শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ মার্চ, ২০২১ ১৮:৫২
আপডেট : ২৪ মার্চ, ২০২১ ১৮:৫৪
প্রিন্ট করুন printer

আরও তিনজন সিটি কাউন্সিলরের বহিষ্কার চান নিহতের স্বজনরা

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা

আরও তিনজন সিটি কাউন্সিলরের বহিষ্কার চান নিহতের স্বজনরা
আলমগীর হোসেন, আবুল হাসান ও আবদুস সাত্তার (বাঁ থেকে)

যুবলীগ নেতাকে গাড়ি চাপা দেয়ার অপরাধে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ১৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সাইফুল বিন জলিলকে। মঙ্গলবার স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-সচিব নুমেরী জামান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়। এদিকে কুমিল্লার আরও তিনজন কাউন্সিলর দুইটি হত্যা মামলায় কারাগারে রয়েছেন। তাদের স্থায়ী বহিষ্কার ও সাজা দাবি করেছেন নিহতের স্বজনরা। অপরদিকে সাজার বৈষম্যমূলক দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন কুমিল্লার বিশিষ্টজনরা।

 

আরও পড়ুন : সিলেটে মোদিবিরোধী মানববন্ধন ও কালো পতাকা মিছিল, আটক ৭

 

সূত্র মতে, গত বছরের ১১ নভেম্বর যুবলীগ কর্মী জিল্লুর রহমান চৌধুরী জিলানীকে হত্যা করা হয়। ওই মামলায় কারাগারে রয়েছেন ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবুল হাসান। একই মামলায় কারাগারে আছেন ২৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুস সাত্তার। গত বছর ১০ জুলাই কুমিল্লা নগরীর চাঙ্গিনী এলাকায় আওয়ামী লীগ কর্মী আক্তার হোসেনকে (৫৫) মসজিদ থেকে বের করে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহত আক্তার হোসেনের স্ত্রী রেখা বেগম বাদী হয়ে কুমিল্লার সদর দক্ষিণ মডেল থানায় ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলমগীর হোসেনকে প্রধান আসামি করে ১০ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। কাউন্সিলর আলমগীর হোসেন কারাগারে রয়েছেন।

গত ১৯ মার্চ সবশেষ যুবলীগ নেতা রোকন উদ্দিনকে গাড়ি চাপা দিয়ে হত্যা চেষ্টা মামলায় কারাগারে গেছেন ১৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুল বিন জলিল।

নিহত জিলানীর ভাই ইমরান চৌধুরী ও আক্তার হোসেনের ভাই শাহ জালাল আলাল বলেন, একজন কাউন্সিলর হত্যা চেষ্টা মামলায় সাময়িক বহিষ্কার হয়েছেন। যে তিন জন কাউন্সিলর হত্যা মামলার আসামি তাদের স্থায়ী বহিষ্কারের দাবি জানাচ্ছি।

এ বিষয়ে সচেতন নাগরিক কমিটি কুমিল্লার সভাপতি বদরুল হুদা জেনু বলেন, হত্যা চেষ্টা মামলায় একজন কাউন্সিলরকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। হত্যা মামলায় আরও তিনজন কাউন্সিলর কারাগারে রয়েছেন। তাদেরও অপরাধ অনুযায়ী সাজা দেয়া উচিত। স্থানীয় সরকার বিভাগের কোন সাজা যেন রাজনৈতিক দৃষ্টিকোণ বিবেচনায় না হয়।

স্থানীয় সরকার বিভাগ কুমিল্লার উপ-পরিচালক মো. শওকত ওসমান বলেন, কাউন্সিলর সাইফুল বিন জলিলের বিষয়টি মন্ত্রণালয়ের সরাসরি নজরে আসায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে অসদাচরণ ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগ রয়েছে। অন্য যারা হত্যা মামলায় কারাগারে রয়েছেন তাদের বিষয়গুলো সিটি করপোরেশনের মাধ্যমে মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে পারে। মন্ত্রণালয় যাছাই করে সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে পারে।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর