেষ পর্যন্ত ৩-২ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে অস্কার ব্রুজোনের শিষ্যরা।


আপনার মন্তব্য