শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ মার্চ, ২০১৯ ২৩:২৬

কালিমাহ তায়্যিবাহর ফজিলত

মুহাম্মদ আশরাফ আলী

কালিমাহ তায়্যিবাহর ফজিলত

ইসলামের মূল ভিত্তি কালিমাহ তায়্যিবাহ ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ’। যার অর্থ আল্লাহ ছাড়া কোনো মাবুদ নেই, মুহাম্মদ (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) আল্লাহর রসুল। এটি ইমানের মূল কথা। একাত্মবাদের মূলকথা। এই একাত্মবাদ মুমিনদের জন্য আখিরাতে জান্নাতের সুশীল ছায়া নিশ্চিত করবে। রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এই একাত্মবাদের ভিত স্থাপন করেন। হজরত আদম (আ.) থেকে সব নবী রসুল একাত্মবাদের কথা প্রচার করেছেন। শেষ নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন এই একাত্মবাদের অমীয় বাণী প্রচার করেন তখন দুনিয়া ছিল কুসংস্কারের অন্ধকারে ঢাকা। মানুষ আল্লাহকে ভুলে কল্পিত প্রভুর আরাধনা শুরু করেছিল। সত্য পথ থেকে বিচ্যুত হয়ে অসত্য পথের দিকে ধাবিত হচ্ছিল। সে সময় লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ এই কালিমার ভিত্তিতে তিনি ইসলামী শরিয়তের প্রতিষ্ঠা করেন। ইসলাম এই কালিমার ওপর ভিত্তি করে প্রতিষ্ঠিত। মুসলমানরা বিশ্বাস করে রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের নবুওয়াত ও রেসালত শুধু পৃথিবী নয়, কিয়ামততক              বিস্তৃত। একাত্মবাদের আলোকরশ্মির আওতায় যারা আসতে সক্ষম হবে, তারাই অন্ধকার থেকে আলোর জগতে প্রবেশ করবে। আখিরাতে আল্লাহর কাছে জবাবদিহিতার ক্ষেত্রে তারা সফলকাম হিসেবে বিবেচিত হবে।

ইসলামী ইমান আকিদা অনুসারে আল্লাহর একত্ম এবং শ্রেষ্ঠত্ব স্বীকার করাই যথেষ্ট নয়, মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যে তার রসুল এই অমীয় বিশ্বাসেও নিজেকে হাজির করতে হবে। আল্লাহর রহমত পেতে তার রসুলকেও ভালোবাসতে হবে এবং অনুসরণ করতে হবে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তাঁর হাবিবকে লক্ষ্য করে ইরশাদ করেছেনÑ ‘আপনি বলে দিন। যদি তোমরা আল্লাহকে ভালোবাস তবে আমায় অনুসরণ কর। আল্লাহ তোমাদের ভালোবাসবেন।’

রসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মেরাজকালে জান্নাতে প্রবেশের সময় এর দুই পাশে কালিমাহ তায়্যিবাহ ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুলুল্ল­াহ’ শব্দটি স্বর্ণাক্ষরে লেখা দেখতে পান। কালিমাহ তায়্যিবাহর গুরুত্ব প্রকাশ পেয়েছে এ ঘটনায়। আল্লাহ আমাদের সবাইকে একাত্মবাদের ভিত্তি কালিমাহ তায়্যিবাহর প্রতি অটল থাকার তাওফিক দান করুন।

লেখক : ইসলামী গবেষক।


আপনার মন্তব্য