৬ ডিসেম্বর, ২০২১ ১১:০৩

সন্দেহ থেকে খুন

নিজস্ব প্রতিবেদক

সন্দেহ থেকে খুন

প্রতীকী ছবি

দিনাজপুরের চিরিরবন্দরের গ্রামের বাড়ি ছেড়ে জীবিকার সন্ধানে স্ত্রী ফেন্সি আরাকে নিয়ে রাজধানী ঢাকায় আসেন মোমিনুল। তিনি নিজে রিকশা চালান, আর স্ত্রী ফেন্সি গৃহকর্মীর কাজ নেন। কথা ছিল প্রতি মাসে ফেন্সিকে ৭ হাজার টাকা বেতন দেওয়া হবে। কিন্তু কথামতো বেতন না দিয়ে প্রতি মাসে মাত্র ১ হাজার টাকা করে দেওয়া হতো। শুধু তাই নয়, পান থেকে চুন খসলেই করা হতো নির্যাতন। স্বামীর সঙ্গে দেখা করতে চাইলে দেখা করতে দেওয়া হতো না। এরই মধ্যে গত ১ ডিসেম্বর গৃহকর্তার সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্ক সন্দেহে ফেন্সিকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন গৃহকর্ত্রী সামিনা হাসান। 

তারপর তার বুকের ওপর চড়ে আঘাত করে বুকের হাড় ভেঙে দেওয়া হয়। এতে ফেন্সির মৃত্যু হলে সামিনা ও জসিমুল দম্পতি লাশটি রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়ী এলাকার একটি ঝাউবনে ফেলে দেয়। এরপর গত ৩ ডিসেম্বর হঠাৎ মোমিনুল খবর পান তার স্ত্রী ফেন্সির মরদেহ মিলেছে উত্তরা দিয়াবাড়ীর একটি ঝাউবনে। মোমিনুল নিজের স্ত্রীর মরদেহ শনাক্ত করার পর পিবিআইর একটি দল রাজধানীর গুলশান নিকেতনের ৬ নম্বর সড়কের ১৫ নম্বর বাড়ি থেকে গৃহকর্তা সৈয়দ জসিমুল হক ও মূল হত্যাকারী গৃহকর্ত্রী সৈয়দা সামিনা হাসানকে গ্রেফতার করে। পরে জিজ্ঞাসাবাদে ফেন্সিকে খুনের পর লাশ গুমের উদ্দেশ্যেই উত্তরার দিয়াবাড়ী ফেলে আসার কথা স্বীকার করে গ্রেফতার দম্পতি।

গতকাল দুপুরে রাজধানীর আগারগাঁও ৬০ ফুট ভাঙা মসজিদ-সংলগ্ন পিবিআই ঢাকা মেট্রো-উত্তর কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বিশেষ পুলিশ সুপার মো. জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, গত ২ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় তুরাগের দিয়াবাড়ীর ঝাউবন এলাকা থেকে অজ্ঞাতনামা এক তরুণীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পিবিআই তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় অজ্ঞাতনামা নারীর নাম-পরিচয় শনাক্ত করে। নিহতের নামে পারভীন ওরফে ফেন্সি আরা। তার বাড়ি দিনাজপুরের চিরিরবন্দর আলোকডিহি সরকার পাড়ায়। বাবার নাম রমজান আলী। স্বামীর নাম মোমিনুল হক।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল

সর্বশেষ খবর