১২ জানুয়ারি, ২০২২ ২০:১৭

নাসিকে হাতপাখা প্রতীকের মেয়র প্রার্থীর ২৭ দফা নির্বাচনী ইশতেহার

রোমান চৌধুরী সুমন ও এম এ শাহীন, নারায়ণগঞ্জ থেকে

নাসিকে হাতপাখা প্রতীকের মেয়র প্রার্থীর ২৭ দফা নির্বাচনী ইশতেহার

নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মুফতী মাসুম বিল্লাহ তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। ২৭ দফা কর্মসূচি সম্বলিত ইশতেহার ঘোষণা করেন তিনি। তাকে হাতপাখা প্রতীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করলে ইশতেহারে বর্ণিত কর্মসূচিসমূহ বাস্তবায়নের মাধ্যমে এবং সকলের সহযোগিতা নিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনকে একটি উন্নত ও আর্ন্তজাতিক মানসম্পন্ন মানবিক শান্তির নগরী হিসেবে সুপ্রতিষ্ঠিত করবেন বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 

আজ বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের লাউঞ্জে ইশতেহার ঘোষণা করেন তিনি। এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, নাসিকের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক মাওলানা দ্বীন ইসলাম, জেলা ইসলামী আন্দোলনের সদস্য সচিব জাহাঙ্গীর কবির, মহানগর কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ নূর হোসেন, সেক্রেটারী সুলতান মাহমুদ, ইসলামী ছাত্র আন্দোলনের মহানগরের সভাপতি এম শফিকুল ইসলাম প্রমুখ। 

ইশতেহারে মুফতী মাসুম বিল্লাহ’র ২৭ দফা কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, নগরবাসীর জনস্বাস্থ্য সুরক্ষা, নগরবাসীর পানি সরবরাহ ও পানি নিষ্কাশন, বাজার ব্যবস্থা আধুনিকায়ন, নগর পরিকল্পনা, রাস্তাঘাট নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণ, জননিরাপত্তা বিধান, বৃক্ষরোপন, পার্ক, উদ্যান ও বনায়ন কর্মসূচী, শিক্ষা বান্ধব পরিবেশ তৈরী, সাংস্কৃতিক ব্যবস্থার উন্নয়ন, জনকল্যানমূলক কাজ, ফুটপাত সম্প্রসারণ ও হকার পুনর্বাসন প্রকল্প, শুধু দুর্নীতি দমন নয়, দুর্নীতির মূলোৎপাটন কর্মসূচি গ্রহণ, ভেজালমুক্ত খাদ্য ও ইনসাফপূর্ণ বাজার নিয়ন্ত্রণ, শ্রমের মর্যাদা ও শ্রমিকের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠা, নারী জাতির মর্যাদা সমুন্নত করার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ গুরুত্ব প্রদান, গরীব দুঃখী অসহায় ব্যক্তিদের জন্য বিশেষ ব্যাংক, যানজট নিরসন, সংখ্যালঘুদের সার্বিক অধিকার নিশ্চিতকরণ, ধর্মীয় ও রাজনৈতিক সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠা, মা ও শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ, নগরীর জলাবদ্ধতা দূরিকরণ, পথিক এবং ভ্রাম্যমাণ মানুষের জন্য নতুন ১০০০ স্যানিটারী টয়লেট নির্মাণ করা, ৩০% হোল্ডিং ট্যাক্স কমানো হবে, প্রতিটি ওয়ার্ডে ১টি করে খেলার মাঠের ব্যবস্থা করা, ধুলা-ধোঁয়া, মশা, জলাবদ্ধতা ও যানজট নিরসনের লক্ষ্যে টাস্ক ফোর্স গঠন, ক্ষুদে টোকাইদের পুনর্বাসনকেন্দ্র নির্মাণ, প্রতিবন্দ্বীদের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদান। 

ইশতেহার ঘোষণাকালে লিখিত বক্তব্যে মাসুম বিল্লাহ বলেন, আপনারা যদি সুস্থ পরিবেশে বাঁচতে চান, শান্তি-সুখে থাকতে চান, তাহলে অশুভ কায়েমী স্বার্থবাদী সিণ্ডিকেটকে অবশ্যই ভাঙতে হবে। নোংরা রাজনীতির প্রভাব-দৌরাত্ম থেকে নারায়ণগঞ্জ সিটিকে রক্ষা করতে হবে। জনজীবনে স্বস্তি ও শান্তি ফিরিয়ে আনতে হবে। নগরকে বসবাসোপযোগী শান্তির নগরীতে পরিণত করতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন আমূল পরিবর্তনের দরকার ব্যাপক সংস্কারের প্রয়োজন সমন্বিত উদ্যোগের। প্রয়োজন সৎ, যোগ্য ও আল্লাহ ভীরু নেতৃত্বের। কাঙ্ক্ষিত মুক্তির লক্ষ্যে শুধু ক্ষমতার পালাবদল নয়, শুধু নেতা নয়, নীতির পরিবর্তন চাই। ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের একজন কর্মী হিসেবে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি যে, জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে, নাগরিক সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে চাই সুষমনীতি; যা একমাত্র ইসলামই নিশ্চিত করেছে।

আমলাতান্ত্রিক জটিলতা, টেন্ডারবাজী ও টেন্ডারগুণ্ডাদের অশুভ প্রবণতা থেকে সিটি কর্পোরেশনকে মুক্ত রাখতে হবে। নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরগণ যদি সৎ ও যোগ্য না হন এবং সরকারের সহযোগিতা কাঙ্ক্ষিতমানের না থাকে, তাহলে তাদের নির্বাচনী ওয়াদা ফাঁকাবুলি ও ধোকাবাজিতে পরিণত হবে। তাদের থেকে নাগরিকের প্রকৃত কোনো কল্যাণ ও নগর উন্নয়নের কোন আশা করা যায় না।

বিডি প্রতিদিন/আরাফাত

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর