শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৫১

লালন স্মরণে শিল্পকলায় দুই দিনের অনুষ্ঠানমালা

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

লালন স্মরণে শিল্পকলায় দুই দিনের অনুষ্ঠানমালা

আজ মানুষ ও মানবতার মরমি সাধক লালন শাহের ১৩০তম তিরোধান দিবস। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি গতকাল থেকে শুরু করেছে দুই দিনব্যাপী স্মরণোৎসব। আন্তর্জাতিক সেমিনার, দেশি ও বিদেশি লালন গবেষকদের নিয়ে ভার্চুয়াল ও স্বশরীরে উপস্থিতির মাধ্যমে প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা, সাধুমেলা, ভাববাণী ও বাউল গান দিয়ে সাজানো হয়েছে এ অনুষ্ঠানমালা। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ঢাকাসহ ৬৪ জেলা শিল্পকলা একাডেমি একযোগে এ অনুষ্ঠান করবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে একাডেমির বাউলকুঞ্জ থেকে ধানমন্ডি ৩২ নম্বর পর্যন্ত শত বাউলের অংশগ্রহণে বাউলের কণ্ঠে বঙ্গবন্ধু বন্দনা ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদনের মধ্য দিয়ে গতকাল সকাল সাড়ে ৭টায় শুরু হয়েছে এ আয়োজন। এরপর সকাল ১০টায় একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় ‘বাউল গান ও বাউল দর্শন’ বিষয়ক কর্মশালা। বিকাল ৩টায় জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় ‘বিশ্ব মানবতার মুক্তিতে লালন দর্শন’ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সেমিনার। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন একাডেমির সচিব নওসাদ হোসেন। অনলাইনে যুক্ত হয়ে সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কাউন্সিল ফর সোশ্যাল ডেভেলপমেন্টের সভাপতি ভারতের নয়াদিল্লির অধ্যাপক মুচকুন্দ দুবে। আলোচনায় অংশ নেন ফ্রান্সের ইনালকো বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জেরিমি করডম এবং সেই দেশের গবেষক কার্লোস সেমিডো। সেমিনারের সম্মেলক কণ্ঠে পরিবেশন করেন ‘এলাহী আলমিন  গো আল্লাহ, বাদশা আলমপনা তুমি’।

বিষয় ভিত্তিক বক্তৃতা পর্বে ‘বাউলসংগীত সংরক্ষণ ও বিকাশ’ বিষয়ে বক্তৃতা করেন ইউনেস্কো জাতীয় কমিশনের ডেপুটি সেক্রেটারি জেনারেল মো. সোহেল ইমাম খান, ‘লালনের সমাজ ভাবনা ও বিশ্ব মানবতা’ বিষয়ে বক্তৃতা করেন অধ্যাপক ড. আবুল আহসান চৌধুরী।

সাঁইজির ভাববাণী পরিবেশন করেন ফকির নহির শাহ্, ফরিদা পারভীন, সমির বাউল, যুক্তরাষ্ট্রের কিথ ই কান্ত, ফ্রান্সের দেবরা জান্নাত। সবশেষে সন্ধ্যা ৬টায় একাডেমি প্রাঙ্গণের বাউলকুঞ্জে সাঁইজির সুরের মূর্ছনায় শারদীয় সন্ধ্যাকে মোহনীয় করে তোলেন শিল্পীরা। এ পর্বে লতিফ শাহ গেয়ে শোনান ‘ডুবে দেখ দেখি মন কী রূপ লীলাময়’, ফরিদা পারভীনের কণ্ঠে গীত হয় ‘পাখি কখন যেন উড়ে যায়’। ফ্রান্স বংশোদ্ভূত দেবরা জান্নাত গেয়ে শোনান ‘বাড়ির পাশে আরশি নগর’, নহির শাহ পরিবেশন করেন ‘গুরু পদে নিষ্ঠা মন যার’। একাডেমির সংগীত দল পরিবেশন করে ‘আমার এ ঘর খানায় কে বিরাজ করে’ ও একাডেমির বাউল দল পরিবেশন করে এসো হে দয়ার কা-ারি গান দুটি। লালনের অমিয় বাণী আর সুরের ফল্গুধারায় সাঁইয়ের ভক্তরা ভেজেন সুরের বৃষ্টিতে।

আজ শনিবার শেষ হবে দুই দিনের এই বর্ণাঢ্য আয়োজন। কর্মশালা, আন্তর্জাতিক সেমিনার, সাঁইজির ভাববাণী ও বাউল গানের মধ্য দিয়ে শেষ হবে সমাপনী আয়োজন। উৎসবের অংশ হিসেবে কুষ্টিয়ার কুমারখালী ছেঁউড়িয়াতেও চলছে দুই দিনের আয়োজন। আয়োজনের সহযোগিতায় রয়েছে ইউনেস্কো ঢাকা অফিস।

বাচসাসের সেমিনার : বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশের চলচ্চিত্র’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস)। গতকাল বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চলচ্চিত্র গবেষক অনুপম হায়াৎ।

সংগঠনের সভাপতি ফাল্গুনী হামিদের সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্যসচিব কামরুন নাহার, প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, কোষাধ্যক্ষ শ্যামল দত্ত, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার, অভিনেত্রী মৌসুমী ও অভিনেতা ফেরদৌস। প্রধান আলোচক ছিলেন চলচ্চিত্র সাংবাদিক ও বাচসাসের সাবেক সভাপতি রফিকুজ্জামান।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর