শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ মার্চ, ২০২০ ২০:৪৩

৩৫ টাকা পিয়াজের কেজি, তারপরও মিলছে না ক্রেতা!

অনলাইন ডেস্ক

৩৫ টাকা পিয়াজের কেজি, তারপরও মিলছে না ক্রেতা!
ফাইল ছবি

বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বাংলাদেশেও হানা দিয়েছে। গত দুই সপ্তাহ আগে করোনাভাইরাসের সতর্কতার মাঝে দেশের বাজারে হঠাৎ করে বাড়তে থাকে পিয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম। তখন খুঁচরা বাজারে পিয়াজ বিক্রি হয় ৬০-৮০ টাকায়। তবে পাইকারি বাজারে এখন কেজি প্রতি পিয়াজ ৩৫ টাকা দর দিয়েও ক্রেতা খুঁজে পাচ্ছেন না আড়তদাররা। 

চট্টগ্রামে খাতুনগঞ্জের পাইকারি বাজারে ভারতের নাসিক জাতের ভালো মানের পিয়াজ কেজি ৩৫ টাকায়। আর ভারতীয় অন্য জাতের পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি ৩০ থেকে ৩২ টাকায়। এ ছাড়া মায়ানমারের পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি ৩০ টাকায়, চীনের পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৬ থেকে ২৮ টাকায়। 

অভিযোগ রয়েছে, দেশে ১০ দিনের সাধারণ ছুটিতে পিয়াজ নিয়ে হাহাকার শুরু হবে; আর নিজেরা ইচ্ছে মতো দামে বিক্রি করবেন এই আশায় বিপুল পিয়াজ আমদানি করে আড়ত ভরিয়ে ফেলেছেন একদল ব্যবসায়ী। কিন্তু হাহাকার তো দূরে থাকা সেই পিয়াজ বিক্রির জন্য এখন ক্রেতা খুঁজে না পেয়ে মাথায় হাত দিয়ে বসে আছেন খাতুনগঞ্জের সেই ব্যবসায়ীরা।

তবে খাতুনগঞ্জ কাঁচাপণ্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ ইদ্রিস জানান, ‘অসৎ উদ্দেশ্যে বা সংকট তৈরি করতে ব্যবসায়ীরা এই কাজটি করেনি। মূলত ভারতে লকডাউনের সময় আমদানি বন্ধ হয়ে যাবে মাথায় রেখেই বাড়তি আমদানি করেছেন। সেই আমদানির সাথে মায়ানমারের পিয়াজও যোগ হয়েছে। ফলে বাজারে প্রত্যেকের আড়তেই বিপুল পরিমাণ পিয়াজ রয়েছে।’


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য