শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২০:৫১

'মানুষের বিপদে এগিয়ে আসা মহৎ কাজ'

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

'মানুষের বিপদে এগিয়ে আসা মহৎ কাজ'

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, ‘একজন মানুষ হয়ে আরেকজন মানুষের বিপদে এগিয়ে আসা, মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য কাজ করা- এগুলো অনন্য, অসাধারণ কাজ। এসব কাজের কোনো বিকল্প নেই। তদুপরি এসব ভালো কাজের পুরস্কার জীবনের কোনো এক সময়ে স্বয়ং আল্লাহই প্রদান করবেন।’    

মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে কমিউনিটি বেইজড হেল্থ কেয়ার অপারেশনস প্ল্যানের  অধীন ‘মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্প-২০২০’ এবং কোভিড-১৯ অনলাইন রিপোর্ট ভেলিভারি সিস্টেম’ এর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। 
বিকালে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের গ্যালারি হলে অনুষ্ঠিত সভায় টিম ওয়াই-স্যাবকে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয় সংবর্ধনা প্রদান করে।     

সিভিল সার্জন কার্যালয় এবং চিকিৎসক ও মেডিকেল শিক্ষার্থীদের স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ইয়াং সোশ্যাল এক্টিভিজম বোর্ড- ওয়াই-স্যাব’র সহযোগিতায় মুজিববর্ষ উপলক্ষে চট্টগ্রাম নগরে গত ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে ৩০ আগস্ট পর্যন্ত কমিউনিটি বেইজড হেল্থ কেয়ার অপারেশনস প্ল্যানের অধীনে মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্প ২০২০ আয়োজন করা হয়। তাছাড়া টিম ওয়াই-স্যাব করোনার নমুনা পরীক্ষায় রিপোর্ট অনলাইনে মোবাইলের মাধ্যমে প্রকাশের প্রশংসনীয় কার্যক্রমও পরিচালনা করে।             

ওয়াই-স্যাব সদস্য সুকন্যা ঘোষের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ আসিফ খান, জেলা স্বাস্থ্য তত্ত্বাবধায়ক সুজন বড়ুয়া, ওয়ান ব্যাংক লি. এর ফার্স্ট এসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাজিম উদ্দীন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ওয়াই-স্যাব’র ফাউন্ডার  প্রেসিডেন্ট ডা. হামিদ হোছাইন আজাদ। মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্প ২০২০ প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখেন ইফফাত খানম রাইসা এবং কোভিড-১৯ অনলাইন রিপোর্ট ভেলিভারি সিস্টেম’ প্রসঙ্গে বক্তব্য রাখেন ধ্রুব ধর।  

ওয়াই-স্যাব জানায়, ‘নগরীর ১০টি সুবিধাবঞ্চিত এলাকা চিহ্নিত করা হয়। প্রতিটি এলাকার জন্য একজন চিকিৎসক, একজন টিম লিডার ও সাতজন স্বেচ্ছাসেবীর সমন্বয়ে ১০টি টিম গঠন করা হয়। প্রতিটি এলাকায় ৩টি করে মোট ৩০টি মোবাইল মেডিকেল ক্যাম্প আয়োজন এবং প্রয়োজনীয় ওষুধ বিতরণ করা হয়। তাছাড়া চট্টগ্রামবাসীর কষ্ট লাঘবে ১৭ জুন থেকে কোভিড-১৯ পরীক্ষার ফলাফল দ্রুততম সময়ে অনলাইনে প্রকাশ করা শুরু করা হয়। এতে খুব অল্প সময়ে এবং ঘরে বসেই করোনার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পেয়েছেন রোগীরা।   

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর